BREAKING NEWS

২২ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  শুক্রবার ৫ জুন ২০২০ 

Advertisement

বার্লিনে পাঁচিল ভাঙার দিনেই নতুন করে ঐক্যের নজির ভারতে, অযোধ্যা নিয়ে বললেন মোদি

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: November 9, 2019 6:43 pm|    Updated: November 9, 2019 6:59 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দীর্ঘদিনের জট কেটে গিয়েছে। নতুন করে সব কিছু শুরু হওয়ার অপেক্ষায় অযোধ্যা। আর বহু প্রতীক্ষীত এই সুদিন দেশের ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে। এভাবেই অযোধ্যা মামলার রায়ঘোষণার পর জাতির উদ্দেশে ভাষণে বললেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। বললেন. ‘ভারত বৈচিত্র্যের মধ্যে ঐক্যের দেশ, তা আজ ফের প্রমাণিত হল। গণতন্ত্রের শক্তি দেখল সবাই।’ অযোধ্যা মামলার সুপ্রিম রায় শেষপর্যন্ত ভারতবাসীর জয় বলেই মনে করছেন প্রধানমন্ত্রী।
অযোধ্যার জমি বিতর্ক মামলা। দেশের ইতিহাসে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ, স্পর্শকাতর বিষয়টি দিনের পর দিন যেভাবে জটিল থেকে জটিলতর হয়ে উঠেছে, তাতে অশান্তি তো বেড়েইছে। এই সমস্যা কবে মিটবে, তার অপেক্ষায় হাপিত্যেশ করে বসে থেকেছেন দেশবাসী। বিশেষত হিন্দুদের বিশ্বাস আর আবেগের সঙ্গে সরাসরি জড়িত ‘রাম জন্মভূমি’ অযোধ্যা নিয়ে হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলির লড়াই ত্বরান্বিত করতে চেয়েছে আইনি প্রক্রিয়াকে। সেসব দিন পেরিয়ে শনিবার সকাল সাড়ে দশটা নাগাদ সুপ্রিম কোর্টে অযোধ্যা মামলার রায় ঘোষণা দিয়েই দীর্ঘ বিতর্কের অবসান ঘটে। যা দ্বিতীয় মোদি সরকারের কাছে অন্যতম বড় চ্যালেঞ্জ ছিল বলে রাজনৈতিক মহলের একাংশের মত।

[ আরও পড়ুন: অযোধ্যা মামলার ঐতিহাসিক রায়, কী প্রভাব ভোট রাজনীতিতে?]

এমন এক ঐতিহাসিক দিনে দেশের প্রধানমন্ত্রীর তরফে কী বার্তা আসে, তা শোনার অপেক্ষায় ছিলেন দেশবাসী। অবশেষে, সন্ধেবেলা তিনি বললেন। জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিয়ে মোদি বললেন, ‘আজকের ঐতিহাসিক দিন স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে। দেশের বিচারব্যবস্থাকে বিশেষভাবে অভিনন্দন জানাচ্ছি। সর্বসম্মতিক্রমে এই রায় দিয়েছে দেশের শীর্ষ আদালত। এতে কারও মনে কোনও বিরূপতা নেই। আর কারও মধ্যে কটূতা থাকলেও, তা আজ ঝেড়ে ফেলার দিন। ভারতবাসী দেখিয়ে দিলেন, কীভাবে একে অপরের সঙ্গে মিলেমিশে থাকা যায়।’ তাঁর আরও বার্তা, ‘কঠিন থেকে কঠিনতর সমস্যার সমাধান আইনি পথেই হয়, তা বোঝা গেল আজ। এবার থেকে সবাই মিলেমিশে থাকব।’
আজকের দিন, অর্থাৎ ৯ নভেম্বরের মাহাত্ম্য বর্ণনা করতে গিয়ে মোদি উল্লেখ করেন বার্লিনে প্রাচীর ধ্বংসের কথা। বলেন, ‘এই দিনেই বার্লিনের প্রাচীর ভেঙে দুই জার্মানি এক হয়ে গিয়েছিল। এদেশে আজকের দিনটি তেমনই গুরুত্বপূর্ণ, ঐতিহাসিক।’

[ আরও পড়ুন: ‘খয়রাতির ৫ একর জমি চাই না’, অযোধ্যার রায় নিয়ে বিস্ফোরক ওয়াইসি]

অযোধ্যা মামলার রায় দিয়ে বিচারপতিরা জানিয়েছেন, বিতর্কিত জমির মালিকানা পাচ্ছে রাম জন্মভূমি ন্যাস। সেখানেই ট্রাস্টের অধীনে রাম মন্দির তৈরির কাজ শুরু হবে। মসজিদের জন্য বিকল্প ৫ একর জমি দেওয়া হবে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে। এই রায়ের পর থেকে সবপক্ষই দেশে শান্তি, সম্প্রীতির বাতাবরণ বজায় রাখার আবেদন জানিয়েছেন সাধারণ নাগরিকের কাছে। প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যেও এদিন সেই একই সুর পেলেন দেশবাসী।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement