BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

কর্মসূত্রে বাইরে স্বামী ও সন্তানরা, কলকাতার ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার বৃদ্ধার পচাগলা দেহ

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: August 13, 2020 8:54 am|    Updated: August 13, 2020 1:32 pm

An Images

অর্ণব আইচ: ফের কলকাতার (Kolkata) অভিজাত আবাসন থেকে উদ্ধার একাকী বৃদ্ধার পচাগলা দেহ। বুধবার সকাল থেকেই ওই ফ্ল্যাট থেকে পচা গন্ধ পাচ্ছিলেন প্রতিবেশীরা। খবর পেয়ে রাতে হরিদেবপুর (Haridevpur) থানার পুলিশ গিয়ে দরজা ভেঙে উদ্ধার করে বৃদ্ধার দেহ।

কলকাতার দক্ষিণ শহরতলির জোকার একটি অভিজাত আবাসনে থাকতেন আরতি মিশ্র নামে যাটোর্ধ্ব ওই বৃদ্ধা। তাঁর ছেলে, মেয়ে কর্মসূত্রে থাকতেন মুম্বইয়ে। স্বামীও থাকতেন বাইরে। ফলে জোকার ফ্ল্যাটে একাই থাকতেন আরতীদেবী। নিজের কাজ নিজেই করতেন। জানা গিয়েছে, গত তিনদিন ধরে প্রতিবেশীরা বৃদ্ধার কোনও সাড়াশব্দ পাচ্ছিলেন না। যেহেতু আরতীদেবী নিজের মতো থাকতে ভালবাসতেন, তাই কেউ তাঁকে বিরক্ত করেননি। তবে বুধবার সকাল থেকে পচা গন্ধ বের হতেই ফ্ল্যাটের অন্যান্য বাসিন্দাদের মনে সন্দেহ দানা বাঁধে। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বাড়তে থাকে গন্ধের তীব্রতা। এরপর সন্ধেয় আবাসনের নিরাপত্তারক্ষীরা হরিদেবপুর থানায় খবর দেন।

[আরও পড়ুন: রাজ্যে ফের একদিনে করোনা আক্রান্ত ২৯০০-র বেশি মানুষ, কলকাতায় মোট সংক্রমিত প্রায় ৩০ হাজার]

পুলিশ গিয়ে ফ্ল্যাটের দরজার লক ভেঙে ভিতরে ঢুকে দেখে, ঘরের মধ্যে পড়ে রয়েছে বৃদ্ধার পচাগলা দেহ। পুলিশ জেনেছে, মাঝে মাঝে স্বামী ও ছেলে-মেয়ের সঙ্গে কথা হতো বৃদ্ধার। পলিশের ধারণা, গত কয়েকদিন কেউ তাঁকে ফোন করেননি। কয়েকজন প্রতিবেশী পুলিশকে জানিয়েছেন, একা থাকতে থাকতে তিনি অবসাদে ভুগছিলেন। যদিও কীভাবে মৃত্যু রয়েছে, ময়নাতদন্তের পরই তা বোঝা যাবে। মহিলার স্বামী ও সন্তানদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। প্রসঙ্গত, কিছুদিন আগেই টালিগঞ্জের (Tollygunge) রানি ভবানি রোডের  বাড়ি থেকে উদ্ধার হয় এক বৃদ্ধার পচাগলা দেহ। তাঁর ছেলে আমেরিকায় কর্মরত। সেক্ষেত্রেও প্রতিবেশীরাই বাড়ি থেকে পচা গন্ধ পেয়ে খবর দিয়েছিলেন থানায়। এরপরই উদ্ধার হয় বৃদ্ধার দেহ।  

[আরও পড়ুন: স্বাধীনতা দিবসে রাজ্যের ৭ পুলিশ আধিকারিককে পুরস্কৃত করবে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement