১৪ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  বুধবার ১ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

কবে ছাড়তে পারে সিবিআই ফাঁস করলেন খোদ সুদীপ

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 9, 2017 5:57 pm|    Updated: January 9, 2017 6:07 pm

 Sudip Bandyopadhyay says CBI won't release him before the budget session gets over

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সিবিআইয়ের হাতে গ্রেপ্তার হয়েও এতটুকু ভেঙে পড়েননি৷ শরীরী ভাষায় এতটুকু বদল আসেনি তৃণমূলের লোকসভার দলনেতার৷ সপ্তাহ পেরিয়েও একইরকমভাবে নিজেকে ধরে রাখলেন সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়৷ বরং জানালেন, বাজেট অধিবেশনের আগে তাঁকে ছাড়বে না সিবিআই৷

কেন এরকম বরিষ্ঠ নেতাকে গ্রেপ্তার করা হল? খোদ তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এ নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছিলেন৷ অভিযোগ তুলেছিলেন রাজনৈতিক প্রতিহিংসার৷ সেই শ্লেষ শোনা গিয়েছিল খোদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের কথাতেও৷ জানিয়েছিলেন, সংসদে ভাল পারফরম্যান্স করার ফলই এই গ্রেপ্তারি৷ তারপর থেকে নিজেদের হেফাজতে তাঁকে নিয়ে বিস্তর জেরা করেছে সিবিআই৷ রোজভ্যালির সঙ্গে সারদা কাণ্ডের যোগসূত্র মিলেছে বলেও জানা যাচ্ছে৷ এমনকী তদন্তের স্বার্থে দাপুটে এক টলিনায়িকাকেও কেন্দ্রীয় সংস্থা ডাকতে চলেছে বলেও সূত্রের খবর৷ তবে এসবে তেমন হেলদোল নেই সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের৷ আজ তাঁকে আদালতে তোলা হয়ছিল৷ সেই সময় তিনি নিজেই জানিয়ে দিলেন, বাজেট অধিবেশনের আগে তাঁকে ছাড়বে না কেন্দ্রীয় সংস্থা৷ কেন এ মন্তব্য সুদীপের? রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, তৃণমূলের জাতীয় স্তরের মুখ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ই৷ নোট বাতিলের বিরোধিতা থেকে রাজধানীতে তৃণমূলের যাবতীয় কর্মসূচি পালন করেন তিনিই৷ সংসদে কেন্দ্র সরকারকে তুলোধোনা করেছিলেন তিনিই৷ তাই তাঁকে গ্রেপ্তার মানেই তৃণমূলের বিরোধিতা অনেকটাই কমজোরি হয়ে যাওয়া৷ সিবিআইয়ের বিরুদ্ধে এই অভিযোগেই সরব তৃণমূল৷ আজ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেই সিবিআইকে কনস্পিরেসি ব্যুরো অফ ইন্ডিয়া বলে কটাক্ষ করেন৷ সেই শ্লেষের রেশ যেন পাওয়া গেল সুদীপের কথাতেও৷ বাজেট অধিবেশনের আগে তাঁর মুক্তি মানেই তৃণমূল আবার বিরোধিতায় নিজের শক্তি পাবে৷ আর তাই তাঁকে ছাড়া হবে না বলে নিজেই জানিয়ে দিলেন সুদীপ৷

এদিকে এদিন বর্ধমানে মাটি উৎসবে কেন্দ্র সরকারের বিরুদ্ধে আরও একবার সুর চড়িয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ রাজস্ব ক্ষতি হওয়া থেকে নোট বাতিলের জেরে দেশে দুর্ভিক্ষ আসছে বলেও জানান তিনি৷ তাঁর মতে৷ ডিজিটাল হওয়ার পথে তিনি অনেক আগেই পদক্ষেপ করেছিলেন৷ ছাত্রছাত্রীদের স্কলারশিপের ক্ষেত্রে ডিজিটাল পেমেন্টের ব্যবস্থা করা হয়৷ ই-গভর্ণেন্সের ক্ষেত্রেও পশ্চিমবঙ্গ এগিয়ে বলেও দাবি তোলেন তিনি৷ তাঁর দাবি, ডিজিটাল ব্যবস্থা ভাল কিন্তু যেখানে অধিকাংশ গ্রামেই ব্যাঙ্ক, ডাকঘর নেই সেখানে ডিজিটাল পদ্ধতি লাগু করা সম্ভব নয় বলেও অভিমত তাঁর৷ এদিন তৃণমূলের বিরুদ্ধে কেন্দ্রের প্রতিহিংসার রাজনীতির কথা আরও একবার উল্লেখ করেন তিনি৷ সেই সঙ্গে ওই মঞ্চ থেকেই রাষ্ট্রপতির কাছে তাঁর আবেদন, তিনি যেন এই ভয়ানক পরিস্থিতি থেকে দেশকে রক্ষা করেন৷

রোজভ্যালি-সারদা যোগ, সুদীপ্ত সেনকে হেফাজতে চায় সিবিআই

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে