×

২ চৈত্র  ১৪২৫  সোমবার ১৮ মার্চ ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
নিউজলেটার

২ চৈত্র  ১৪২৫  সোমবার ১৮ মার্চ ২০১৯ 

BREAKING NEWS

রূপায়ন গঙ্গোপাধ্যায়: ‘পার্লামেন্টে প্রতিনিধিত্ব করার মতো সত্যিই আমাদের তেমন প্রার্থী নেই’৷ সাংবাদিক সম্মেলনে এমনই স্বীকারোক্তি শোনা গেল রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষের মুখে৷ তিনি মেনে নিলেন, পার্লামেন্টে প্রতিনিধিত্ব করার মতো যোগ্য প্রার্থীর অভাব রয়েছে রাজ্য বিজেপিতে৷ আর সেকারণেই অন্য দল থেকে ভাঙিয়ে নিয়ে আসতে হচ্ছে৷ পাশাপাশি রাজ্যের শাসকদলকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে তিনি বলেন, ‘নমিনেশনের পর হবে আসল অ্যাকশন’৷

[৪২ লোকসভা কেন্দ্রপিছু মিনি ইস্তাহার, ভাবনা বিজেপির]

বাংলাকে অতি স্পর্শকাতর ঘোষণার দাবিতে দিন কয়েক আগেই জাতীয় নির্বাচন কমিশনে গিয়েছিল বিজেপির প্রতিনিধি দল৷ যা নিয়ে বিজেপির তীব্র ভর্ৎসনা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ গেরুয়া শিবিরের এই দাবির সমালোচনা করে শুক্রবার ধরনাতেও বসেছে তৃণমূলের মহিলা সংগঠন৷ এদিন মুখ্যমন্ত্রীকে পালটা দেন দিলীপ ঘোষ৷ তিনি বলেন, ‘বিরোধী আসনে থাকার সময় বর্তমান মুখ্যমন্ত্রীও বাংলাকে স্পর্শকাতর ঘোষণার দাবি করেছিলেন৷ সেই চিঠি এখনও আমাদের কাছে রয়েছে৷ বিরোধী থাকার সময় উনি সবকিছুতেই সিবিআই তদন্ত চাইতেন৷ তবে আজ কেন ভয় পাচ্ছেন?’ রাজ্যের শাসকদলের সমালোচনা করে দিলীপ ঘোষ আরও বলেন, ‘মানুষের ভোটকে ভয় পাচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ সেকারণেই দুটো কর্পোরেশন ও বেশ কিছু পুরসভার ভোট পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে৷ ডিসেম্বরে হওয়ার কথা থাকলেও তা এখনও হয়নি৷ মানুষের মতাধিকারকে ভয় পাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ তাঁর বিরুদ্ধে এবার বাংলার মানুষ চাইছে ভোট হোক৷ অপমানের অজুহাত দিয়ে বাংলার মানুষকে ভোট দেওয়া থেকে বিরত রাখতে চাইছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ ’

[ফের সিভিক ভলান্টিয়ারদের দাদাগিরি, আক্রান্ত মাছ ব্যবসায়ী ]

জানা গিয়েছে, মহিলা তৃণমূল কংগ্রেসের ধরনা কর্মসূচির পালটা ধরনায় কৌশল নিয়েছে বিজেপিও৷ গেরুয়া শিবিরের নেতাদের মিথ্যা মামলায় ফাঁসাচ্ছে রাজ্য সরকার৷ এই অভিযোগে শুক্রবার গান্ধী মূর্তির পাদদেশে অবস্থান বিক্ষোভে বসতে চলেছে বিজেপির প্রাক্তন আইপিএসদের সেল৷ এদিন সেই বিক্ষোভস্থলে যাওয়ার কথা রয়েছে রাজ্য বিজেপি সভাপতি, প্রাক্তন আইপিএস ভারতী ঘোষ ও বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসুর৷ সূত্রের খবর, লোকসভা নির্বাচনের প্রচারে এপ্রিলের শুরু থেকেই রাজ্যে আসবেন মোদি, অমিত শাহ ও যোগী আদিত্যনাথ। কুড়িটিরও বেশি নির্বাচনী জনসভা করবেন তাঁরা। ইতিমধ্যে এই সভার প্রস্তাব কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কাছে পাঠিয়েছে বঙ্গ বিজেপি।

[শুক্রবারও বৃষ্টির ভ্রুকুটি, আকাশ অংশত মেঘলা শহরে]

কেন্দ্রের বিরুদ্ধে বঞ্চনার অভিযোগ বিভিন্ন জনসভায় সরব হতে দেখা গিয়েছে মুখ্যমন্ত্রীকে৷ এদিন মুখ্যমন্ত্রীর সমস্ত অভিযোগ তথ্য-প্রমাণ পেশ করে ওড়ানোর চেষ্টা করেন দিলীপ ঘোষ৷ তিনি দাবি করেন, রাজ্যের একাধিক প্রকল্পে বরাদ্দ বাড়িয়েছে কেন্দ্র৷ একশো দিনের কাজে বরাদ্দ বেড়েছে৷ উজ্জ্বলা যোজনায় অনেকেই উপকৃত হয়েছেন৷ তবে কেন্দ্রের বরাদ্দ টাকা খরচ করতে পারেনি এরাজ্যের সরকার৷ সদ্য গেরুয়া শিবিরে যোগ দেওয়া সৌমিত্র খাঁ, খগেন মুর্মু, দুলাল বরদের নিয়ে এদিন রাজ্য দপ্তরে বৈঠকে বসেন দিলীপ ঘোষ, মুকুল রায়-সহ শীর্ষ নেতৃত্ব। সূত্রের খবর, সেখানে লোকসভার রণকৌশল আলোচনার পাশাপাশি, তৃণমূল-সহ অন্য দল ভাঙানো নিয়ে আলোচনা হয়৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং