৩১ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৬  শনিবার ১৫ জুন ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ

৩১ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৬  শনিবার ১৫ জুন ২০১৯ 

BREAKING NEWS

দীপাঞ্জন মণ্ডল, নয়াদিল্লি: আধার তথ্যকে সুরক্ষিত করতে নয়া উদ্যোগ নিল ইউআইডিএআই। এর জন্য ১২ সংখ্যার আধার নম্বরের পরিবর্তে একটি উন্নত মানের কিউআর কোড ব্যবস্থা চালু করল আধার পরিচালন সংস্থা। অফলাইন ভেরিফিকেশনের ক্ষেত্রে এই কিউআর কোডটিই যথেষ্ট বলে জানানো হয়েছে সংস্থার তরফে। এই নতুন কিউআর কোড যুক্ত আধারে থাকবে অসংবেদনশীল তথ্য, যেমন নাম, ছবি ইত্যাদি এবং এটি অফলাইন ভেরিফিকেশনের কাজে লাগবে। আর এই নতুন কিউআর কোড যুক্ত আধারে থাকবে না ১২ সংখ্যার আধার নম্বর। ফলে সে ক্ষেত্রে তথ্য নিয়ে কেউ সেই তথ্যের অবৈধ ব্যবহার করতে পারবে না বলেই দাবি করেছে ইউআইডিএআই।

[মধ্য রাতে খিচুড়ি ভোগ খেলেন পুরীর জগন্নাথ]

আধার ব্যবহারকারীরা ইউআইডিএআইয়ের ওয়েবসাইট বা মোবাইল অ্যাপ থেকে এই কিউআর কোড সমেত আধার কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন। ডাউনলোডের সময় যদি আধার নম্বর ছেপে বেরিয়েও আসে তবে তা কালো কালি দিয়ে মুছেও দিতে পারেন আধার ব্যবহারকারীরা। তাতে কোনও অসুবিধা হবে না বলেই জানিয়েছে ইউআইডিএআই। শুধু মাত্র কিউআর কোডটি থাকলেই হবে। এই নতুন ব্যবস্থা অনেক সহজে সাধারণ মানুষ ব্যবহার করতে পারবে বলেই আশাবাদী তারা এবং পাশাপাশি সংবেদনশীল তথ্যেরও গোপনীয়তা রক্ষা হবে।

উদাহরণ স্বরূপ বলা যেতে পারে, অনলাইন কোনও কিছু কেনার পর তা যখন ডেলিভারি করা হয় তখন অনেক সময় ব্যক্তির পরিচয়ের ক্ষেত্রে আধার দেখতে চাওয়া হয়। এবার থেকে সেই ক্ষেত্রে আর কোনও অসুবিধা হবে না বা সমস্ত তথ্য দেওয়ার প্রয়োজন থাকবে না। কারণ, একটি ডিকোড মেশিনের মাধ্যমে সেই কিউআর কোড স্ক্যান করেই সাধারণ যে তথ্য প্রয়োজন অর্থাৎ নাম, ছবি, ঠিকানা ইত্যাদি পাওয়া যাবে। কোনও ব্যক্তির সত্যতা যাচাই করতে যে তথ্য প্রয়োজন শুধু সেই প্রয়োজনীয় তথ্যই থাকবে এই কিউআর কোডে। আধার নম্বরের উল্লেখ থাকবে না সেখানে। ইউআইডিএআই এর আধিকারিক অজয়ভূষন পাণ্ডে জানিয়েছেন, “এই অফলাইন কিউআর কোড ব্যবস্থা একটি গুরুত্বপূর্ণ অগ্রগতি আধার কার্ড ব্যবহার করার ক্ষেত্রে। এখন থেকে যেখানে আইনত আধার নম্বর প্রয়োজন, সেই জায়গাগুলি ছাড়া আর কোথাও আধার নম্বর দেওয়ার প্রয়োজন পড়বে না এবং এর ফলে তথ্য অনেক সুরক্ষিত হবে এবং তথ্যের অবৈধ ব্যবহার কেউ করতে পারবে না।” মূলত, আধারের তথ্য সুরক্ষিত কি না এই নিয়ে অনেক জলঘোলা হয়েছে এবং রাজনৈতিক মহলও উত্তপ্ত হয়েছে এই বিষয়টি নিয়ে। আধার তথ্য কি আদৌ সুরক্ষিত এই নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে বিভিন্ন মহল৷ আর এই পরিস্থিতিতেই আধারকে আরও সুরক্ষা দিতে এই উদ্যোগ বিশেষ ভাবে কাজে আসবে বলে মনে করছে সংশ্লিষ্ট মহল।

[বক্তব্যে অনড় থেকে সমালোচকদের একহাত নিলেন বিপ্লব দেব]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং