BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

মৃত্যু নিয়ে অডিট কমিটি কেন? রাজ্যের বিরুদ্ধে হাই কোর্টে মামলা দিলীপের

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: May 1, 2020 8:56 am|    Updated: May 1, 2020 8:56 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এবার রাজ্যের বিরুদ্ধে হাই কোর্টের দ্বারস্থ রাজ্য বিজেপির সভাপতি তথা সাংসদ দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh)। করোনা পরিস্থিতিতে রাজ্যের ভূমিকা নিয়ে একাধিক অভিযোগ তুলে হাই কোর্টে জনস্বার্থ মামলা করেছেন তিনি। মৃত্যুর সংখ্যা জানাতে কেন অডিট কমিটি গঠন, তা নিয়েও ফের প্রশ্ন তুলেছেন বিজেপি সাংসদ।

করোনা আতঙ্ক ত্রস্ত দেশ। একমাসেরও বেশি সময় ধরে ঘরবন্দি মানুষ। এই পরিস্থিতিতেও বারবার বিজেপির বাক্যবাণে বিদ্ধ হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। করোনা নিয়ে রাজনীতি করছেন মুখ্যমন্ত্রী, একাধিকবার এই অভিযোগই তুলেছেন বিরোধীরা। অডিট কমিটি গঠন থেকে ত্রাণ বিলিতে বাধা, সমস্ত ঘটনাই রাজনৈতিক স্বার্থে পরিকল্পনামাফিক করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন দিলীপ-মুকুলরা। তথ্য গোপনের অভিযোগও তোলেন তাঁরা। এই পরিস্থিতিতে মুখ্যমন্ত্রী সাফ জানিয়েছিলেন, “এটা রাজনীতির সময় নয়।” পাশাপাশি, অন্যেরা যাতে এখন রাজনীতি না করেন, সেই অনুরোধও করেছিলেন। পরামর্শ দিয়েছিলেন সহযোগিতার হাত বাড়ানো। সেই বাকযুদ্ধের আবহেই দিলীপ স্পষ্ট করে দিয়েছিলেন, যেখানে ত্রাণ দেওয়ার সুযোগই পাচ্ছেন না বিজেপির নেতা-কর্মীরা, সেখানে কোনওরকম সহযোগিতা কার্যত অসম্ভব। 

[আরও পড়ুন: করোনা আক্রান্তের দেহ সৎকার করতে গিয়ে ধুন্ধুমার, উন্মত্ত জনতার রোষের শিকার পুলিশ]

এরপরই আদালতের দ্বারস্থ দিলীপ। সূত্রের খবর, হাইকোর্টে করা মামলায় ফের রাজ্যের বিরুদ্ধে তথ্য গোপনের অভিযোগ করা হয়েছে। মৃতের সংখ্যা প্রকাশে অডিট কমিটি গঠনের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়েছে। ফ্রন্টলাইনের যোদ্ধা পুলিশদেরও পিপিই দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন সাংসদ। এছাড়াও কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন ও আদালতের পর্যবেক্ষণে কমিটি গঠনের দাবিও তোলেন তিনি। প্রসঙ্গত, কিছুদিন আগেই করোনা নিয়ে রাজনীতি করছেন মুখ্যমন্ত্রী, এই অভিযোগ তুলে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়ের ( Jagdeep Dhankhar) দ্বারস্থ হয়েছিলেন দিলীপ ঘোষ, মুকুল রায়-সহ বিজেপির শীর্ষ নেতারা। সেখানেও তথ্যগোপনের অভিযোগেই সরব হয়েছিল গেরুয়া শিবির। 

[আরও পড়ুন: করোনা সন্দেহভাজনকে আনতে গিয়ে প্রহৃত অ্যাম্বুল্যান্স চালক, কাঠগড়ায় পরিজনরা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement