BREAKING NEWS

৪ মাঘ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ১৮ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

ধারের টাকা ফেরত চেয়ে হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজ, সাইবার জালিয়াতদের নয়া ফাঁদ কলকাতায়!

Published by: Suparna Majumder |    Posted: November 29, 2021 9:19 pm|    Updated: November 29, 2021 9:19 pm

Cyber Alert: people are receiving WhatsApp messages asking them to repay loans, Kolkata Police alerts | Sangbad Pratidin

ছবি: প্রতীকী

অর্ণব আইচ: ঋণের টাকা চটজলদি ফেরত পেতে রীতিমতো হুমকি দিয়ে হোয়াটসঅ্যাপে আসছে মেসেজ। আবার কিছু সুবিধা দেওয়া হবে বলেও টোপ দেওয়া হচ্ছে। আর এই মেসেজের লিংকে ক্লিক করলেই বিপদ। গোয়েন্দাদের অভিযোগ, কেউ ওই লিংকে ক্লিক করলেই ‘হ্যাক’ করে মোবাইলের যাবতীয় তথ্য কেড়ে নেবে সাইবার জালিয়াতরা। তাদের এই ধরনের কার্যকলাপ জানতে পেরেছেন লালবাজারের (Lalbazar) গোয়েন্দারা। ইতিমধ্যেই কলকাতার বহু বাসিন্দা এই ধরনের মেসেজ পেয়েছেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় গোয়েন্দা পুলিশ সতর্ক করেছেন শহরবাসীকে।

Kolkata Police Tweet
পুলিশ জানিয়েছে, যে হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজ বিভিন্ন ব্যক্তির মোবাইলে আসছে, তাতে বলা থাকছে, কেন তিনি এখনও তাঁর ঋণ মেটাননি? সন্ধ্যা সাতটার মধ্যে যদি ঋণ না মেটানো হয়, তবে তাঁকে ‘জাতীয় কালোতালিকাভুক্ত’ করা হবে। উপরন্তু তাঁর কত ঋণ বাকি আছে, সেই তথ্য ‘আপলোড’ করে জানানো হবে তাঁর পরিবার ও বন্ধুদের। ভবিষ্যতে তাঁর ঋণগুলি অবৈধ বলে ঘোষণা করা হবে। কোনও ঋণদাতা সংস্থা অথবা ব্যাংক তাঁকে সমর্থন করবে না। ফলে ভবিষ্যতে প্রয়োজন হলেও তিনি ঋণ পাবেন না। তবে ওই লিংকের মাধ্যমে ঋণের টাকা ফেরত দিলে তিনি ফের ঋণ পাবেন। এখন ঋণের পরিমাণ যত, তার থেকে ১০ বা ১৫ হাজার টাকা বেশিই পাবেন তিনি। তুলনামূলকভাবে বেশি দিন ধরে তিনি ফেরত দিতে পারবেন ওই টাকা। ওই মেসেজের নিচে দেওয়া রয়েছে লিংক। তাতে ক্লিক করলেই ঋণ সংক্রান্ত সমস্যার সমাধান হবে বলে মনে করছেন অনেকেই।

[আরও পড়ুন: BJP CANDIDATE LIST: কলকাতা পুরভোটে ১৪৪ ওয়ার্ডে প্রার্থী ঘোষণা বিজেপির, প্রাধান্য মহিলা ও তরুণদের]

লালবাজারের এক পুলিশকর্তা জানান, গোয়েন্দা পুলিশের পক্ষ থেকে লিংকটি পরীক্ষা করা হয়েছে। সেটি যে সাইবার জালিয়াতদের পাঠানো, তা নিয়ে তাঁদের সন্দেহ নেই। জালিয়াতদের পাঠানো ওই লিংকে ক্লিক করতেই তার মাধ্যমে মোবাইলে একটি ‘ম্যালওয়্যার’ ডাউনলোড হয়ে যাবে। ওই ‘ম্যালওয়্যার’এর মাধ্যমেই সাইবার জালিয়াত মোবাইল ‘হ্যাক’ করে তা সম্পূর্ণ নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে নেবে।

এরপর নিজেদের ইচ্ছামতো মোবাইল ব্যবহার করে নিয়ে নেবে তাঁর ব্যাংকের তথ্য। তাঁর ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে হাতিয়ে নেবে টাকা। ওই পুলিশকর্তার দাবি, ইতিমধ্যে শহরবাসীদের অনেকে এই হুমকির মেসেজ পেয়েছেন। যদিও এখনও পর্যন্ত কেউ  কলকাতার কোনও থানা বা লালবাজারে এই সম্পর্কিত অভিযোগ জানাননি। কলকাতার কোনও বাসিন্দাই যাতে এই ধরনের ভুল না করেন, তাই পুলিশের পক্ষে প্রচার শুরু হয়েছে। এই প্রচার লাগাতার চলবে বলে জানিয়েছে পুলিশ (Kolkata Police)।

[আরও পড়ুন: প্রণয়ঘটিত সম্পর্কে টানাপোড়েনের জের! সেন্ট জেভিয়ার্সের পড়ুয়ার উপর হামলা, উত্তেজনা সোদপুরে]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে