Advertisement
Advertisement
Agneepath

অগ্নিপথ নিয়ে দিল্লিতে সরব তৃণমূল, প্রতিরক্ষা বিষয়ক সংসদীয় কমিটির বৈঠকে প্রকল্প বাতিলের দাবি

কোনওরকম আলাপ আলোচনা ছাড়াই এই প্রকল্প চালু হয়েছে, দাবি তৃণমূলের।

TMC objects to Agneepath project in Parliamentary committees meet | Sangbad Pratidin
Published by: Subhajit Mandal
  • Posted:July 11, 2022 4:57 pm
  • Updated:July 11, 2022 4:57 pm

বুদ্ধদেব সেনগুপ্ত, নয়াদিল্লি: বিরোধী দলগুলির সঙ্গে আলোচনা না করেই অগ্নিপথের (Agneepath) মতো প্রকল্প এনেছে সরকার। যার জেরে দেশজুড়ে বিক্ষোভের পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। অবিলম্বে এই প্রকল্প প্রত্যাহারের দাবিতে প্রতিরক্ষা বিষয়ক সংসদীয় কমিটিতে সরব হলেন তৃণমূল সাংসদরা।

অগ্নিপথ প্রকল্প নিয়ে তোলপাড় দেশ। বিরোধিতায় তৃণমূল-সহ সিংহভাগ অবিজেপি দল। তারপরেও প্রকল্প বাস্তবায়নে মরিয়া কেন্দ্র। এই প্রকল্প সম্পর্কে বিরোধীদের মতামত নিতে সোমবার বৈঠক করে প্রতিরক্ষা বিষয়ক উপদেষ্টা কমিটি। উপস্থিত ছিলেন সংশ্লিষ্ট মন্ত্রকের মন্ত্রী রাজনাথ সিং (Rajnath Singh)। তৃণমূলের তরফে বৈঠকে ছিলেন সংসদীয় দলের নেতা সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় (Sudip Banerjee)। বৈঠকে প্রকল্পের তীব্র বিরোধিতা করে তৃণমূল।

Advertisement

[আরও পড়ুন: ৪ মাসের জেল, ২ হাজার টাকা জরিমানা! বিজয় মালিয়াকে সাজা শোনাল সুপ্রিম কোর্ট]

বৈঠক শেষে তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় (Sougata Roy) জানিয়েছেন, “আমরা বৈঠকে এই প্রকল্পের তীব্র বিরোধিতা করেছি। আমাদের পাশাপাশি কংগ্রেস (Congress) এবং এনসিপি (NCP) সাংসদরাও প্রকল্পের বিরোধিতা করেছে। বৈঠক শেষে একটা স্মারকলিপি জমা দিয়েছি। আমাদের দাবি, এই প্রকল্পটি আলোচনার জন্য সংসদের স্ট্যান্ডিং কমিটিতে পাঠাতে হবে। ততদিন পর্যন্ত প্রকল্প বাতিল করা হোক।” সৌগতর দাবি, “এত বেকার যুবক যদি চার বছর বাদে রাস্তায় ঘোরে তাহলে দেশের আইনশৃঙ্খলা প্রশ্নের মুখে পড়বে। সরকার যে বলছে মাত্র ৩ হাজার পদের জন্য ৭ লক্ষ আবেদন জমা পড়েছে, সেটা এই প্রকল্পের জন্য নয়। সেটা দেশের বেকারির জন্য।” যদিও সৌগত জানিয়েছেন, প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং এ নিয়ে এখনও কোনওরকম মন্তব্য করেননি।

Advertisement

[আরও পড়ুন: আগামী বছরই জনসংখ্যার নিরিখে চিনকে টপকে যাবে ভারত, দাবি রাষ্ট্রসংঘের রিপোর্টে]

অগ্নিপথ প্রকল্প ঘোষণার পরেই দেশজুড়ে তীব্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়। প্রায় প্রতিটি রাজ্যেই কেন্দ্র বিরোধী ব্যাপক হিংসাত্মক আন্দোলন গড়ে ওঠে। ভাঙচুর হয় সরকারি সম্পত্তি। মূলত বেকার যুবকরা আন্দোলনে অংশ নেওয়ায় কেন্দ্র চাপে পড়ে গিয়েছে বলেই মনে করছে বিরোধীরা। চলতি মাসের ১৮ তারিখ থেকে বসবে সংসদের বর্ষাকালীন অধিবেশন। সেখানে বিরোধীরা অগ্নিপথ নিয়ে সরব হবে বলে অনুমান করেই আগেভাগে তাঁদের সঙ্গে কেন্দ্র কথা বলে নিল বলে মনে করা হচ্ছে।

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ