BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

দু’য়ে দুই ছিল, আঠারোতেও ২! কেন্দ্রীয় নেতাদের আক্ষেপের কথা জানালেন দিলীপ

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: May 31, 2019 6:16 pm|    Updated: May 31, 2019 8:55 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মোদি মন্ত্রিসভায় মোটে ২ জন প্রতিমন্ত্রী পেয়েছে বাংলা। ১৮ জন সাংসদ রাজ্য থেকে যাওয়া সত্ত্বেও মাত্র ২ জন প্রতিমন্ত্রী পাওয়া নিয়ে ক্ষোভ তৈরি হয়েছিল রাজ্য বিজেপির অন্দরেই। অনেকেই বলা শুরু করেছিলেন, রাজ্যকে বঞ্চনা করা হয়েছে। যদিও, দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানালেন, বঞ্চনার কথা ভাবার কোনও কারণ নেই। আগামী দিনে বাংলাকে আরও গুরুত্ব দেওয়া হবে। তবে ২ জন মন্ত্রিত্ব পাওয়ায় বাংলার কর্মীরা যে কিছুটা হতাশ হয়েছেন, সেকথাও কেন্দ্রীয় নেতৃত্বকে জানিয়ে এসেছেন রাজ্য নেতারা।

[আরও পড়ুন: ‘যেন সামনে বাবা বসে রয়েছেন’, মোদি-শাহর আশীর্বাদে আপ্লুত মন্ত্রী দেবশ্রী]

মন্ত্রিসভা নিয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন, “এর আগের মন্ত্রিসভায় শুরুতে বাংলার কোনও মন্ত্রীই ছিল না। এই প্রথম ২টি প্রতিমন্ত্রী পেয়েছে। আগামী দিনে বাংলা আরও গুরুত্ব পাবে।” ব্যক্তিগতভাবে দিলীপ ঘোষের মন্ত্রী হওয়া নিয়েও জল্পনা ছড়িয়েছিল। সে বিষয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে রাজ্য বিজেপি সভাপতি বলেন, “কোনও কথা ছিল না, শুধু একটা জল্পনা ছিল। কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব হয়তো আমাদের যোগ্য মনে করছে না। তাছাড়া, আমাকে মন্ত্রিত্বের প্রস্তাব দেওয়ার কোনও প্রশ্নই ছিল না। কারণ আমি কেন্দ্রীয় নেতৃত্বকে আগে থেকেই জানিয়ে দিয়েছিলাম, আমি সংগঠন করতেই বেশি ভালবাসি।” বিজেপি রাজ্য সভাপতি এদিন ইঙ্গিত দেন, আগামী দিনে বাংলা থেকে আরও সদস্য মন্ত্রিসভায় সুযোগ পাবেন। তাছাড়া, সাংসদ সংখ্যা একলাফে এতটা বাড়া সত্ত্বেও মন্ত্রী সংখ্যা না বাড়ায় রাজ্য নেতৃত্বে যে অসন্তোষ রয়েছে, তা কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কাছে একেবারেই গোপন করেননি মেদিনীপুরের নতুন সাংসদ৷

[আরও পড়ুন: গান্ধী গড় দখল করে নয়া চ্যালেঞ্জ নিতে প্রস্তুত ‘জায়ান্ট কিলার’ স্মৃতি]

তিনি বলেন, “আগেরবার দুইয়ে ২ ছিল। এবার ১৮ তে দুই। এটা কী ঠিক হল? আমরা দলের সাংগঠনিক নেতৃত্বকে একথা জানিয়েছি, রামলালজির সঙ্গে কথা হয়েছে। দিল্লিতে সবাই খুব উচ্ছ্বসিত বাংলার ফলে। অমিত শাহজি নিজে আমাদের স্বাগত জানিয়েছেন। অন্য নেতারাও শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।” সম্প্রতি দলে ‘বেনোজলে’র অনুপ্রবেশ নিয়েও এদিন মুখ খোলেন দিলীপ ঘোষ। তিনি বললেন, “রাজনৈতিক বাধ্যবাধকতা থেকেই অনেককে দলে নিতে হয়। জানি কয়েকজন নেতাকে নিয়ে দলের অনেকের অসন্তোষ আছে। আপনাদেরও আছে, আমারও আছে। সেসব নিয়ে আমরা আলোচনা করব।” সবমিলিয়ে, সাম্প্রতিক প্রেক্ষাপট বদলের নিরিখে একাধিক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে ‘ধরি মাছ, না ছুঁই পানি’ কায়দায় সাংবাদিক সম্মেলন বেশ ভালভাবেই সামলে নিলেন দুঁদে বিজেপি নেতা৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement