Advertisement
Advertisement
CAPF

আসছে আরও ২২ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী, দ্বিতীয় দফা ভোটেও সব বুথে আধাসেনা

প্রথম দফার ভোটের আগেই বাহিনীকে গুলি চালনা, দুর্ব‌্যবহার ও বুথের ভিতরে ঢোকা নিয়ে সতর্ক করেছে কমিশন।

22 more CAPF coming to Bengal
Published by: Paramita Paul
  • Posted:April 15, 2024 11:28 pm
  • Updated:April 15, 2024 11:28 pm

সুদীপ রায়চৌধুরী: প্রথম পর্বের ভোটে কোচবিহারে বাড়তি নজর রাখার কথা আগেই জানিয়েছিল কমিশন। কমিশন সূত্রে খবর, মঙ্গলবারই বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক অনিলকুমার শর্মা উত্তরবঙ্গে যাচ্ছেন। প্রথম পর্বের ভোটে কোচবিহার বসেই নজরদারি করবেন তিনি। ওই কেন্দ্রের স্পর্শকাতর বুথগুলি ঘুরে দেখার পাশাপাশি উত্তেজনাপ্রবণ এলাকাতে তিনি যেতে পারেন। কমিশনের বক্তব্য, প্রথম দফার তিনটি আসনে আপাতত আইনশৃঙ্খলা স্বাভাবিক রয়েছে। তবে কোচবিহার থেকে বেশ কিছু অশান্তির খবর সামনে আসছে। তাই ওই কেন্দ্র নিয়ে বাড়তি সতর্কতা রাখা হচ্ছে।

এদিন কমিশন জানিয়েছে, প্রথম দফার ভোটে সব বুথেই কেন্দ্রীয় জওয়ান মোতায়েনের পাশাপাশি ওয়েব কাস্টিং করা হচ্ছে। এমুহূর্তে রাজ্যে পৌঁছেছে ২৭৭ কোম্পানি বাহিনী। যার মধ্যে ২৬৩ কোম্পানি প্রথম দফায় ব্যবহার করা হচ্ছে। তিন কেন্দ্রে বাহিনীর রুটমার্চও শুরু হয়ে গিয়েছে। দ্বিতীয় দফাতেও ১০০ শতাংশ বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকছে বলে কমিশন জানিয়েছে। এজন্য রাজ্যে আরও ২২ কোম্পানি বাহনী আসছে। এর মধ্যে সিকিম থেকে ৯ ও মেঘালয় থেকে ১৩ কোম্পানি আসছে। আরও বাহিনী আসায় দ্বিতীয় দফায় মোট বাহিনীর সংখ্যা দাঁড়াবে ২৯৯ কোম্পানি। এর মধ্যে সরাসরি বুথ পাহারায় ব্যবহার করা হবে ২৭২ কোম্পানি। বাকি ২৭ কোম্পানির মধ্যে ৬ কোম্পানি থাকবে স্ট্রং রুম এবং ভোট পরবর্তী হিংসা সামলাতে। বাকি ২১ কোম্পানি তৃতীয় দফার বিভিন্ন কেন্দ্রে পাঠানো হবে।

Advertisement

[আরও পড়ুন: ‘তেরঙ্গাই আমার গ্যারান্টি’, ইউক্রেন থেকে ভারতীয় পড়ুয়াদের ফেরানো নিয়ে মন্তব্য মোদির

প্রথম দফার ভোটে ২৭৭ কোম্পানি বাহিনী মোতায়েন করায় রাজ্যের চার জেলায় আপাতত কোনও কেন্দ্রীয় বাহিনী রাখছে না কমিশন। কমিশন সূত্রে খবর, প্রথম দফার ভোটের আগে ঝাড়গ্রাম, পশ্চিম মেদিনীপুর, পুরুলিয়া ও বাঁকুড়া জেলায় কোনও কেন্দ্রীয় বাহিনী রাখা হচ্ছে না। কমিশনের যুক্তি, ওই চার জেলায় পরিস্থিতি স্বাভাবিক। তাই আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে রাজ্য পুলিশের উপরই ভরসা রাখছে কমিশন।

Advertisement

বিধানসভা ভোটে শীতলকুচির ঘটনার প্রেক্ষিতে এবার প্রথম দফার ভোটের আগেই বাহিনীকে গুলি চালনা, দুর্ব‌্যবহার ও বুথের ভিতরে ঢোকা নিয়ে সতর্ক করেছে কমিশন। কমিশনের নির্দেশ, একমাত্র ইভিএম, ভোট কর্মীদের সুরক্ষা ও আত্মরক্ষার অন‌্য উপায় না থাকলে তবেই গুলি চালানো যাবে। অযথা জোর খাটানো বা কুকথা বলাও যাবে না। কমিশনের স্পষ্ট নির্দেশ, কেন্দ্রীয় জওয়ানরা বুথের গেটে থাকবেন। প্রিসাইডিং অফিসার না ডাকলে বুথের মধ্যে ঢুকতে পারবেন না।

[আরও পড়ুন: বিজেপি প্রার্থীর পা ছুঁয়ে প্রণাম প্রতিদ্বন্দ্বী কংগ্রেসের শশীর, ভোটবাজারে বিরল ছবি

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ