২৪ চৈত্র  ১৪২৬  মঙ্গলবার ৭ এপ্রিল ২০২০ 

Advertisement

ঘুরে দেখলেন জিএম, মে মাসেই ফুলবাগান পর্যন্ত পরিষেবা বাড়ানোর লক্ষ্য মেট্রোর

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: February 26, 2020 9:04 pm|    Updated: February 26, 2020 11:01 pm

An Images

নব্যেন্দু হাজরা: মে মাস থেকেই ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো ফুলবাগান পর্যন্ত চালানোর পরিকল্পনা নিচ্ছে মেট্রো। বুধবার সওয়া দু’ঘণ্টা ফুলবাগান স্টেশন সরোজমিনে ঘুরে দেখে তেমনই ইঙ্গিত দিলেন মেট্রো রেলের জেনারেল ম্যানেজার মনোজ যোশী। নজর দেওয়া হচ্ছে যাত্রীবৃদ্ধির দিকেও।

তিনি জানান, ইতিমধ্যেই কমিশনার অফ রেলওয়ে সেফটির ছাড়পত্রের জন্য আবেদন করা হয়েছে। সেখান থেকে আরও কিছু তথ্য চেয়ে পাঠানো হয়েছে। সেগুলির উত্তরও পাঠানো হবে শীঘ্রই। তাঁদের কাছে দ্রুত স্টেশন পর্যবেক্ষণ করে ছাড়পত্রের জন্য আবেদন করা হবে। স্টেশন দেখে গেলেই ছাড়পত্র পেতে খুব বেশি বেগ পেতে হবে না। যদি তখন তারা কিছু সুপারিশ করে তা মেনে চলা হবে। 

পাশাপাশি জিএম বলেন, “ফুলবাগানের পর আমরা শিয়ালদহ পর্যন্ত পরিষেবা বাড়ানোর উপর জোর দিচ্ছি। তারপর বাকি অংশকে জোড়া হবে।” দিনকয়েক আগে রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল জানিয়েছিলেন পুজোর আগেই ফুলবাগান থেকে পরিষেবা চালু করা হবে। কিন্তু পরিস্থিতি বলছে ফুলবাগান থেকে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর পরিষেবা পেতে আর পুজো অবধি অপেক্ষা করতে হবে না যাত্রীদের। চালু হয়ে যাবে মে মাস থেকেই। 

[আরও পড়ুন: ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোয় করোনার কাঁটা, রেক পরিদর্শনে আসতে পারছেন না চিনা বিশেষজ্ঞরা]

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি থেকে যাত্রী নিয়ে চলা শুরু করছে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো। সেক্টর ফাইভ থেকে স্টেডিয়াম পর্যন্ত ট্রেন চলাচল করছে। মাঝে রয়েছে করুণাময়ী, সেন্ট্রাল পার্ক, সিটি সেন্টার এবং বেঙ্গল কেমিক্যাল। কিন্তু নয়া মেট্রো চালু হলেও তাতে যাত্রী হচ্ছে হাতে গোনা। কারণ অফিসবাবু থেকে স্কুল-কলেজের ছাত্রছাত্রী এই রুটে কেউই বিশেষ চড়ছেন না। কার্যত ‘জয় রাইড’ হয়ে দাঁড়িয়েছে তা। মূলত সিটি সেন্টার ওয়ান, সেক্টর ফাইভ এই দুই স্টেশনেই ওঠা-নামা করছেন যাত্রীরা। কিন্তু এই কিছু যাত্রী দিয়ে বিশেষ আয় হচ্ছে না মেট্রোর। তাই দ্রুত ফুলবাগান পর্যন্ত ট্রেন চালানোর চেষ্টা করা হচ্ছে।

কেএমআরসিএল সূত্রে খবর, আগামী মাসেই কমিশনার অফ রেলওয়ে সেফটি বা সিআরএস ইন্সপেকশন হবে। তারপর মিলবে ছাড়পত্র। ফুলবাগান স্টেশনটি মাটির নিচে হওয়ার কারণেই তা তৈরি হয়েছে অন্যভাবে। প্রথম ধাপে সেই কারণেই চালু করা গেল না। কিন্তু যেহেতু প্রথম পর্বের ট্রেন চালু হয়ে যাচ্ছে। তাই ছাড়পত্র এসে গেলে আর একটি স্টেশনে পরিষেবা বাড়াতে কোনও বেগ পেতে হবে না। মাসখানেকের মধ্যেই তা চালু হয়ে যাবে। অর্থাৎ মে মাসেই ট্রেন চালানো যেতে পারে ফুলবাগান পর্যন্ত। সেক্ষেত্রে যাত্রীসংখ্যাও অনেকটাই বাড়বে। কারণ ফুলবাগানে অনেকগুলি অটোরুট রয়েছে। গিরিশ পার্ক, এমজি রোড, উল্টোডাঙা, শিয়ালদহ থেকে অটো যায় সেখানে। তাই যাত্রীরা অটোয় করে সেখানে গিয়ে দ্রুত পৌঁছে যেতে পারবেন গন্তব্যে। সেক্টর ফাইভে প্রচুর অফিস-কাছারি। শুধু উল্টোডাঙা থেকে  অটো বা বাসের উপর তাঁদের নির্ভর করতে হবে না।

[আরও পড়ুন: ‘পুলিশকে গুলি করছে, ওদের কি চা খাওয়ানো উচিত?’ দিল্লি প্রসঙ্গে বেলাগাম দিলীপ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement