ad
ad
জাফরাবাদে আন্দোলন

জাফরাবাদে আন্দোলনের জেরে বন্ধ একাধিক রাস্তা, যানজটে নাকাল দিল্লিবাসী

দ্বিতীয় দিনেও মউজপুরে সংঘর্ষ অব্যাহত।

Traffic snarls in Delhi’s Jafrabad, Khureji due to CAA-NRC protest
Published by: Paramita Paul
  • Posted:February 24, 2020 12:58 pm
  • Updated:February 24, 2020 1:05 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শাহিনবাগের পর এবার জাফরাবাদের আন্দোলনের জেরে যানজটে জেরবার দিল্লিবাসী। শনিবার রাত থেকে দিল্লির জাফরাবাদ, চাঁদবাদ ও মউজপুরে বিক্ষোভে বসেছেন CAA’র বিরোধীরা। রবিবার মউজপুরে CAA বিরোধী ও সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষও বাধে। ছয় পুলিশ কর্মী-সহ জখম হন মোট ১৫ জন। সোমবারও সেই সংঘর্ষ অব্যাহত রয়েছে। এদিকে এই আন্দোলনের জেরে উত্তর-পূর্ব দিল্লিতে রবিবার প্রায় আট ঘণ্টা যানজটের মুখে পড়েছিলেন দিল্লিবাসী। সপ্তাহের শুরুতে, সোমবারও একই পরিস্থিতির শিকার হয়েছেন দিল্লির সাধারণ মানুষ। বন্ধ রয়েছে একাধিক রাস্তা। এমনকী বেশ কয়েকটি মেট্রো স্টেশনের প্রবেশ পথ বন্ধ করে রাখা রয়েছে। ফলে ব্যাপক হ্য়রানির শিকার নিত্যযাত্রীরা। পুলিশ রাস্তা খালি করার চেষ্টা চালালেও বিশেষ লাভ হয়নি।

এদিকে সোমবারও মউজপুরে CAA সমর্থক ও বিরোধীদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। ফের এক গোষ্ঠি অপর গোষ্ঠিকে লক্ষ্য করে পাথর ছুঁড়তে থাকে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে এদিনও কাঁদানে গ্যাস ছোড়ে। বাবরপুর ও জাফরাবাদ স্টেশনে মেট্রো দাঁড়চ্ছে না বলে খবর। এদিকে আলিগড়েও CAA বিরোধী আন্দোলব ঘিরে পরিস্থিতি উত্তপ্ত রয়েছে। সূত্রের খবর, রবিবার বিকেলের উত্তেজনার মধ্যে গুলি চালায় এক দুষ্কৃতী। জখম হন এক আন্দোলনকারী। এদিকে পুলিশকে লক্ষ্য করে পাথর ছোঁড়া হয় বলে অভিযোগ। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে ২৪ ঘণ্টার জন্য ইন্টারনেট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

[আরও পড়ুন : পাকিস্তান জিন্দাবাদ স্লোগান দিলেই গুলি চালানো হোক, নয়া আইনের দাবি কর্ণাটকের মন্ত্রীর]

রবিবার জাফরাবাদ সংলগ্ন মউজপুরে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। দু’টি গোষ্ঠী একে অপরে লক্ষ্য করে ইঁট ছুঁড়তে থাকে। এমনকী আশপাশের ছাদ থেকেও ইট ছোঁড়া হয়। পরিস্থিতি সামাল দিতে কাঁদানে গ্যাস ছোঁড়ে পুলিশও। সন্ধে পর্যন্ত এলাকায় বিশাল পুলিশবাহিনী মোতায়েন করা রয়েছে। হাজির রয়েছেন পুলিশের উচ্চপদস্থ কর্তারা। অশান্তির জেরে মউজপুর ও বাবরপুরের মেট্রো স্টেশনের প্রবেশপথ বন্ধ করে দেওয়া হয়।

[আরও পড়ুন : পাকিস্তান জিন্দাবাদ স্লোগান দিলেই গুলি চালানো হোক, নয়া আইনের দাবি কর্ণাটকের মন্ত্রীর]

দিল্লির মউজপুরের কাছে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন বিরোধী একটি মিছিল আটকে দেয় পুলিশ। আন্দোলনকারীদের সঙ্গে পুলিশের বচসা বেঁধে যায়। এদিকে রাস্তা ফাঁকা করতে হাজির হয় বিজেপি অনুগামীরা। তাঁদের সঙ্গে আন্দোলনকারীদের বচসা বাঁধে। দুপক্ষের মধ্যে ইট ছোঁড়াছুড়ি শুরু হয়। পরিস্থিতি সামাল দিয়ে কাঁদানে গ্যাস ছোঁড়ে পুলিশও। উত্তেজনার জেরে দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায়। এদিকে সোমবার বিকেলেই দিল্লিতে আসছেন মার্কিব প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও তাঁর পরিবার। তার আগে এই অশান্তি যে মোদি প্রশাসনকে চাপে রাখবে তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

 

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ