BREAKING NEWS

২৫ বৈশাখ  ১৪২৮  রবিবার ৯ মে ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

মাটি খুঁড়তেই বেরিয়ে এল ঘড়া ভরতি সোনা-রুপোর গয়না! চাঞ্চল্য তেলেঙ্গানায়

Published by: Biswadip Dey |    Posted: April 10, 2021 5:51 pm|    Updated: April 10, 2021 5:52 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ঠিক যেন গল্পকথা! তেলেঙ্গানার (Telangana) এক জমি ব্যবসায়ী যখন তাঁর নিজেরই জমিতে খোঁড়াখুঁড়ি চালাচ্ছিলেন, তখন সেখান থেকে বেরিয়ে এল রাশি রাশি সোনা-রুপোর গয়না (Ornament)! রাজ্যের জানগাঁ জেলার পেমভারতী গ্রামের এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

ঠিক কী ঘটেছিল? নরসিমহা নামের জনৈক জমি ব্যবসায়ী হায়দরাবাদের বাসিন্দা। পেমভারতী গ্রামে তাঁর ১১ একর জমি রয়েছে। সেখানে বাড়িঘর বানানোর জন্যই খোঁড়াখুঁড়ি শুরু করেন তিনি। এরপরই ঘটে যায় ‘ম্যাজিক’! তিনি অবাক হয়ে দেখেন মাটির গভীরে তামার পাত্রে থরে থরে সাজানো রয়েছে গয়নাগাঁটি।
জানা গিয়েছে, মাটির প্রায় ২ ফুট গভীরে তামার পাত্রটির মধ্যে রাখা ছিল ১৮৯.৮২০ গ্রাম সোনা ও ১.৭২৭ গ্রাম রুপো। সব মিলিয়ে ২২টি সোনার (Gold) দুল, ৫১টি সোনার মালা, ১১টি সোনার মঙ্গলসূত্র, ২৬টি রুপোর লাঠি, ৫টি রুপোর হার ইত্যাদি। এরই পাশাপাশি মিলেছে কিছু পরিমাণ চুনিও। মাটি খুঁড়ে ওই পরিমাণ ধনদৌলত আবিষ্কার করার পরই নরসিমহা যোগাযোগ করেন স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে। আপাতত সমস্তটাই জমা রাখা হয়েছে জেলার কালেক্টরের অফিসে।

[আরও পড়ুন: টিকা নেওয়ার পরও মৃত্যু ১৮০ জনের! বিরূপ প্রতিক্রিয়ায় বিশেষ নজর কেন্দ্রের]

জানগাঁর সহকারী প্রিসাইডিং অফিসার রাজেন্দ্র প্রসাদ সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলার সময় বলেন, ”ঘটনার কথা জানতে পারার পরই আমরা ঘটনাস্থল থেকে গয়নাগুলি উদ্ধার করে কালেক্টরের কাছে পাঠিয়ে দিই। পরবর্তী নির্দেশ না পাওয়া পর্যন্ত ওই জমিতে আর কোনও খননকার্য না চালানোর জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে জমির মালিককে।”

কত পুরনো উদ্ধার হওয়া গয়নাগুলি? অনুমান, সেগুলি সম্ভবত প্রাচীন কাকতীয় রাজবংশের সমকালীন। ওই জমিতে ফের খননকার্য চালানোর সম্ভাবনা রয়েছে বলেই মনে করা হচ্ছে। আরও গয়নাগাটি উদ্ধার হয় কিনা সেদিকেই তাকিয়ে স্থানীয় জনতা।

[আরও পড়ুন: ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ নেওয়ার একমাস পর করোনা আক্রান্ত RSS প্রধান মোহন ভাগবত]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement