১১ মাঘ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ২৫ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

পুরসভাকে জানিয়েও মেলেনি সুরাহা, বাড়ির ফ্রিজে ২ দিন পড়ে রইল করোনা রোগীর লাশ

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: July 1, 2020 12:06 pm|    Updated: July 1, 2020 12:13 pm

Body of the patient affected by corona remained in the fridge

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটল ডেস্ক: একাধিকবার পুরসভা ও স্বাস্থ্যভবনকে জানিয়েও দেহ সংরক্ষণের জন্য কোনও সহযোগিতাই মেলেনি। আর সেই কারণে মৃত্যুর পর ২ দিন ধরে বাড়ির ফ্রিজে পড়ে রইল করোনায় (Corona Virus) মৃত ব্যক্তির দেহ! চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে কলকাতার আমর্হাস্ট স্ট্রিট (Amherst Street) এলাকায়।

জানা গিয়েছে, করোনার একাধিক উপসর্গ ছিল আমর্হাস্ট স্ট্রিটের একটি আবাসনের বাসিন্দা ওই ব্যক্তির। সোমবার দুপুর তিনটেয় বাড়িতেই মৃত্য হয় তাঁর। পারিবারিক ডাক্তার এসে ব্যক্তিকে মৃত বলে ঘোষণা করার পর নমুনা পরীক্ষার পরামর্শ দেন। পাশাপাশি তিনিই বলেন রিপোর্ট আসা পর্যন্ত দেহটি সংরক্ষণের ব্যবস্থা করতে। সেই মতোই পদক্ষেপ নেয় পরিবার। পরিবারের তরফে প্রথমে থানায় যোগাযোগ করা হয়। তাতে কোনও লাভ না মেলায় পুরসভা এবং স্বাস্থ্যভবনের দ্বারস্থও হন তাঁরা। কিন্তু না, আশার আলো দেখাননি কেউই। সোমবার সারাদিন বাড়িতেই পড়ে থাকে দেহ।

[আরও পড়ুন: Get Well Soon! তিক্ততা ভুলে নাইসেড অধিকর্তাকে ফুলের তোড়া পাঠালেন মমতা]

উপায় না পেয়ে মঙ্গলবার একটি ফ্রিজের ব্যবস্থা করেন পরিবারের সদস্যরা। সেখানেই রাখা হয় দেহ। এদিন রাতে রিপোর্ট পাওয়ার পর জানা যায়, মৃত করোনা পজিটিভ। এরপর নিয়ম মেনে ফের স্বাস্থ্যভবনে যোগাযোগের চেষ্টা করে পরিবার। কিন্তু তখনও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। পরে বুধবার সকালে যোগাযোগ করা সম্ভব হলে খবর যায় কলকাতা পুরসভায়। এরপরই দেহ নেওয়ার উদ্যোগ শুরু হয়। কিন্তু কেন এভাবে ভোগান্তির শিকার হতে হল ওই পরিবারকে? প্রশ্ন তুলছেন সাধারণ মানুষ।

মৃতের পরিবারের সদস্যদের কথায়, “দুদিন ধরে চোখের সামনে দেহ পড়ে রয়েছে। কিছুই করতে পারিনি। সকলের কাছে গিয়েছি আমরা। অসহায় লাগছে।” মৃতের এক আত্মীয়ের কথায়, “মৃত্যুর পর আমরা থানায় যাই। তারা বলেন স্বাস্থ্যভবনে যোগাযোগ করুন। চেষ্টাও করি, কিন্তু হেল্পলাইন নম্বরে যোগাযোগ করা যায়নি। সংরক্ষণ কেন্দ্রের সঙ্গেও যোগাযোগ করি, কিন্তু তাঁরাও এই দেহ নিতে চায়নি।”

[আরও পড়ুন: আনলক ২-এর শুরুতেই ভক্তদের জন্য খুলে গেল কালীঘাট মন্দির, জেনে নিন প্রবেশের নিয়ম]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে