১৪  আষাঢ়  ১৪২৯  বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

দু’দিন পর গভীর নলকূপ থেকে উদ্ধার ১৮ মাসের শিশু

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: March 22, 2019 7:29 pm|    Updated: March 22, 2019 7:29 pm

Toddler successfully rescued from a borewell at Balsamand village In Hisar.

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ৪৮ ঘণ্টা পর জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী, জেলা প্রশাসন ও সেনা জওয়ানদের অক্লান্ত চেষ্টায় ৬০ ফুট গভীর নলকূপ থেকে উদ্ধার হল ১৮ মাসের শিশু। গত বুধবার বিকেল পাঁচটা নাগাদ পা পিছলে ওই নলকূপটির মধ্যে পড়ে গিয়েছিল হরিয়ানার হিসার জেলার বালসমন্দ গ্রামের নাদিম খান। শুক্রবার সন্ধ্যায় তাকে সেখান থেকে উদ্ধার করলেন উদ্ধারকারী দলের সদস্যরা।

খবরটি ছড়িয়ে পড়ার পরে তাকে উদ্ধার করার জন্য বুধবার রাতেই ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন এনডিআরএফ, সেনা ও জেলা প্রশাসনের প্রায় ১০০ জন কর্মী। তাঁরা এসেই প্রথমে একটি নাইট ভিশন ক্যামেরা ফেলে দেন ওই নলকূপটির ভিতরে। পাশাপাশি দু’ফুট বাই দু’ফুটের একটি টানেল তৈরি করে ওই নলকূপের মধ্যে অক্সিজেন পাঠানোর বন্দোবস্তও করা হয়েছিল। নাইট ভিশন ক্যামেরায় দেখা যায় ভিতরে ঘুমোচ্ছে নাদিম। এরপর উদ্ধারকারী দলের তরফে তাকে উদ্ধার করার জন্য একটি জাল ফেলে দেওয়া হয় নলকূপের ভিতরে।

borewell in Hisar

কিন্তু, নলকূপের ভিতর থেকে চার থেকে পাঁচ ফুট উপরে তোলার পরেই আটকে পড়ে শিশুটি। বাধ্য সেই পরিকল্পনা বাতিল করতে হয় উদ্ধারকারী দলকে। তারপর থেকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত তার শারীরিক অবস্থার কোনও খবর পাওয়া যাচ্ছিল না। যদিও তার ফলে প্রভাব পড়েনি উদ্ধারকার্যে। তারই ফল মিলল শুক্রবার বিকেলে। ৬০ ফুট গভীরতার ওই নলকূপ থেকে নাদিম বার করে আনতে সফল হলেন উদ্ধারকারী দলের সদস্যরা। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, দু’সপ্তাহ আগে একটি টিউবওয়েল তৈরির জন্য ওই নলকূপটি খুঁড়ে ছিলেন স্থানীয় এক কৃষক।

[বন্ধুর মৃত্যুর প্রতিবাদ, জেহাদে নেমে হাতে বন্দুক তুলল কাশ্মীরের যুবক]

কয়েক বছর আগে উত্তরপ্রদেশের কুরুক্ষেত্র জেলার একটি গ্রামে এভাবেই গভীর নলকূপের মধ্যে পড়ে গিয়েছিল পাঁচ বছরের প্রিন্স। তারপর যুদ্ধকালীন তৎপরতায় প্রায় ৪৮ ঘণ্টা পর তাকে উদ্ধার করা হয়। দুটি ক্ষেত্রেই গভীর নলকূপ তৈরি করার পর তার উপরে কোনও ঢাকা দেওয়া হয়নি বলেই এই ধরনের বিপদ ঘটেছে।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে