Advertisement
Advertisement

Breaking News

Flood situation

DVC’র জল ছাড়া নিয়ে নীতি তৈরির আবেদন, বন্যা রুখতে দিল্লিতে দরবার রাজ্যের মন্ত্রী-সাংসদদের

ফরাক্কা ড্রেজিংয়ের দাবিতেও সরব মুখ্যমন্ত্রী।

Bengal MP and Minister will go to Delhi to talk about the prevention of flood situation । Sangbad Pratidin
Published by: Sayani Sen
  • Posted:August 19, 2021 9:02 am
  • Updated:August 19, 2021 9:23 am

স্টাফ রিপোর্টার: রাজ্যে বন্যা (Flood) রুখতে একগুচ্ছ দাবি নিয়ে কেন্দ্রীয় সেচমন্ত্রক এবং নীতি আয়োগে দরবার করতে যাচ্ছেন রাজ্যে মন্ত্রী ও সাংসদদের একটি দল। বুধবার নবান্নে প্রশাসনিক বৈঠকের পর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, ঘাটাল মাস্টার প্ল্যানের (Ghatal Master Plan) পাশাপাশি দিঘা, সুন্দরবন মাস্টার প্ল্যানের দাবি জানাবে রাজ্য। একইসঙ্গে DVC’র জল ছাড়া নিয়েও নীতি তৈরি করার আবেদন জানােনা হবে রাজ্যের তরফে। এর জন্য দিল্লি যাবেন মন্ত্রী ও সাংসদরা।

Ghatal-Flood-Situation মুখ্যমন্ত্রী (CM Mamata Banerjee) বলেন, “জরুরি ভিত্তিতে একটা মন্ত্রীদের দল পরের সপ্তাহে দিল্লিতে পাঠাচ্ছি সেচমন্ত্রী ও নীতি আয়োগের কাছে। আমাদের চারটি দাবি থাকবে।” মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, ঘাটাল মাস্টার প্ল্যান নিয়ে দীর্ঘ ৪০-৫০ বছর ধরে লড়াই চলছে। আজও করে দিল না। সুন্দরবনে প্রতি বছর ঝড়ঝঞ্ঝায় মানুষ দুর্যোগে পড়ছেন। দিঘা ও সুন্দরবন মাস্টার প্ল্যান হলে সেখানকার মানুষ একটু রেহাই পাবে। আর ঘাটাল মাস্টার প্ল্যান না হলে প্রতি বছরই ডিভিসি জল ছাড়বে আর ঘাটাল ভেসে যাবে।

Advertisement

Ghatal-Flood-Situation

Advertisement

[আরও পড়ুন: রাতের কলকাতায় নিগ্রহের শিকার পানশালার গায়িকা, শ্লীলতাহানির অভিযোগে গ্রেপ্তার ম্যানেজার]

একইসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী দাবি তুলেছেন ডিভিসি (DVC) সংস্কারের। এ নিয়ে আগেও কেন্দ্রকে চিঠি দিয়েছিলেন তিনি। এদিন জানান, ডিভিসির সংস্কার করতে হবে। তেনুঘাট, পাঞ্চেত, মাইথনে ড্রেজিং করা হয় না। ওখানে দু’লক্ষ কিউসেক জল আরও বেশি ধরেত পারে। যে জলটা ছেড়ে দেওয়ায় একানে বন্যা হচ্ছে প্রতি বছর। ওই জল বেশি ধরলে এখানে বন্যা হত না।

DVC

ফরাক্কা ড্রেজিং করার দাবিও তোলেন তিনি। তাঁর বক্তব্য, “আমরা চাই ডিভিসির জল ছাড়া বন্ধ হোক। সরকার এ বিষেয় পলিসি করুক।” মন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্র, মানস ভুঁইয়া, শিউলি সাহা ও জেলার সাংসদরা যাবেন দিল্লি। মুখ্যসচিবের তৈরি করে দেওয়া তথ্য নিয়ে। সেখানে রাজ্য কতবার আবেদন করেছে, কত চিঠি দিয়েছে, তাও থাকবে বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী।

[আরও পড়ুন: রাজ্যে দুগ্ধশিল্প প্রসারে বড় উদ্যোগ, চালু হচ্ছে বাংলার নিজস্ব সংস্থা ‘বাংলা ডেয়ারি’]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ