BREAKING NEWS

২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২২ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

টার্গেট পূরণ করতে করোনা টেস্টের জন্য নিজের স্যাম্পেলই দিচ্ছেন ডাক্তার! ভাইরাল ভিডিও

Published by: Sulaya Singha |    Posted: September 20, 2020 9:40 pm|    Updated: September 20, 2020 9:40 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রোজ দেশের করোনার (Coronavirus) যে ছবিটা জনসাধারণের সামনে তুলে ধরা হয়, তার সবটাই বিশ্বাসযোগ্য তো? নাকি দৈনন্দিন সংখ্যাটা প্রকাশ করার জন্য হিসেবে ‘জল মিশিয়ে’ দেওয়া হয়? উত্তরপ্রদেশের একটি ঘটনা এবার সেই প্রশ্নকেই আরও দৃঢ় করল। যেখানে টার্গেট পূরণ করতে খোদ চিকিৎসকের কীর্তি দেখে অবাক নেটিজেনরা।

করোনা ভ্যাকসিনের (Corona vaccine) অপেক্ষায় গোটা দেশ। কিন্তু তা যতদিন না আসছে, ততদিন ভরসা টেস্টিংই। তাই প্রতিটি রাজ্যেই প্রতিদিন স্যাম্পেল টেস্ট বাড়ছে। রাজ্যের তরফে দৈনিক করোনা পরীক্ষার একটি সংখ্যাও বেঁধে দেওয়া হয়। আর সেই টার্গেটে পৌঁছতেই অদ্ভুত কাণ্ড করে বসলেন এক ডাক্তার। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে একটি ভিডিও। যেখানে সাফ দেখা যাচ্ছে, উত্তরপ্রদেশের (UP) মথুরা জেলার এক চিকিৎসক টার্গেট পূরণের জন্য নিজের স্যাম্পেলও দিয়ে দিচ্ছেন! হ্যাঁ, ঠিকই পড়েছেন। তাও আবার একবার নয়, ১৫ বার নিজের সোয়াবের নমুনা দিচ্ছেন করোনা টেস্টের জন্য। যাতে মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের দপ্তর থেকে দেওয়া টার্গেট পূরণ করতে সমস্যা না হয়।

[আরও পড়ুন: দু’হাজার টাকার নোট ছাপানো কি একেবারে বন্ধ? অবশেষে উত্তর দিল কেন্দ্র]

রবিবার ভিডিওটি সামনে আসতেই শোরগোল পড়ে যায়। যোগীর রাজ্যে করোনা টেস্টের স্বচ্ছতা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করে। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, মথুরার বালদেও টাউটের একটি কমিউনিটি স্বাস্থ্যকেন্দ্রে এই ঘটনা ঘটে। চিকিৎসকের নাম ডা. রাজকুমার সারস্বত। ভিডিও স্পষ্ট শোনাও যাচ্ছে যে চিকিৎসক বলছে রাজ্যের দেওয়া টার্গেট পূরণের জন্য তিনি নিজের নমুনাই টেস্টের জন্য দিয়ে দিচ্ছেন। পরে আবার একজন পরামর্শ দিচ্ছেন, নিজের এতগুলো স্যাম্পেল একসঙ্গে না দিতে। এই স্যাম্পেলগুলিই বিভিন্ন নামে পরবর্তীতে প্রকাশ করা হবে। তবে কি এভাবেই করোনার পরিসংখ্যান মানুষের সামনে তুলে ধরা হয়? ভিডিও দেখে অনেকেই এ প্রশ্নেরই উত্তর চেয়েছেন।

এখানেই শেষ নয়, ওই একই স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নাকি ভুয়ো স্বাক্ষর করা কাগজ দেখিয়ে কোভিড রোগীকে হোম আইসোলেশনের পরামর্শ দেওয়া হয়। অর্থাৎ তাঁর চিকিৎসার প্রয়োজন কি না, তা নিয়ে মাথা ঘামানো হয় না। সমস্ত ঘটনা ইতিমধ্যেই অ্যাডিশনাল CMO ডা. রাজীব গুপ্তর কানে পৌঁছেছে। গোটা বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলে জানান তিনি। অপরাধীদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপও করা হবে।

[আরও পড়ুন: করোনা থেকে সুস্থ হয়েও বাঁচল না প্রাণ, বচসার জেরে আত্মঘাতী নবদম্পতি]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement