৫ ভাদ্র  ১৪২৬  শুক্রবার ২৩ আগস্ট ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

কলকাতা নাইট রাইডার্স: ১৩৩/৭ (লিন-৪১, উথাপ্পা-৪০)
মুম্বই ইন্ডিয়ান্স: ১৩৪/১ (রোহিত-৫৫*, সূর্যকুমার-৪৬*)

৯ উইকেটে জয়ী মুম্বই ইন্ডিয়ান্স

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: খেলা শুরুর খানিকক্ষণ আগে এক কেকেআর ভক্তকে ম্যাচের ভবিষ্যৎ জিজ্ঞেস করলে তাঁর উত্তর ছিল, “মন বলছে কলকাতা। কিন্তু মস্তিষ্ক বলছে মুম্বই।” দিনের শেষে মনকে ছাপিয়ে মস্তিষ্কেরই জয় হল। প্লে অফে পৌঁছনোর যাবতীয় আশায় জল ঢেলে দিল রোহিত শর্মা অ্যান্ড কোং। সিংহের ডেরায় ঢুকে যে সিংহ বধ সহজ নয়, রবিবাসরীয় রাতে সেটাই হাড়ে হাড়ে টের পেলেন কার্তিকরা। কিং খানের ‘অভিশপ্ত’ ওয়াংখেড়েতে রচিত হল নাইটদের আরও এক হারের ইতিহাস। আরও একবার শচীনের দল গলা টিপে হত্যা করল নাইটভক্তদের স্বপ্ন। এবার শুধুই হার নয়, টুর্নামেন্ট থেকেই বিদায় নিতে হল কলকাতাকে। ইডেনে হারের প্রতিশোধ রোহিতের কাছে এর চেয়ে মধুর আর কী-ই বা হতে পারত।

[আরও পড়ুন: স্বার্থের সংঘাত মামলায় বিস্ফোরক শচীন, পালটা তোপ বিসিসিআইকেই]

এদিন বাইশ গজের দু’টো দৃশ্যই যেন ম্যাচের ভাগ্য নির্ধারণ করে দিয়েছিল। এক, টসে রোহিতের কাছে কার্তিকের হার ও মুম্বই অধিনায়কের ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত। এবং দুই, স্কোরবোর্ডে বড় বড় করে আন্দ্রে রাসেলের নামের পাশে লেখা শূন্য। বিধ্বংসী ‘ফণী’র মতোই ফণা তুলে নাইট মিডল অর্ডারে ছোবল বসালেন লাসিথ মালিঙ্গা। রাসেল, কার্তিক ও রানাকে প্যাভিলিয়নে পাঠাতেই বড় রানের লক্ষ্যভ্রষ্ট হল কেকেআরের। একে রামে রক্ষে নেই, জোড়া দোসর। বুমরাহ ও হার্দিক তুলে নেন দুটি করে উইকেট। হার্দিককে নিয়ে মাঠ ও মাঠের বাইরে যতই সমালোচনা হোক না কেন, তাঁর ফোকাস নড়ানো যে সহজ নয়, তা এদিনই বুঝিয়ে দিলেন তরুণ তুর্কি। উথাপ্পা শেষমেশ যখন ফর্মে ফিরলেন, তখন সব শেষ। কাজে এল না লিনের ইনিংসও। যেখানে বাঁচার একমাত্র রাস্তা জয়, সেখানে দলের ১৩৩ রানটা নেহাতই শিশু। ফলে যা হওয়ার তাই হল। কোনও কসরত, দুশ্চিন্তা ছাড়াই হাসতে হাসতে ম্যাচ পকেটে পুরে ফেলল মুম্বই। কিন্তু রাসেলকে সেই পরে নামানো, কুলদীপকে বসিয়ে রাখা, প্রসিদ কৃষ্ণার উপর অতিরিক্ত আস্থা- এসব সিদ্ধান্তই কার্তিকের অধিনায়কত্বে কালো দাগ হয়েই থেকে যাবে। এদিন দুর্দান্ত একটা ক্যাচ নেওয়া ছাড়া আর কিছুই করতে পারেননি তিনি। 

ইডেন তাঁকে খালি হাতে ফিরিয়েছিল। কিন্তু ঘরের মাঠে হিটম্যানের ম্যাজিক দেখলেন ক্রিকেটভক্তরা। ৫৫ রানে অপরাজিত থেকে শুধু দলকে জেতালেনই না, লিগ তালিকার শীর্ষেও পৌঁছে দিলেন। আর এই মহাযজ্ঞে যোগ্য সঙ্গ দিলেন সূর্যকুমার যাদব। মুম্বই, চেন্নাই ও দিল্লি- তিন দলেরই পয়েন্ট ১৮। কিন্তু রান রেটে এগিয়ে শীর্ষে উঠে গেলেন রোহিতরা। মঙ্গলবার চেন্নাইয়ের বিরুদ্ধে খেলবেন তাঁরা। আর দিল্লির লড়াই হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে। কেকেআরের হারের সৌজন্যে এই প্রথম ১২ পয়েন্ট নিয়ে প্লে অফে পৌঁছলো কোনও দল। তবে নাইটভক্তদের কাছে রবিবারই শেষ হল এবারের আইপিএল।

[আরও পড়ুন: অভিনেত্রীর সঙ্গে ছবি পোস্ট! নেটদুনিয়ায় কুরুচিকর আক্রমণ হার্দিককে]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং