Advertisement
Advertisement
Suvendu Adhikari

শুভেন্দুর অফিস এবং বাড়িতে তল্লাশিতে অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশ হাই কোর্টের

কোলাঘাটে শুভেন্দুর অফিস এবং বাড়িতে তল্লাশিতে অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশ জারি করল হাই কোর্ট। কোলাঘাট থানায় দায়ের হওয়া FIR-এর উপর অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশ জারি করলেন বিচারপতি অমৃতা সিনহা। আগামী ১৭ জুন পর্যন্ত তদন্তে স্থগিতাদেশ জারি করা হয়েছে। এই সময়ের মধ্যে তদন্তের ক্ষেত্রে প্রয়োজনে আদালতের নির্দেশ নিতে হবে। আগামী ১১ জুন এই মামলার পরবর্তী শুনানি। 

Calcutta HC stays order to search Suvendu Adhikari's office
Published by: Sayani Sen
  • Posted:May 24, 2024 3:17 pm
  • Updated:May 24, 2024 6:02 pm

গোবিন্দ রায়: কোলাঘাটে শুভেন্দুর অফিস এবং বাড়িতে তল্লাশিতে অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশ জারি করল হাই কোর্ট। কোলাঘাট থানায় দায়ের হওয়া FIR-এর উপর অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশ জারি করলেন বিচারপতি অমৃতা সিনহা। আগামী ১৭ জুন পর্যন্ত তদন্তে স্থগিতাদেশ জারি করা হয়েছে। এই সময়ের মধ্যে তদন্তের ক্ষেত্রে প্রয়োজনে আদালতের নির্দেশ নিতে হবে। আগামী ১১ জুন এই মামলার পরবর্তী শুনানি। 

গত মঙ্গলবার বিকেলে আচমকাই কোলাঘাটের বাড়িতে পুলিশ হানা দেয়। কমপক্ষে ৭০-৮০ জন তাঁর বাড়িতে জোর তল্লাশি চালায়। পুলিশের দাবি, তাঁর বাড়িতে এক দুষ্কৃতী আশ্রয় নিয়েছে। সে কারণে পুলিশ যায়। এদিকে, পুলিশি হানায় উত্তেজিত হয়ে পড়েন বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা। পুলিশের সঙ্গে বচসা বাঁধে। এই ঘটনার পরই কলকাতা হাই কোর্টের দ্বারস্থ হন শুভেন্দু অধিকারী(Suvendu Adhikari)।

Advertisement

[আরও পড়ুন: বিজেপি নেতার কাছ থেকে টাকা উদ্ধার, প্রশাসনকে বিশেষ অনুরোধ মমতার]

এদিন শুভেন্দুর আইনজীবী দাবি করেন, নির্বাচনের সময় হেনস্তার জন্য শুভেন্দুর বাড়িতে হানা দেয় পুলিশ। যদিও পুলিশের তরফে জানানো হয়, শুভেন্দুর নামে ভাড়া বাড়িটি ভাড়া নেওয়া বলেই জানা ছিল। আদতে ওই বাড়ির মালিক সুরজিৎ দাস। ওই বাড়িতে প্রচুর পরিমাণ আগ্নেয়াস্ত্র লুকনো রয়েছে বলেই জানতে পারে পুলিশ। সে কারণেই তল্লাশিতে যান তদন্তকারীরা।

Advertisement

যদিও দুপক্ষের আইনজীবীর কথোপকথনে বিরক্ত হন বিচারপতি অমৃতা সিনহা। তিনি বলেন, “অভিযোগ পেয়েই পুলিশ চলে গেল? অনুসন্ধান করবেন না? কটি ক্ষেত্রে পুলিশ অভিযোগ পেয়েই চলে যায়?” তীব্র ভর্ৎসনার পর আগামী ১১ জুন পর্যন্ত তল্লাশির উপর অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশ জারি করে কলকাতা হাই কোর্ট। এই সময়ের যদি তল্লাশির প্রয়োজন হয় তবে সেক্ষেত্রে পুলিশকে আদালতের কাছ থেকে অনুমতি নিতে হবে বলেই জানায় আদালত।

[আরও পড়ুন: স্ত্রীর গর্ভে ছেলে না মেয়ে, জানতে পেট কেটেছিল স্বামী! আজীবন কারাবাসের দণ্ড আদালতে]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ