BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

সংক্রমণ বৃদ্ধির জের, তামিলনাড়ুর ৪ জেলায় ফের জারি কড়া লকডাউন

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: June 15, 2020 4:46 pm|    Updated: June 15, 2020 5:00 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চার পর্বের লকডাউনের পরও নিয়ন্ত্রণে আসেনি করোনা সংক্রমণ। উলটে প্রতিদিন রেকর্ড হারে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। এরই মধ্যে মঙ্গল ও বুধবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে বৈঠক করতে চলেছেন। যে বৈঠক ঘিরে এখন দেশজুড়ে একটাই জল্পনা, তবে কি সংক্রমণের গতি কমাতে ফের কড়া লকডাউনের পথে হাঁটবে কেন্দ্র? সেই জল্পনা আরও বাড়িয়ে দিল তামিলনাড়ু (Tamil Nadu) সরকার। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির (Narendra Modi) ডাকা বৈঠকে যোগ দেওয়ার আগেই রাজ্যের চার জেলায় ফের কড়া লকডাউন জারি করলেন সেরাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী কে পালানিস্বামী।

দিন তিনেক আগেই মুখ্যমন্ত্রী পালানিস্বামী (E. K. Palaniswami) ঘোষণা করেছিলেন, তামিলনাড়ুতে নতুন করে কড়া লকডাউন জারি করা হবে না। কিন্তু সংক্রমণের গতি দেখে তিনি অবস্থান বদলাতে বাধ্য হলেন। নতুন করে কড়া লকডাউন জারি করা হচ্ছে তামিলনাড়ুর চার জেলায়। এই জেলাগুলি হল রাজধানী চেন্নাই (Chennai), কাঞ্চিপুরম, থিরুভাল্লুর এবং চেঙ্গালপেট। এই জেলাগুলিতে আগামী ১৯ জুন থেকে জরুরি পরিষেবা ছাড়া কোনও কারণে বাইরে বেরনো যাবে না। আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত চলবে এই কড়া লকডাউন। এই ক’দিন শুধুমাত্র সকাল ৬টা থেকে দুপুর দুটো পর্যন্ত সবজি, মাছ-মাংস, মুদিখানা এবং মোবাইলের দোকান খোলা থাকবে। বাদবাকি সব দোকানপাট বন্ধ। অটো, ট্যাক্সি, বাস শুধুমাত্র জরুরি পরিষেবা দেবে। এমনকি ব্যক্তিগত গাড়ি বা বাইক বা স্কুটারে চেপেও বাড়ি থেকে ২ কিলোমিটারের বেশি যাওয়া যাবে না।

[আরও পড়ুন: ‘নেপাল ও ভারতের সম্পর্ক অবিচ্ছেদ্য, আলোচনাতেই ভুল বোঝাবুঝির অবসান হবে’, বলছেন রাজনাথ]

উল্লেখ্য, মোট করোনা সংক্রমণের নিরিখে এখন দেশের মধ্যে দ্বিতীয় স্থানে তামিলনাড়ু। এখনও পর্যন্ত রাজ্যে সাড়ে ৪৪ হাজারেরও বেশি মানুষ আক্রান্ত। সম্প্রতি, মুখ্যমন্ত্রী ই কে পালানিস্বামী রাজ্যজুড়ে কড়া লকডাউন জারির সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে বহু গুজবও ছড়িয়েছে চেন্নাইয়ে। কিন্তু গত শুক্রবার পালানিস্বামী নিজে জানিয়ে দেন, তাঁর নামে ভুয়ো খবর ছড়ানো হচ্ছে। রাজ্যে লকডাউন হবে না। যারা গুজব ছড়াচ্ছে তাঁদের শাস্তি দেওয়া হবে। আবার তিনিই সংক্রমণ বৃদ্ধির জেরে লকডাউন জারি করতে বাধ্য হলেন।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement