BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বেকারত্ব হারে দেশের সর্বোচ্চ স্থানে ত্রিপুরা, সমীক্ষায় চাপে বিপ্লব

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: April 22, 2019 10:26 am|    Updated: April 22, 2019 10:33 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গেরুয়া ঝড়ে ত্রিপুরায় ধসে গিয়েছিল বাম দুর্গ৷ মানিক সরকারের দুর্গের পতন ঘটিয়ে মসনদে বসেছিলেন বিপ্লব দেব৷ বিজেপি সরকার ক্ষমতায় আসার পর বছর না ঘুরতেই ত্রিপুরায় বইছে উলটো হাওয়া৷ উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি দিয়ে জনমত নিজেদের পক্ষে আনতে সক্ষম হলেও, কর্মসংস্থান তৈরি করতে ব্যর্থ হয়েছে সরকার৷ সদ্য হওয়া এক সমীক্ষায় জানা গিয়েছে দেশে বেকারত্ব হার সবথেকে বেশি ত্রিপুরায়৷      

আগামিকাল অর্থাৎ ২৩ এপ্রিল পূর্ব-ত্রিপুরা আসনে ভোটগ্রহণ৷ তার আগেই এই সমীক্ষা প্রকাশ্যে আসায় বেশ কিছুটা চাপে পড়েছে রাজ্যের শাসকদল৷  সদ্য রাজ্যে কর্মসংস্থান নিয়ে একটি সমীক্ষা চালায় ‘সেন্টার ফর মনিটরিং ইন্ডিয়ান ইকোনমি’ বা সিএমআইই৷  তারপরই একটি রিপোর্ট প্রকাশ করে সংস্থাটি৷  সেখানেই উঠে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য৷  জানা গিয়েছে, ফেব্রুয়ারি ২০১৯ পর্যন্ত ত্রিপুরায় বেকারত্ব হার ২৬.১ শতাংশ, যা দেশের মধ্যে সর্বোচ্চ৷  ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে বেকারত্ব হার ছিল ৩০ শতাংশ৷ অঙ্কের হিসেবে মাত্র ৪ শতাংশ হার কমে যাওয়া প্রায় কিছুই নয়৷ তাই সমীক্ষায় স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে, কর্মসংস্থান তৈরি করতে ব্যর্থ হয়েছে মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের সরকার৷  

[ আরও পড়ুন: রাহুলের নির্দেশ পেলেই বারাণসীতে লড়বেন, জানিয়ে দিলেন প্রিয়াঙ্কা]

 

উল্লেখ্য, সম্প্রতি রাজ্যে আমলা ও পুলিশকর্মীদের নিয়োগ প্রক্রিয়া বাতিল করে দেয় রাজ্য সরকার৷  তারপরই উঠছে প্রশ্ন৷  ত্রিপুরা হাই কোর্টের তত্বাবধানে চলা ওই নিয়োগ প্রক্রিয়া বতিল করায় রাজ্য সরকারকে নোটিসও পাঠিয়েছে আদালত৷  আরও অভিযোগ, শিক্ষক নিয়োগ নিয়েও হস্তক্ষেপ করছে বর্তমান রাজ্য সরকার৷  বাম আমলে প্রায় ৬ হজার শিক্ষকের শূন্যপদ পূরণ করার কথা থাকলেও, বর্তমান সরকার মাত্র ১৮০টি পদের জন্য আবেদন চেয়েছে৷                    

সবমিলিয়ে এই মুহূর্তে কর্মসংস্থান ইস্যুতে বেশ কিছুটা ব্যাকফুটে ত্রিপুরা সরকার৷  শুধু তাই নয় প্রদ্যোৎকিশোর দেববর্মণ সভাপতি হওয়ার পর বেশ উজ্জীবিত কংগ্রেস শিবির৷ বিজেপির সাংগঠনিক দুর্বলতাকে কাজে লাগিয়ে নিজেদের পায়ের তলার মাটি শক্ত করতে চাইছে কংগ্রেস৷ ইতিমধ্যেই বহু সংখ্যক বিজেপি কর্মী, সমর্থক যোগ দিয়েছেন কংগ্রেসে৷ সূত্রের খবর, বর্তমানে বিজেপির অন্যতম প্রভাবশালী নেতা সুদীপ রায়বর্মণ আবারও কংগ্রেসে ফিরতে পারেন৷ একসময় কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে গিয়েছিলেন তিনি। এই মুহূর্তে রাজ্যের গুরুত্বপূর্ণ দপ্তরের মন্ত্রী৷ কংগ্রেস একটি সূত্রের দাবি, গোপনে দলের সঙ্গে ফের যোগাযোগ শুরু করেছেন সুদীপ রায়বর্মণ।  

[আরও পড়ুন: থানায় ঢুকে যুবককে চড়, বিতর্কে ত্রিপুরা কংগ্রেসের সভাপতি প্রদ্যুৎকিশোর]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement