BREAKING NEWS

৮ শ্রাবণ  ১৪২৮  রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

রাজ্যে ফের চালু হচ্ছে ‘দুয়ারে সরকার’ শিবির, ‘লক্ষ্মীর ভাণ্ডার’ সূচনার দিন ঘোষণা মমতার

Published by: Sayani Sen |    Posted: July 22, 2021 4:07 pm|    Updated: July 22, 2021 6:29 pm

Duare Sarkar camp to be held on August 15 and 16, announces CM Mamata Banerjee । Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আবারও রাজ্যে চালু হতে চলেছে ‘দুয়ারে সরকার’ (Duare Sarkar) ক্যাম্প। আগামী ১৬ আগস্ট থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ফের ওই ক্যাম্পের মাধ্যমে একাধিক প্রকল্পের সুবিধার জন্য আবেদন করতে পারবেন আমজনতা। বৃহস্পতিবার নবান্নে সাংবাদিক বৈঠক করে সেকথা জানান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিকে, আগামী ১ সেপ্টেম্বর থেকে ‘লক্ষ্মীর ভাণ্ডার’ প্রকল্পের সুবিধা পাওয়া যাবে বলেও ঘোষণা করেন তিনি।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (CM Mamata Banerjee) এদিন জানান, “১ সেপ্টেম্বর থেকেই ‘লক্ষ্মীর ভাণ্ডার’ প্রকল্পের সুবিধা পাওয়া যাবে। কিন্তু তার আগে আবেদনপত্র জমা নিতে হবে। সেই আবেদনপত্র নেওয়ার জন্য ফের ‘দুয়ারে সরকার’ শিবিরের আয়োজন করা হবে। আগামী ১৬ আগস্ট থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত আবারও রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে ‘দুয়ারে সরকার’ শিবির চলবে।” সেখানে ‘লক্ষ্মীর ভাণ্ডার’, ‘স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড’, ‘স্বাস্থ্যসাথী’ প্রকল্পে নাম নথিভুক্তকরণ, জাতি শংসাপত্র-সহ একাধিক প্রকল্পের সুবিধা পাওয়ার জন্য আগ্রহীরা আবেদনপত্র জমা দিতে পারবেন।

[আরও পড়ুন: বালি মাফিয়াদের রুখতে বড় পদক্ষেপ মুখ্যমন্ত্রীর, তৈরি হচ্ছে নতুন Sand Mining Policy]

‘লক্ষ্মীর ভাণ্ডার’ প্রকল্পের মাধ্যমে তফসিলি ও আদিবাসী মহিলাদের মাসে ১০০০ টাকা এবং জেনারেল বা সাধারণ মহিলারা মাসে ৫০০ টাকা করে পাবেন। ‘দুয়ারে সরকার’ শিবিরে গিয়ে আবেদন করা যাবে। যাঁদের স্বাস্থ্যসাথী কার্ড আছে তা দেখালেও হবে। তবে তাঁদের ‘দুয়ারে সরকার’ শিবিরে একটি দরখাস্ত নিয়ে যেতে হবে। ন্যূনতম ২৫ থেকে ৬০ বছর বয়সি প্রত্যেক মহিলা এই প্রকল্পের সুবিধা পাবেন। তবে যাঁরা পেনশনভোগী তাঁরা ‘লক্ষ্মীর ভাণ্ডার’ প্রকল্পের সুবিধা পাবেন না। 

চলতি বছরের হাইভোল্টেজ বিধানসভা নির্বাচনের (Assembly Election 2021) আগে ‘দুয়ারে সরকার’ শিবিরের কথা ঘোষণা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। খাদ্যসাথী, স্বাস্থ্যসাথী, জাতিগত শংসাপত্র দান, শিক্ষাশ্রী, কন্যাশ্রী, রূপশ্রী, ঐক্যশ্রী, জয় জহর, ১০০ দিনের কাজ-সহ মোট ১০টি প্রকল্পকে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়। এই সব প্রকল্পগুলি সম্পর্কে অভাব-অভিযোগ শুনতে গ্রামীণ ও পুরসভা এলাকায় শিবির করার কথা জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। মাত্র কয়েকদিনের মধ্যে ব্যাপক সাফল্য পেয়েছিল ‘দুয়ারে সরকার’ শিবির। তৃতীয়বার বিপুল ভোট পেয়ে মসনদ দখলের নেপথ্যে ‘দুয়ারে সরকার’ শিবিরের যথেষ্ট প্রভাব ছিল বলেও দাবি রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের। ওয়াকিবহাল মহলের মতে, সেকথা মাথায় রেখেই আবারও ‘দুয়ারে সরকার’ শিবির চালুর সিদ্ধান্ত রাজ্য সরকারের।

দেখুন ভিডিও:

 

[আরও পড়ুন: ধর্ষণের অভিযোগে দাদা গ্রেপ্তার হতেই পিছিয়ে এলেন তরুণী, মামলা প্রত্যাহারের আরজি]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement