BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

২০২৪ পর্যন্ত পর্যাপ্ত পরিমাণে করোনা টিকা পাওয়া যাবে না, উদ্বেগ বাড়িয়ে দাবি সেরাম কর্তার

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: September 14, 2020 9:58 pm|    Updated: September 14, 2020 9:58 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ২০২৪ পর্যন্ত সবার জয়ন্ত পর্যাপ্ত পরিমাণের করোনা ভ্যাকসিন পাওয়া যাবে না। উদ্বেগ উসকে এমনটাই দাবি করেছেন সেরাম ইনস্টিটিউটের শীর্ষকর্তা আদর পুনাওয়ালা (Adar Poonawalla)।

[আরও পড়ুন: রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হরিবংশ সিং, ‘দুর্দান্ত আম্পায়ার’, তারিফ মোদির]

সোমবার এক রিপোর্টে বলা হয়েছে, পরিসংখ্যানের কথা মাথায় রেখে পুনাওয়ালা জানিয়েছেন, নয়া ভ্যাকসিন যদি দু’টো ডোজে দিতে হয় তাহলে গোটা বিশ্বে প্রায় ১৫ বিলিয়ন ডোজ লাগবে। এহেন বিপুল পরিমাণের টিকা তৈরি করতে আনুমানিক চার থেকে পাঁচ বছর সময়ের প্রয়োজন। উল্লেখ্য, বিশ্বের সবচেয়ে বৃহৎ টিকা প্রস্তুতকারী সংস্থা হচ্ছে সেরাম ইনস্টিটিউট। ভারতের বাজারে অক্সফোর্ডের টিকা কোভিশিল্ড নিয়ে আসার কথা রয়েছে সংস্থাটির। ফলে আদর পুনাওয়ালার বার্তা যে রীতিমতো উদ্বেগ জাগিয়েছে তা বলাই বাহুল্য। এদিকে, গতকালই কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধন জানিয়েছেন, আগামী মাসের শুরুর দিকেই ভারতের বাজারে করোনা ভ্যাকসিন পাওয়া যাবে। তবে এই দাবি নিয়ে এবার প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

উল্লেখ্য, অক্সফোর্ড ও অ্যাস্ট্রজেনেকার (Oxford-AstraZeneca) সঙ্গে চুক্তি করে ভারতে অক্সফোর্ডের ফর্মুলায় ডিএনএ ভ্যাকসিন তৈরি করছে সেরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া (Serum Institute of India)। ভ্যাকসিনটির প্রথম পর্যায়ের ট্রায়াল শুরুর পরই অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে চুক্তি করে বিশ্বের বৃহত্তম টিকা প্রস্তুতকারী সংস্থাটি। দেশের মাটিতে তৈরি হতে চলা টিকাটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘কোভিশিল্ড’। এই ‘ভ্যাকসিনটি’র প্রথম পর্যায়ের হিউম্যান ট্রায়াল আশানুরূপ ফল দিয়েছে। এবার এর দ্বিতীয় ও তৃতীয় পর্যায়ের পরীক্ষার ফলের অপেক্ষা।

টিকা তৈরি প্রক্রিয়ায় বড়সড় প্রশ্ন তুলে কয়েকদিন আগেই ব্রিটেনে এই ট্রায়ালে অংশ নেওয়া এক স্বেচ্ছাসেবকের শরীরে অপ্রত্যাশিত পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। ওই স্বেচ্ছাসেবক অসুস্থ হয়ে পড়ায় ব্রিটেনে অক্সফোর্ডের তৈরি এই টিকাটির ট্রায়াল স্থগিত করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় প্রস্তুতকারী সংস্থা অ্যাস্ট্রোজেনেকা। তারপরই প্রশ্ন উঠতে শুরু করে ভারতে এই টিকার ট্রায়াল চালু রাখা নিয়ে। গতকাল রাতে এই প্রতিষেধকের ট্রায়াল বন্ধ নিয়ে সেরাম ইনস্টিটউট অফ ইন্ডিয়াকে শোকজ নোটিস পাঠায় কন্ট্রোলার জেনারেল অফ ইন্ডিয়া।

[আরও পড়ুন: ‘আমাদের মূল্যবোধ সমলিঙ্গে বিয়েকে স্বীকৃতি দেয় না’, দিল্লি হাই কোর্টকে জানাল কেন্দ্র]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement