১৩ মাঘ  ১৪২৯  শনিবার ২৮ জানুয়ারি ২০২৩ 

READ IN APP

Advertisement

বিজেপির ইশারায় কাজ নির্বাচন কমিশনের! সাকেতের দ্বিতীয়বার গ্রেপ্তারি নিয়ে সরব অভিষেক

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: December 9, 2022 1:32 pm|    Updated: December 9, 2022 1:44 pm

Trinamool's stooge charge against Poll Body over leader's arrest | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: তিনদিনের ব্যবধানে দু’বার গুজরাট পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার দলের জাতীয় মুখপাত্র। তাও এমন একটা সময়, যখন সেরাজ্যে আদর্শ নির্বাচনী আচরণ বিধি কার্যকর হয়ে আছে। অর্থাৎ পুলিশ প্রশাসনের নিয়ন্ত্রণের ভার রয়েছে নির্বাচন কমিশনের (Election Commission) হাতে। স্বাভাবিকভাবেই ক্ষোভে ফুঁসছে তৃণমূল কংগ্রেস। খোদ দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় (Abhishek Banerjee) টুইট করে কমিশনের ভূমিকা নিয়ে সরব হলেন। তাঁর অভিযোগ, নির্বাচন কমিশন বিজেপির কাছে বিকিয়ে গিয়েছে।

জামিন পাওয়ার পরও তৃণমূলের জাতীয় মুখপাত্র সাকেত গোখলেকে বৃহস্পতিবার রাতে ফের গ্রেপ্তার করেছে আহমেদাবাদ পুলিশ (Ahamedabad Police)।কোনও নোটিশ বা ওয়ারেন্ট ছাড়াই তাঁকে মোরবি সেতু ভঙ্গ নিয়ে টুইট করার দায়ে দ্বিতীয়বার গ্রেপ্তার করে গুজরাট পুলিশ। প্রথম দফায় সোমবার মধ্যরাতে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল তৃণমূলের জাতীয় স্তরের মুখপাত্রকে। সেই মামলায় বৃহস্পতিবার দুপুরেই কোর্টে জামিন পান তিনি। রাতে মুক্তি পাওয়ার পর তিনি যখন আহমেদাবাদ সাইবার ক্রাইম থানা থেকে বেরোন, তখন ফের তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয় অন্য একটি মামলা দেখিয়ে। তাতেই ক্ষুব্ধ তৃণমূল।

[আরও পড়ুন: কেজরির ‘নরম হিন্দুত্বে’ অখুশি, কংগ্রেসকে ভোট দিল্লির দাঙ্গা অধ্যুষিত এলাকার মুসলিমদের]

খোদ দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় (Abhishek Banerjee) টুইট করে বলে দেন,”গুজরাট পুলিশ তিনদিনের ব্যবধানে দু’বার সাকেত গোখলেকে গ্রেপ্তার করল। তাও আবার সেসময় যখন আদর্শ নির্বাচন বিধি চলছে। নির্বাচন কমিশন পুরোপুরি আত্মসমর্পণ করে ফেলেছে। ধারাবাহিকভাবে বিজেপির অধীনে কাজ করছে। দেশের গণতন্ত্র ঘোর বিপদে।” অভিষেকের আগেই নির্বাচন কমিশনকে কাঠগড়ায় তুলে আক্রমণের সুর বেঁধে দিয়েছিলেন ডেরেক ও’ব্রায়েন। তিনি বলেন, “বিজেপির এক মুখ্যমন্ত্রী, একজন অভিনেতা কাম নেতা ধারাবাহিকভাবে ধর্মীয় বিদ্বেষ ছড়িয়ে যাচ্ছেন, কমিশন মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে। অথচ তৃণমূলের মুখপাত্র যখন একটি মামলায় জামিন পেয়ে বিমানবন্দরে যাচ্ছিলেন, তখনই তাঁকে কমিশন গ্রেপ্তার করাচ্ছে। এই জন্যই কমিশনকে দালাল ভাবে সুপ্রিম কোর্ট।”

[আরও পড়ুন: এখনও অর্থ বরাদ্দ করেনি কেন্দ্র! প্রশ্নের মুখে ঘাটাল মাস্টার প্ল্যানের ভবিষ্যৎ]

সাকেতের গ্রেপ্তারি যে সহজে মেনে নেওয়া হবে না, সেটা আগেই স্পষ্ট করে দিয়েছে ঘাসফুল শিবির। শুক্রবার সকালেই মোরবি পৌঁছে গিয়েছে তৃণমূল সাংসদদের একটি প্রতিনিধি দল। সাংসদদের প্রতিনিধি দলে রয়েছেন রাজ্যসভার সাংসদ দোলা সেন এবং ডাঃ শান্তনু সেন। লোকসভার তিন সাংসদকেও পাঠানো হয়েছে গুজরাটে। তাঁরা হলেন খলিলুর রহমান, অসিত কুমার মাল এবং সুনীল মণ্ডল। এরপর নির্বাচন কমিশনেও দলের সাংসদদের একটি প্রতিনিধিদল যাবে বলে দলীয় সূত্রের খবর। 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে