২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২০ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

ফাঁকা বাসস্ট্যান্ডে যৌনতার প্রস্তাব! রাতের কলকাতায় ফের দুর্ব্যবহারের শিকার তরুণী

Published by: Sayani Sen |    Posted: September 25, 2020 2:01 pm|    Updated: September 25, 2020 2:22 pm

An Images

ছবি: প্রতীকী

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাতের কলকাতায় (Kolkata) ফের হেনস্তার শিকার এক তরুণী। অভিযোগ, তাঁকে উদ্দেশ্য করে কুরুচিকর মন্তব্য করা হয়। এমনকী অশ্লীলভাবে তাঁর শরীর স্পর্শ করা হয়। নির্যাতিতার অভিযোগ, পুলিশ আসলেও ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। পরিবর্তে ওই ব্যক্তিকে ছেড়ে দেওয়া হয় বলেও দাবি তাঁর। এখনও পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেননি তিনি। তবে সোশ্যাল মিডিয়ায় (Social Media) ওই রাতের ভয়ংকর অভিজ্ঞতার কথা শেয়ার করেছেন তরুণী।

গত ২২ সেপ্টেম্বর রাতে ঠিক কী ঘটেছিল? ঘড়ির কাঁটায় তখন সাড়ে আটটা হবে। ওই তরুণী দমদম থেকে ৪৫ নম্বর বাসে চড়েন। তবে বাসে ওঠার পর তিনি জানতে পারেন বাসটি গাঙ্গুলিবাগান পর্যন্ত যাবে না। তাই মাঝপথে দক্ষিণদাঁড়ি বাসস্ট্যান্ডে নেমে পড়েন তিনি। অভিযোগ, বাসস্টপে অপেক্ষা করার সময় এক মদ্যপ যুবক আচমকাই হাজির হয়। তাঁকে ক্রমাগত কুপ্রস্তাব দিতে থাকে ওই যুবক। এমনকী নানারকম অশ্লীল ইঙ্গিত করতে থাকে সে। যৌনমিলনের ইচ্ছাও প্রকাশ করে সে। তরুণী ওই যুবকের কথাবার্তা ভিডিও করেন।

[আরও পড়ুন: ‘বিশ্ববঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলনের নামে কেলেঙ্কারি’, কড়া ভাষায় এবার অমিত মিত্রকে চিঠি ধনকড়ের]

তবে ভিডিও করে কোনও লাভ হবে না বলেও হুমকি দেয় অভিযুক্ত। এরপর তরুণীর প্রেমিক ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছন। তিনি ওই যুবকের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েন। হাতাহাতিও হয়। তারই মাঝে প্রেমিকের সামনে ওই মদ্যপ যুবক অশালীনভাবে তরুণীর শরীর স্পর্শ করে বলেও অভিযোগ। এমনকী ধারাল অস্ত্র দিয়ে তরুণী ও তাঁর প্রেমিককে ভয় দেখানোও হয়। উল্টোডাঙা ট্রাফিক পুলিশকে (Police) গোটা ঘটনাটি জানান তাঁরা। পুলিশ অভিযুক্তের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা না নিয়ে ছেড়ে দেয় বলেও দাবি তরুণীর। তারপর কোনওক্রমে অ্যাপ ক্যাবে চড়ে রাত দশটা নাগাদ ঘটনাস্থল ছাড়েন তিনি।

এই ঘটনার পর দু’দিনেরও বেশি সময় কেটে গিয়েছে। মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছেন তরুণী। তিনি বৃহস্পতিবার রাতে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভয়ংকর অভিজ্ঞতার কথা শেয়ার করেন। তবে এখনও কোনও থানায় অভিযোগ করেননি তিনি। কলকাতা পুলিশ এই ঘটনায় কোনও ব্যবস্থা নিক, সেই আশা প্রকাশ করেছেন নির্যাতিতা। এই ঘটনায় ফের একবার রাতের শহরে নারী নিরাপত্তার বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন উঠছে।

[আরও পড়ুন: মহুয়া বনাম বাবুলের আইনি লড়াই তীব্র, মানহানি মামলা খারিজের দাবিতে হাই কোর্টে মন্ত্রী]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement