BREAKING NEWS

১২ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  শনিবার ২৮ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

Mukul Roy: মুকুল রায় বিধায়ক থাকতে পারবেন তো? স্পিকারকে সিদ্ধান্ত জানানোর সময় বেঁধে দিল সুপ্রিম কোর্ট

Published by: Paramita Paul |    Posted: January 17, 2022 1:52 pm|    Updated: January 17, 2022 2:36 pm

Supreme Court seeks West Bengal speaker's decision on plea to disqualify Mukul Roy as MLA by February second week | Sangbad Pratidin

সোমনাথ রায়, নয়াদিল্লি: মুকুল রায়ের (Mukul Roy) বিধায়ক পদ কি থাকবে? সিদ্ধান্ত হোক ফেব্রুয়ারির দ্বিতীয় সপ্তাহের মধ্যে।স্পিকারকে সিদ্ধান্ত জানানোর সময় বেঁধে দিল সুপ্রিম কোর্ট (Supreme Court)। এদিন বাংলার বিধানসভার স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়কে ফেব্রুয়ারির নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে এই মামলার নিষ্পত্তি করে ফেলার জন্য মৌখিকভাবে জানিয়েছেন শীর্ষ আদালতের দুই বিচারপতি।

মুকুল রায়ের বিধায়ক পদ সংক্রান্ত কলকাতা হাই কোর্টের একটি রায়কে চ্যালেঞ্জ করে শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন সেই স্পেশ্যাল লিভ পিটিশনের শুনানি ছিল। বিচারপতি এল নাগেশ্বর এবং বিচারপতি বিভি নাগারত্নর ডিভিশন বেঞ্চ এই শুনানি ফেব্রুয়ারির দ্বিতীয় সপ্তাহ পর্যন্ত মুলতুবি রাখেন। কারণ, এর মধ্যে এই সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত হয়ে যাবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন তাঁরা।

[আরও পড়ুন: করোনা পরিস্থিতিতে ফের শুরু টেলিফোনিক ক্লাস, ফোন করলেই মিলবে শিক্ষকদের পরামর্শ]

একুশের ভোটের ফলপ্রকাশের পর ৭ অক্টোবর বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলের ফিরে আসে কৃষ্ণনগর উত্তরের বিধায়ক মুকুল রায়। তার পরেও তাঁকে বিধানসভার পাবলিক অ্যাকাউন্টস কমিটির (PAC Chairman) চেয়ারম্যান নিয়োগ করেন স্পিকার। সাধারণত এই পদটি পান বিরোধী দলনেতা বা বিরোধী দলের বিধায়ক। স্পিকারের এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে এবং মুকুল রায়ের বিধায়ক পদ খারিজের দাবিতে আবেদন জানায় বিজেপি। বারবার সেই শুনানি পিছিয়ে যাওয়ায় কলকাতা হাই কোর্টেরও দ্বারস্থ হয় গেরুয়া শিবির। তাঁদের আবেদনের প্রেক্ষিতে স্পিকারকে ৭ অক্টোবরের মধ্যে রায়দানের নির্দেশ দিয়েছিল আদালত। সেই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হন স্পিকার। এবার শীর্ষ আদালতও ফেব্রুয়ারির দ্বিতীয় সপ্তাহের মধ্যে বিষয়টি মিটিয়ে ফেলার কথা বলল সুপ্রিম কোর্টও।

উল্লেখ্য, কিছুদিন আগে বিধানসভায় স্পিকারের ঘরে শুনানির সময় বিধায়কের আইনজীবীরা দাবি করেছিলেন, ‘মুকুল রায় (Mukul Roy) দলবদল করেননি’। অভিযোগকারীদের পক্ষ থেকে যে তথ্যপ্রমাণ দেওয়া হয়েছে তা সঠিক নয়। মুকুল রায়কে উত্তরীয় পরানোর যে ছবি তথ্যপ্রমাণ হিসাবে বিধানসভার অধ্যক্ষর কাছে দেওয়া হয়েছে তা রাজনৈতিক কর্মসূচির নয়। তাদের এই দাবির বিরোধিতা করে বিজেপি।

[আরও পড়ুন: সাধারণতন্ত্র দিবসে বাদ বাংলার ট্যাবলো: সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা হোক, মোদিকে চিঠি মমতার]

প্রসঙ্গত, গত ২০১৭ সালের নভেম্বরে গেরুয়া শিবিরে যোগ দিয়েছিলেন তৃণমূলের (TMC) তৎকালীন সর্বভারতীয় সম্পাদক মুকুল রায়। কয়েকবছর পর তাঁর ছেলে শুভ্রাংশুও দলবদল করেন। ২০২০ সালে দলের হয়ে ভাল কাজ করার পুরস্কার হিসেবে বিজেপিতে (BJP) সর্বভারতীয় সহ-সভাপতির দায়িত্ব পান। একুশের বিধানসভা ভোটে প্রায় প্রচার ছাড়াই কৃষ্ণনগর উত্তর কেন্দ্র থেকে বড় ব্যবধানে জেতেন মুকুল রায়। সাড়ে ৩ বছরের ব্যবধানে ফের পুরনো দলে ফেরেন তিনি। সপুত্র ঘাসফুল শিবিরে যোগ দেন মুকুল রায়। ‘ঘরের ছেলে’কে স্বাগত জানান খোদ তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। মুকুলকে উত্তরীয় পরিয়ে স্বাগত জানান তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় (Abhishek Banerjee)।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে