১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  শনিবার ৫ ডিসেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বাংলার ৬ জেলায় তৈরি সংগঠন, তৃণমূলের সঙ্গে জোটের রাস্তাও খুলে রাখল ওয়েইসির দল

Published by: Sulaya Singha |    Posted: November 13, 2020 9:23 pm|    Updated: November 13, 2020 9:23 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রথমবার বিহারে ভোটে দাঁড়িয়েই সাফল্যে মুখ দেখেছে আসাদউদ্দিন ওয়েইসির দল। পাঁচটি আসনে জয়ী হয়েছে অল ইন্ডিয়া মজলিস-ই-ইত্তেহাদুল মুসলিমিন (AIMIM)। বিহারের সেই জয়ের ধারাই এবার বাংলায় বজায় রাখতে চান ওয়েইসি। বাংলায় প্রথমবার ভোটে লড়ার ইঙ্গিত আগেই দিয়েছিলেন। এবার তাঁর দলের মুখপাত্র মুখ খুললেন রাজ্যের শাসকদলের সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধা নিয়ে।

দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রথমবার নির্বাচনী লড়াইয়ে নামার আগে ভালভাবেই হোমওয়ার্ক করেছে AIMIM। গত তিন বছর বাংলায় কাজ করছে দলের সদস্যরা। তৈরি হয়েছে সংগঠনও। মুর্শিদাবাদ, মালদহ, উত্তর দিনাজপুরের মতো জেলা, যেখানে সংখ্যালঘুদের ভোট নির্বাচনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে, সেখানেই সংগঠন তৈরি করছে ওয়েইসির (Asaduddin Owaisi) দল। তবে শুধু এই তিন জেলাই নয়, কলকাতার আশপাশেও বিশেষ নজর রাখছেন ওয়েইসির দলের কর্মী-সমর্থকরা। হাওড়া, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনাতেও নিজেদের খুঁটি শক্ত করার চেষ্টা চালাচ্ছে তারা।

[আরও পড়ুন: ৩ দশক আগে রাম মন্দিরের ইট পুঁতেছিলেন, সেই দলিত নেতাই হতে পারেন বিহারের উপমুখ্যমন্ত্রী!]

এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে AIMIM-এর মুখপাত্র অসীম ওয়াকার বলেন, “বিহারের পর আমাদের টার্গেট বাংলা। আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে আমরা লড়ব। গত তিন বছর ধরে আমাদের সদস্যরা এখানে কাজ করে চলেছে। আমাদের সংগঠনও তৈরি। এখন শুধু নেতাদের নাম ঘোষণাই বাকি।” তবে কি বাংলায় সাফল্য পেতে তৃণমূলের হাত ধরতেও রাজি ওয়েইসির দল? এই প্রশ্নের উত্তরে ওয়াকার জানান, তাঁদের তরফ থেকে রাস্তা খোলা। তৃণমূল কংগ্রেস চাইলেই তাঁদের সঙ্গে কথা বলতে পারে। তবে এ কথাও জানিয়ে দেন, তাঁরা আগামী বছর এককভাবেই লড়াই করতে ইচ্ছুক। ওয়াকারের কথায়, “আমাদের লড়াই বিজেপির বিরুদ্ধে। আমরা চাই না বাংলার মসনদে পদ্মফুল ফুটুক। তাই তৃণমূলের সঙ্গে জোটের ক্ষেত্রে আমাদের দরজা খোলা। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই সিদ্ধান্ত নেবেন তিনি আমাদের সঙ্গে হাত মেলাবেন কি না। নাহলে আমরা একাও লড়তে তৈরি। ঠিক যেমন বিহারে লড়েছি।”

ক’টা আসনে লড়বে AIMIM কিংবা তাদের দলের মুখই বা কারা হবেন, শীঘ্রই সেসব প্রশ্নের উত্তর মিলবে বলে জানিয়েছেন মুখপাত্র। আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির বিরুদ্ধে লড়তে কোন পথে এগোয় শাসকদল, এখন সেটাই লাখ টাকার সওয়াল।

[আরও পড়ুন: সীমান্তে ফের গোলাবর্ষণ পাক সেনার, শহিদ তিন ভারতীয় জওয়ান]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement