BREAKING NEWS

১০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  শনিবার ২৭ নভেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

৫টি ট্রেনে জামাত সদস্যদের সংস্পর্শে থাকা যাত্রীদের খোঁজে রেল, চলছে জোর তল্লাশি

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: April 1, 2020 5:03 pm|    Updated: April 1, 2020 5:03 pm

Thousand of passangers are being traced for mosqe event

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নিজামুদ্দিনের ধর্মীয় অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার পর অংশগ্রহণকারীরা যে ৫টি ট্রেনে সফর করেছিলেন সেই পাঁচটি ট্রেনের সন্ধান পাওয়া গিয়েছে। সেই ট্রেনগুলিতে থাকা বাকি যাত্রীদের খোঁজ চালাচ্ছে রেল কর্তৃপক্ষ। ইতিমধ্যেই তবলিঘি জামাতের কয়েকজন সদস্যের শরীরে করোনার নমুনা পাওয়া গিয়েছে।

নিজামুদ্দিনের ধর্মীয় অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারীরা ১৩ মার্চ থেকে ১৯ মার্চের মধ্যে যে পাঁচটি ট্রেনে ছিলেন সেগুলি হল দিল্লি-গুন্টুর দুরন্ত এক্সপ্রেস, গ্র্যান্ড ট্রাঙ্ক এক্সপ্রেস চেন্নাই, তামিলনাড়ু এক্সপ্রেস-চেন্নাই, নিউ দিল্লি-রাঁচি রাজধানী এক্সপ্রেস, সম্পর্কক্রান্তি এক্সপ্রেস। এই পাঁচটি ট্রেনে থাকা তবলিঘি জামাতের সদস্যদের সংস্পর্শে ট্রেনের কতজন যাত্রী ছিলেন তা এখনও স্পষ্ট করে জানা যায়নি রেলের তরফ থেকে। আপাত দৃষ্টিতে রেল জানায়, প্রতিটি ট্রেনে গড়ে হাজার থেকে বারোশো যাত্রী ছিলেন। তবে এই সকল যাত্রীদের খুঁজে বের করতে রেল কর্তৃপক্ষ জেলা আধিকারিকদের সেই ট্রেনের তালিকা দিয়ে দেবেন। যাতে নির্দিষ্টভাবে যাত্রীদের চিহ্নিত করা যায়।

তবে খড়ের গাদায় সূচ খোঁজার এই প্রক্রিয়ায় এখনও পর্যন্ত ১০ ইন্দোনেশিয়ানকে পাওয়া গিয়েছে। তাঁরা করিমনগর জেলার বাসিন্দা, ১৩ মার্চ আপ সম্পর্ক ক্রান্তি এক্সপ্রেস যাত্রা করেছিলেন। তাঁদের শরীরেও মারণ ভাইরাসের সন্ধান পাওয়া যায়। নিউ দিল্লি-রাঁচি রাজধানী এক্সপ্রেসের বি-ওয়ান কোচের ৬০ জন যাত্রীদের মধ্যে একজন মালয়েশিয়ান মহিলার শরীরে করোনার নমুনা পাওয়া গিয়েছে। অনুমান করা হচ্ছে, ওই মহিলা জামাতের সদস্যদের সংস্পর্শে ছিলেন। সেখান থেকেই তিনি সংক্রমিত হন। ১৬ মার্চ এই ট্রেনগুলির একটিতে যাত্রা করেছিলেন ঝাড়খণ্ডের এক মহিলা যাত্রী। নিজামুদ্দিনের ধর্মীয় অনুষ্ঠানে যোগদানকারী যে ২৩ জনের শরীরে করোনা পাওয়া যায় তাঁদের সঙ্গেই ওই মহিলা যাত্রা করছিলেন বলে অনুমান সকলের।

[আরও পড়ুন: শিক্ষা হয়নি চিনের, করোনার প্রকোপ কমতেই শুরু কুকুর-বাদুড়ের মাংস খাওয়া!]

এই পাঁচটি ট্রেনের বাকি যে সকল যাত্রীদের খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না তাঁদের চিহ্নিত করতে ও আক্রান্ত হওয়ার আগেই কোয়ারেন্টাইনে পাঠাতে জেলাশাসক ও রেল কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে চলছে তল্লাশি। তবে সেই কাজটা যে মোটেই সহজ নয় তা প্রথম থেকেই হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছে কর্তৃপক্ষ। তার মধ্যে হজরত নিজামুদ্দিন ও নিউ দিল্লি রেল স্টেশন হল অত্যন্ত ব্যস্ত দুটি স্টেশন। প্রতিদিন এই স্টেশনগুলির উপর দিয়ে অগণিত ট্রেন চলাচল করে।

[আরও পড়ুন: লকডাউনের সময়ে ভিড় মিষ্টির দোকানে, ক্রেতা সামলাতে নাজেহাল ব্যবসায়ীরা]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে