BREAKING NEWS

৮ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৬ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‌ভারতের মাটি ছুঁল আরও তিনটি রাফালে যুদ্ধবিমান, চিন্তার ভাঁজ শত্রুদের কপালে

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: November 4, 2020 9:36 pm|    Updated: November 4, 2020 9:36 pm

An Images

ফাইল ছবি

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:‌ আরও শক্তিশালী হল ভারতীয় বায়ুসেনা। একদিকে যখন চিন–পাকিস্তান দু’‌দেশই সমানে সীমান্তে উত্তেজনা ছড়াচ্ছে, ঠিক তখনই ভারতের হাতে চলে এল রাফালের (Rafale) দ্বিতীয় ব্যাচও। বুধবার রাত ৮টা ১৪ মিনিটে গুজরাটের (Gujrat) জামনগর এয়ারবেসে পৌঁছায় তিনটি মাল্টিরোল কমব্যাট রাফালে যুদ্ধবিমান। ভারতীয় বায়ুসেনাকে উদ্ধৃত করে একথা জানিয়েছে সংবাদসংস্থা ANI।

জানা গিয়েছে, এদিন সকালে ফরাসি এয়ারবেস থেকে উড়ে কোথাও না থেমে আট ঘণ্টা উড়ানের পর জামনগরে পৌঁছায় পঞ্চম জেনারেশনের এই যুদ্ধবিমান। মাঝে তিনবার মাঝ আকাশেই তেল ভরা হয় যুদ্ধবিমানগুলোতে। এমনটাই জানানো হয়েছে ভারতীয় বায়ুসেনার তরফ থেকে। তবে যুদ্ধবিমানগুলোকে জামনগর এয়ারবেসে রাখা হবে না। বায়ুসেনার এক আধিকারিক আগেই জানিয়েছিলেন, একদিন থাকার পর এই তিনটি রাফালে যুদ্ধবিমান উড়ে যাবে আম্বালা এয়ারবেসেই। সেখানেই রয়েছে আগের পাঁচটি রাফালে যুদ্ধবিমান। নয়া রাফালেগুলোকেও অন্তর্ভুক্ত করা হবে গোল্ডেন অ্যারোজ বিভাগে।

 

[আরও পড়ুন: মধ্যপ্রদেশে ২০০ ফুট গভীর কুয়োয় শিশু! কান্নার আওয়াজ ঘিরে উৎকণ্ঠা, ঘটনাস্থলে সেনা]

এরপর জানুযারিতে তিনটি, ফেব্রুয়ারিতে পাঁচটি ও মার্চে সাতটি যুদ্ধবিমান পৌঁছে যাবে হরিয়ানার আম্বালা বিমানঘাঁটিতে। অন্তর্ভুক্ত করা হবে গোল্ডেন অ্যারোজ বিভাগে। ইতিমধ্যে এই যুদ্ধবিমানগুলি ওড়ানোর প্রশিক্ষণ নিতে বায়ুসেনার পাইলটরা উড়ে গিয়েছেন ফ্রান্সে। সেখানে মাঝ আকাশে যুদ্ধবিমানে জ্বালানি ভরা-সহ একাধিক কারিগরি বিদ্যার প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে।
২০১৬ সালের চুক্তি অনুযায়ী ফ্রান্স থেকে মোট ৩৬টি রাফালে যুদ্ধবিমান কেনার কথা ভারতের। ২০২২ সালের সেপ্টেম্বরের মধ্যে সবগুলি বিমান ভারতে এসে পৌঁছনোর কথা। ভারতীয় বায়ুসেনার (Indian Air Force) দু’টি রাফালে স্কোয়াড্রনের মধ্যে প্রথমটি থাকবে হরিয়ানার (Haryana) আম্বালায় (Ambala) ও দ্বিতীয়টি থাকবে আলিপুরদুয়ারের হাসিমারা বায়ুসেনা ঘাঁটিতে।

চতুর্থ প্রজন্মের ‘মিডিয়াম মাল্টি রোল কমব্যাট এয়ারক্র্যাফট’ রাফালে রয়েছে ‘ম্যাটিওর’ বিয়ন্ড ভিস্যুয়াল রেঞ্জ এয়ার-টু-এয়ার ক্ষেপণাস্ত্র, ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র ‘স্কাল্প’ এবং ‘হ্যামার’ (হাইলি অ্যাজাইল অ্যান্ড ম্যানুভারেবল মিউনিশন এক্সটেন্ডেড রেঞ্জ) ক্ষেপণাস্ত্র। আকাশে উড়তে উড়তেই জ্বালানি ভরে নিতেও দক্ষ রাফালে।

[আরও পড়ুন: লন্ডনগামী এয়ার ইন্ডিয়ার ফ্লাইট বোমা মেরে ওড়ানোর হুমকি, ফোন দিল্লি বিমানবন্দরে]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement