BREAKING NEWS

৯ কার্তিক  ১৪২৮  বুধবার ২৭ অক্টোবর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

কলকাতা-হাওড়ার পর বিধাননগর, করোনা রোগী শনাক্তকরণে শুরু বাড়ি গিয়ে নমুনা সংগ্রহ

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: May 16, 2020 6:57 pm|    Updated: May 16, 2020 7:00 pm

Collection of blood sample from home for Corona test started at Bidhannagar area

কলহার মুখোপাধ্যায়, বিধাননগর: করোনা আক্রান্তকে শনাক্ত করতে বাড়ি বাড়ি নমুনা সংগ্রহের কাজ শুরু হয়ে গেল বিধাননগরেও। প্রথম পর্যায়ে প্রায় ষাট জনের নমুনা জোগাড় করে, তা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। এই কাজ ধারাবাহিকভাবে চলবে। এই পর্যায়ে বিধাননগর পুরনিগমের ৬ নম্বর ওয়ার্ড থেকে মূলত নমুনা নেওয়া হয়েছে। এই ওয়ার্ডে করোনা আক্রান্ত এবং সন্দেহভাজনদের সংখ্যা সবথেকে বেশি। এর পাশাপাশি যে সব ওয়ার্ডগুলিতে আক্রান্তের সন্ধান মিলেছে, সেখান থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হবে দ্বিতীয় পর্যায়ে। তারপর ধাপে ধাপে বিধাননগরের প্রতিটি ওয়ার্ডে এই কাজ চালানো হবে।

বিধাননগর পুরসভার মেয়র পারিষদ (স্বাস্থ্য) প্রণয়কুমার রায় জানিয়েছেন, “৬ নং ওয়ার্ড থেকে ৫৮ জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। দু-একদিনের মধ্যে রিপোর্ট আসবে৷” পুরনিগমের স্বাস্থ্য বিভাগের দাবি, এর আগে বাড়ি বাড়ি গিয়ে সকলের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হচ্ছিল। এখন নমুনা সংগ্রহ করা শুরু হওয়ার পর অবস্থার উন্নতি ঘটবে। উল্লেখ্য, বিধাননগরেও ধীরে ধীরে করোনা মাথাচাড়া দেওয়ায় কলকাতা, হাওড়ার মতো বাড়ি বাড়ি নমুনা সংগ্রহ প্রক্রিয়া চালু করতে চেয়ে রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের কাছে অনুমতি চেয়েছিল বিধাননগর। সবুজ সংকেত আসার পর এখানকার নমুনা সংগ্রহকারী কর্মীদের আর জি কর হাসপাতালে বিশেষ প্রশিক্ষণও দেওয়া হয়। তারপর বাড়ি বাড়ি গিয়ে নমুনা সংগ্রহের কাজ শুরু হয়৷

[আরও পড়ুন: লকডাউনে বাড়ছে বাস ভাড়া! আমজনতার দুশ্চিন্তা দূর করে সিদ্ধান্ত জানালেন পরিবহণ মন্ত্রী]

বিধাননগরের মধ্যে যে কয়েকটি জায়গায় করোনা ভাইরাসের ছোবল সর্বাধিক, তার মধ্যে অন্যতম ৬ নং ওয়ার্ড। তাই এখান থেকেই প্রথমে নমুনা সংগ্রহের কাজ শুরু হল। এরপরে ৯, ১৭, ৩৬, ৩৩ নং সহ করোনা কবলিত সব ওয়ার্ডেই এভাবে নমুনা সংগ্রহ করা হবে বলে প্রণয়বাবু জানিয়েছেন। মূলত ওই ওয়ার্ডগুলি যে বা যাঁরা করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, তাঁর বাড়ির আশেপাশে থাকা এবং সংস্পর্শে আসা ৩০ জনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হবে।

[আরও পড়ুন: রবিবার থেকে হুগলিতে স্বাভাবিক হবে ইন্টারনেট পরিষেবা, হাই কোর্টে জানাল রাজ্য]

এছাড়াও আশা কর্মীরা বাড়ি বাড়ি ঘুরে যে তথ্য সংগ্রহ করেছে, সেই তথ্যের ভিত্তিতে কারও মধ্যে কোনও উপসর্গ থাকলেই, তাঁর নমুনা নেওয়া হবে। সূত্রের খবর, প্রতি ওয়ার্ড থেকে ৭৯ থেকে ৯০ জনের নমুনা পরীক্ষা করতে পাঠানো হবে। পরবর্তী পর্যায়ে Containment Zone চিহ্নিতকরণ এবং করোনা আক্রান্ত কেউ রোগ গোপন করে বাড়িতে বসে রয়েছে কি না, তা নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে এই পদ্ধতি খুবই সাহায্য করবে বলেই পুরকর্তাদের মত।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement