৪ মাঘ  ১৪২৫  শনিবার ১৯ জানুয়ারি ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফিরে দেখা ২০১৮ ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কাশ্মীরের রাজৌরি জেলার নৌসেরা সেক্টরে সীমান্তে টহলদারির সময় আইইডি বিস্ফোরণ। শহিদ আর্মি মেজর-সহ মোট দুই জওয়ান। স্থানীয় সূত্রে খবর, নৌসেরার লাম সীমান্তে চেকপোস্টের আশপাশে আইইডি ইনস্টল করে জঙ্গিরা। সেখান থেকেই হয় বিস্ফোরণ। দু’জনকেই গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু বাঁচানো সম্ভব হয়নি।

ভারতীয় সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, শুক্রবার আইইডি বিস্ফোরণে দুই জওয়ান শহিদ হয়েছেন। এদের মধ্যে একজন মেজর পদে ছিলেন। বিস্ফোরণের পর তাঁদের দ্রুত উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলেও বাঁচানো যায়নি। এদিন কাশ্মীরের শ্রীনগরের লালচকে আরও একটি জঙ্গিহানা হয়। এই হামলায় কোনও প্রাণহানির খবর পাওয়া যায়নি। এর আগে রাজৌরি সীমান্তে আইইডি বিস্ফোরণে আহত হন জুনিয়র কমিশনড অফিসার ও এক জওয়ান। কিছু জঙ্গি সংগঠনের উপর এই হামলার সন্দেহ করা হচ্ছে। তবে কোনও সংগঠনের নাম বলেনি সেনা। তবে মনে করা হচ্ছে পাকিস্তান সেনার বর্ডার অ্যাকশন টিম বা ব্যাট এই বিস্ফোরণের নেপথ্যে আছে। এর আগেও নিয়ন্ত্রণরেখায় টহলদারির সময় আইইডি বিস্ফোরণের ঘটনায় মদত দেয় পাকিস্তানি সেনার এই টিম।

[রাফালে জটের সমাধানে আট বছরের খুদে! নেটদুনিয়ায় ভাইরাল ভিডিও]

রাজৌরি ও পুঞ্চ সেক্টরে টানা চারদিন ধরে যুদ্ধবিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করে গুলি চালিয়েছে পাকিস্তানের সেনা। এদিন পাকিস্তান সেনার গুলিতে গুরুতর আহত হয়েছেন একজন আর্মি পোর্টার। বৃহস্পতিবার রাতে ভারতের পক্ষ থেকে কড়া জবাব দেওয়া হয়েছিল পাকিস্তানকে। এছাড়াও বালাকোটে সেক্টরের তারকুন্ডি ফরোয়ার্ড এলাকায় পাকিস্তানের ছোঁড়া শেলে আহত হন দুই জওয়ান। দুজনকেই মিলিটারি হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে। বর্তমানে তাঁদের পরিস্থিতি স্বাভাবিক। এখনও পর্যন্ত পাকিস্তানকে এই হামলার কোনও জবাব দেয়নি ভারত। তবে সীমান্তে পরিস্থিতি এখন থমথমে। যে কোনও মুহূর্তে হামলা চালানোর জন্য মুখিয়ে আছে পাকিস্তান। পরিস্থিতি বুঝে তবেই কোনও পদক্ষেপ নিতে চায় ভারতীয় সেনা।

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং