BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘যতটা পিঠে সহ্য হয় পেটান, সব ফিরিয়ে দেব’, নাম না করে পুলিশকে হুঁশিয়ারি দিলীপের

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: August 6, 2020 1:20 pm|    Updated: August 6, 2020 1:28 pm

An Images

রূপায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়: ‘চায়ে পে চর্চা’ থেকে ফের আক্রমণাত্মক দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh)। এবার নাম না করে পুলিশকে হুঁশিয়ারি দিয়ে রাজ্য বিজেপির সভাপতি বললেন, “ততটাই পেটান, যতটা পিঠে সহ্য হয়। সব লাল ডায়েরিতে লিখছি। সুদে-আসলে ফেরত দেব।” বিঁধলেন রাজ্য সরকারকেও।

অন্যান্যদিনের মতোই বৃহস্পতিবার সকালে প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে ছিলেন দিলীপ ঘোষ। সেখান থেকে রাজারহাটের (Rajarhat) চাঁদপুরের বিদ্যাধরপুরে ‘চায়ে পে চর্চা’য় যোগ দেন বিজেপি সাংসদ। কর্মীদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি। আলোচনা  করেন রাম মন্দিরের ভূমিপুজো নিয়ে। এরপরই ভূমিপুজো উদযাপনে বাধা প্রসঙ্গে পুলিশের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি। বলেন, “বাধা দেওয়া সত্ত্বেও পুজো করায় বিভিন্ন জায়গায় বিজেপি কর্মীদের মারধর করা হয়েছে। পুলিশ জোর করে তুলে নিয়ে গিয়েছে।” এরপরই উদাসীন কন্ঠে তিনি বলেন, “কী রাজত্ব চলছে! অপরাধীরা ঘুরে বেড়াচ্ছে আর সাধারণ মানুষ রাম মন্দিরের পুজো উদযাপন করছে বলে তাঁদের আক্রমণ করা হচ্ছে।” এরপরই আক্রমণাত্মক ভঙ্গিতে পুলিশকে ইঙ্গিত করে রাজ্য বিজেপির সভাপতি মন্তব্য করেন যে, “পেটাতে থাকুন যতটা সহ্য হয়, লাল ডায়েরিতে সব লিখছি। ফিরিয়ে দেব।”

[আরও পড়ুন: করোনা চিকিৎসায় ECMO’র কামাল, সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলেন ১৩১ কেজি ওজনের যুবক]

এরপরই মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ করেন সাংসদ। বলেন, “মহম্মদ বিন তুঘলকের আত্মা দিদিমণির ওপর ভর করেছে!” রাজ্য সরকার প্রসঙ্গে বললেন, “বাংলায় কংশের রাজত্ব শুরু হয়েছে। তুঘলকের রাজত্ব শুরু হয়েছে। ভাল কাজ করলে পুলিশ মারছে।” প্রসঙ্গত, বুধবার ভূূমিপুজোর দিন পুলিশি বাধার মুখে পড়তে হয়েছে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তের বিজেপি কর্মীদের। বিক্ষিপ্ত অশান্তির ঘটনাও ঘটেছে। তার জেরেই এহেন আক্রমণাত্মক মন্তব্য বলে মনে করা হচ্ছে। তবে বিজেপির রাজ্য সভাপতির মন্তব্যকে খুব একটা গুরুত্ব দিতে নারাজ শাসকদল।  

[আরও পড়ুন: ঘরবন্দি থেকেও নিয়ম মানছেন না রোগীরা, কলকাতার অভিজাত এলাকায় বাড়ছে করোনা সংক্রমণ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement