BREAKING NEWS

৪ মাঘ  ১৪২৭  সোমবার ১৮ জানুয়ারি ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

উত্তরপ্রদেশে প্রথমবার ‘লাভ জেহাদ’ বিরোধী আইনে ভিনধর্মের বিয়ে রুখল পুলিশ

Published by: Biswadip Dey |    Posted: December 4, 2020 2:36 pm|    Updated: December 4, 2020 2:36 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সপ্তাহখানেক আগেই জোর করে ধর্মান্তকরণ ও বিয়ে রুখতে নতুন আইন (Conversion Law) চালু হয়েছে উত্তরপ্রদেশে (Uttar Pradesh)। এবার এক হিন্দু তরুণী ও মুসলিম যুবকের বিয়ের আসরে হাজির হল পুলিশ। বর ও কনে, উভয়পক্ষকেই যেতে হল থানায়। ঘটনাটি ঘটেছে লখনউয়ের (Lucknow) পারা এলাকার।

জানা যাচ্ছে, গত বুধবার ছিল ওই বিয়ের আসর। অনুষ্ঠান শুরু হওয়ার খানিক আগেই আচমকা সেখানে উপস্থিত হন পুলিশকর্মীরা। বিয়েবাড়ির সকলকে উত্তরপ্রদেশে সদ্য পাস হওয়া নতুন আইন সম্পর্কে জানিয়ে তাদের থানায় যেতে বলা হয়। পরে থানায় গেলে দু’পক্ষকেই জানানো হয় এই বিয়ের জন্য আগে লখনউয়ের জেলাশাসকের অনুমতি নিতে হবে।

[আরও পড়ুন: করোনা ভ্যাকসিনের জরুরি অনুমোদন মিলতে পারে ডিসেম্বরের শেষে, দাবি AIIMS অধিকর্তার]

লখনউয়ের সিনিয়র পুলিশ অফিসার সুরেশচন্দ্র রাওয়াত জানিয়েছেন, গত ২ ডিসেম্বর তাঁরা ওই বিয়ের বিষয়ে জান‌তে পারেন। তাঁর কথায়, ‘‘আমরা জানতে পেরেছিলাম এক ধর্মীয় সম্প্রদায়ের মেয়ের সঙ্গে অন্য সম্প্রদায়ের ছেলের বিয়ে হচ্ছে। আমরা তাঁদের থানায় ডেকে পাঠিয়ে নতুন আইনের কপি হাতে তুলে দিই। দু’পক্ষই লিখিতভাবে জানিয়েছে, নয়া আইন মেনে তাঁরা আগে জেলাশাসকের অনুমতি নিয়ে তবে বিয়ের ব্যাপারে অগ্রসর হবেন।’’

দুই পরিবারের কোনও সদস্যই এ ব্যাপারে মুখ না খুললেও সূত্রানুসারে জানা যাচ্ছে, বিয়েতে উভয় পরিবারেরই অনুমতি ছিল। কোনওরকম জোর করে ধর্মান্তরিত করার ব্যাপারও ছিল না। আপাতত জেলাশাসকের অনুমতি নিয়ে বিয়ের অনুষ্ঠান সম্পূর্ণ করার কথা ভাবছে দু’পক্ষই। এই বিয়েতে কেউ ধর্মান্তরিতও হচ্ছেন না বলে জানাচ্ছে সূত্র।

[আরও পড়ুন: ঘূর্ণিঝড় বুরেভির জেরে তামিলনাড়ুতে প্রবল বৃষ্টি, দক্ষিণ কেরলে জারি রেড অ্যালার্ট]

প্রসঙ্গত, মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ সরকারের (Yogi Adityanath) পেশ করা ‘লাভ জেহাদ’ বিরোধী অর্ডিন্যান্সে শনিবার সম্মতি দেন রাজ্যপাল আনন্দীবেন প্যাটেল। এই আইনে অভিযুক্তের ৩ থেকে সর্বাধিক ১০ বছরের সাজা হতে পারে। নতুন এই আইনের বিরোধিতা করে সুপ্রিম কোর্টের (Supreme Court) প্রাক্তন বিচারপতি মদন ল‌োকুর একে পছন্দের স্বাধীনতা কিংবা মানবাধিকার বিরোধী বলে তোপ দেগেছেন।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement