BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

সীমানা নির্ধারণ সম্পূর্ণ হলেই নির্বাচন কাশ্মীরে, স্বাধীনতা দিবসে ঘোষণা প্রধানমন্ত্রীর

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: August 15, 2020 11:00 am|    Updated: August 15, 2020 11:00 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:‌ গত ৭৪ বছরে সবচেয়ে ব্যতিক্রমী স্বাধীনতা দিবস। করোনা আবহেই গোটা দেশে পালন করা হচ্ছে ব্রিটিশ সাম্রাজ্যবাদের হাত থেকে মুক্তির দিনটি। স্বাভাবিকভাবেই শনিবার সকালে লালকেল্লায় পতাকা উত্তোলন করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। অ–কংগ্রেসি প্রধানমন্ত্রীদের মধ্যে সবচেয়ে বেশিবার। এছাড়া দেশবাসীর উদ্দেশে বক্তব্যও রাখেন প্রধানমন্ত্রী। জানান, গত এক বছরে তাঁর সরকার কী কী কাজে সফল হয়েছে। আর তখনই উঠে আসে কাশ্মীর প্রসঙ্গ। প্রধানমন্ত্রী জানান, খুব শীঘ্রই জম্মু–কাশ্মীরকে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া লেহ–লাদাখ–কার্গিলেও উন্নয়নমূলক কাজ করা হবে।

[আরও পড়ুন: এবার ‘এক দেশ, এক হেলথ কার্ড’, স্বাধীনতা দিবসে বড় ঘোষণা প্রধানমন্ত্রীর]

মোদি বলেন, ‘‌‘‌গত এক বছরে কেন্দ্র অনেক বলিষ্ঠ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তার মধ্যে অবশ্যই একটি হল জম্মু–কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা রদ। সীমানা নির্ধারণের কাজ শেষ হলেই খুব শীঘ্র জম্মু–কাশ্মীরে নির্বাচনের আয়োজন করা হবে। উপত্যকার মানুষ খুশি। সেখানে মহিলা–দলিতরা নিজেদের অধিকার ফিরে পেয়েছে।’‌’ এর পাশাপাশি লাদাখ প্রসঙ্গে মোদি বলেন, ‘‌‘‌লাদাখের মানুষের বহুদিনের দাবি পূরণ হয়েছে। বর্তমানে সেখানে কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয় তৈরি হচ্ছে, হোটেল ম্যানেজমেন্টের কোর্স চালু হয়েছে। খুব শীঘ্রই সোলার প্লান্টও বসবে।’‌’‌ লে–লাদাখ এলাকার সার্বিক উন্নয়নই যে কেন্দ্রের লক্ষ্য তাও জানান প্রধানমন্ত্রী।

[আরও পড়ুন: ‘স্বাধীনতার ৭৫ বছরের আগে আত্মনির্ভর হতেই হবে’, লালকেল্লায় দাঁড়িয়ে শপথ প্রধানমন্ত্রীর]

এদিকে, এদিনের ভাষণে পরিবেশ সংক্রান্ত বেশ কিছু বিষয়েও বক্তব্য রাখেন মোদি। জানান, প্রযুক্তির সাহায্য নিয়ে দেশের ১০০ শহরকে দূষণ মুক্ত করার কাজ শুরু হবে। এছাড়া দেশে জঙ্গলের পরিমাণ বৃদ্ধির পাশাপাশি বেড়েছে জাতীয় পশু বাঘের সংখ্যা। এবার সরকারের লক্ষ্য ‘‌প্রজেক্ট লায়ন’ এবং ‘‌প্রজেক্ট ডলফিন’। প্রধানমন্ত্রীর দাবি, এতে যেমন জীববৈচিত্র বাড়বে, তেমনই রোজগারও বাড়বে। এর পাশাপাশি আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী। জানান, আগামী ১০০০ দিনে লাক্ষাদ্বীপকেও সাবমেরিন অপটিকাল ফাইবার দিয়ে জোড়া হবে। উপকূলবর্তী এলাকার জেলাগুলোতে এনসিসির ক্যাডেটের সংখ্যা বাড়ানো হবে। ওই এলাকায় এক লক্ষেরও বেশি এনসিসির ক্যাডেট তৈরি করা হবে। চেষ্টা করা হবে, তাতে যেন এক তৃতীয়াংশ মেয়েরা হয়।

 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement