BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

অ্যাপ ডাউনলোডেই লুকিয়ে বিপদ, প্রতারকের ফাঁদে পড়ে টাকা খোয়ালেন বিধাননগরের যুবক

Published by: Bishakha Pal |    Posted: June 18, 2020 9:24 pm|    Updated: June 18, 2020 11:22 pm

An Images

কলহার মুখোপাধ্যায়: অ্যাপের মাধ্যমে মোবাইল ফোনের দখল নিয়ে এক ব্যক্তির ২৫ হাজার টাকা হাতিয়ে নিল প্রতারকরা। ঘটনাটি ঘটেছে বিধাননগরে। প্রতারিত ব্যক্তি তথ্যপ্রযুক্তি কর্মী। সাইবার দুনিয়া সম্পর্কে পর্যাপ্ত ধারণা থাকা সত্ত্বেও তাঁকে প্রতারকদের চাতুরিতে ঠকতে হল। গত ৪৫ দিনে তাঁর কাছে তিনবার মোবাইলে মেসেজ আসে। দু’বার আমল না দিলেও তৃতীয়বারে প্রতারকদের ফাঁদে পড়ে যান তিনি। ব্যক্তির নাম অরিন্দম বসু। তিনি ঘটনার বিবরণ বিধাননগর সাইবার থানায় যেমন জানিয়েছেন, তেমনই ন্যাশনাল সাইবার ক্রাইম পোর্টালেও নিজের অভিযোগ লিপিবদ্ধ করেছেন।

অরিন্দমবাবু একটি ই-কমার্স সংস্থার মাধ্যমে ব্যক্তিগত লেনদেন চালান। এক ব্যক্তি নিজেকে সেই সংস্থার উচ্চপদস্থ আধিকারিক পরিচয় দিয়ে ফোন করে তাঁকে। চোস্ত হিন্দিতে রবি কুমার নামে নিজের পরিচয় দেয়। সে জানায়, অরিন্দমের অ্যাকাউন্টের বৈধতা যাচাই করতে KYC ফর্ম অবিলম্বে পূরণ করতে হবে। এর জন্য ‘কুইক সাপোর্ট’ নামে একটি অ্যাপ ডাউনলোড করে ফেলতে হবে। মোবাইলের প্লে স্টোর থেকে একটি ডাউনলোড করেন অরিন্দম। তারপর সেটির অ্যাপ্লিকেশন চালু করার সঙ্গে সঙ্গে দুটি ওটিপি তাঁর মোবাইলে এসে ঢোকে। ফোনের অপর প্রান্তে রবি কুমার সে দুটি জানতে চায়। তা জানানোর সঙ্গে সঙ্গে উলটোডাঙা ব্রাঞ্চের একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকে থাকা অরিন্দমের আকাউন্ট থেকে প্রথমে এক হাজার ও কয়েক সেকেন্ডের মাথায় ২৪ হাজার টাকা বেরিয়ে যায়।

[ আরও পড়ুন: 4G নেটওয়ার্কের উন্নতিতে ব্যবহার করা যাবে না চিনা দ্রব্য, BSNL-কে নির্দেশ কেন্দ্রের ]

সেই টাকা প্রথমে ই-কমার্স সংস্থায় অরিন্দমের আকাউন্ট গিয়ে জমা হয়। তারপর আরও একটি ওটিপি তাঁর মোবাইলে ঢোকে। রবি কুমার নামে ওই ব্যক্তি সেটিও জানতে চায়। তা জানানোর সঙ্গে সঙ্গে ওই অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা উধাও। অরিন্দম জানিয়েছেন, “ই-কমার্স সংস্থার পক্ষ থেকে তাকে জানানো হয়েছে, ‘ইন্ডিয়া পোস্ট পেমেন্ট’ নামে একটি ব্যাংকের কোনও একটি আকাউন্টে সেই ২৫ হাজার টাকা জমা পড়েছে।

এরপর রবি কুমারের মোবাইল নম্বরে একাধিকবার ফোন করেন অরিন্দম। কিন্তু সে ফোন কেউ ধরেনি। পরে পুলিশ ও ন্যাশনাল সাইবার ক্রাইমে অভিযোগ দায়ের করেন তিনি। পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এই অ্যাপটি ডাউনলোড করার সঙ্গে সঙ্গে মোবাইল ফোন ক্লোন হয়ে যায়। কারও কথা শুনে এই অ্যাপ ডাউনলোড করা মানে নিজের মোবাইল ফোনটি তার হাতে একপ্রকার তুলে দেওয়া। এই ধরনের আপ ডাউনলোড করার আগে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিতে অনুরোধ জানিয়েছে পুলিশ।

[ আরও পড়ুন: ৫২টি অ্যাপের মাধ্যমে তথ্য হাতাচ্ছে চিন, কেন্দ্রকে সতর্ক করল গোয়েন্দা সংস্থা ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement