২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৬ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

সিবিআইয়ের নজরে গরুপাচার কাণ্ড, কলকাতা-সহ রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে জারি তল্লাশি

Published by: Sayani Sen |    Posted: September 23, 2020 3:39 pm|    Updated: September 23, 2020 3:41 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:  এবার সিবিআইয়ের নজরে গরুপাচার (Cow smuggling) কাণ্ড। কলকাতা-সহ রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে চলছে তল্লাশি। বুধবার সকাল থেকে অভিযান চলছে রাজারহাট, সল্টলেক, তপসিয়ায়। এছাড়াও মুর্শিদাবাদের বহরমপুর, লালগোলা এবং শিলিগুড়ি-সহ বিভিন্ন জায়গায়।

গোপন সূত্রে মারফত গরুপাচার ইস্যুতে আগেই তথ্য সংগ্রহ করেছিল সিবিআই (CBI)। সেই অনুযায়ী বুধবার সকাল থেকেই কলকাতা-সহ রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে চলছে ম্যারাথন তল্লাশি অভিযোগ। সল্টলেকের সিটি সেন্টার টু’র পাশেই বিএসএফের কমান্ড্যান্ট সতীশ কুমারের বাড়িতেও চলছে তল্লাশি। বর্তমানে ওই বিএসএফ কমান্ড্যান্ট কর্মসূত্রে কর্ণাটকে থাকেন। তবে সূত্রের খবর, এর আগে সীমান্ত এলাকায় কাজ করতেন তিনি। সেই সময় গরু পাচারের ক্ষেত্রে নানাভাবে সাহায্য করেছিলেন সতীশ কুমার। তাঁর বাড়ি থেকে ইতিমধ্যেই বেশ কিছু নথিপত্র সংগ্রহ করা হয়েছে। যা তদন্তে নতুন ককে দিশা দেখাতে পারবে বলেই আশা তদন্তকারীদের।

[আরও পড়ুন: ক্যাফেতে বোমাবাজি-গুলি, কচুরিপানা ভরা পুকুরে লুকিয়েও শেষরক্ষা হল না অভিযুক্তদের]

এছাড়াও তদন্তকারীদের হিটলিস্টে রয়েছে মুর্শিদাবাদের বাসিন্দা ইমানুল এবং ম্যাথিউ নামে আরও এক বিএসএফ কমান্ড্যান্ট। ইতিমধ্যেই সিবিআই ম্যাথিউ এবং ইমানুলকে গ্রেপ্তার করেছিল সিবিআই। তবে বর্তমানে ইমানুল ছাড়া পেয়ে গিয়েছে। সিবিআই সূত্রে খবর, ৪৫.৫ লক্ষ টাকা ইমানুল ম্যাথিউকে দিয়েছিল। তাদের মুখোমুখি জেরা করে আরও নানা তথ্য পাওয়া যেতে পারে বলেই মনে করছেন তদন্তকারীরা। সিবিআই ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকজনকে জেরা করে তথ্য সংগ্রহ করেছে। এই ঘটনায় আরও কে কে জড়িত তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

[আরও পড়ুন: ‘পুরভোট যখনই হোক, তৃণমূল তৈরি’, বিরোধীদের কড়া বার্তা আত্মবিশ্বাসী ফিরহাদের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement