BREAKING NEWS

১৫ চৈত্র  ১৪২৬  রবিবার ২৯ মার্চ ২০২০ 

Advertisement

পোলবার দুর্ঘটনায় জখম শিশুদের দেখতে SSKM-এ পার্থ, পুলকার নিয়ে কড়া বার্তা শিক্ষামন্ত্রীর

Published by: Sayani Sen |    Posted: February 16, 2020 7:20 pm|    Updated: February 16, 2020 7:26 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পোলবায় পুলকার দুর্ঘটনায় জখম শিশুদের দেখতে এসএসকেএমে পার্থ চট্টোপাধ্যায়। রবিবার সন্ধেয় হাসপাতালের ট্রমা কেয়ার সেন্টারে ঢুকে দিব্যাংশুকে এবং কার্ডিওথেরাপি ভাসকুলার সার্জারি বিভাগে চিকিৎসাধীন ঋষভের সঙ্গে দেখা করেন শিক্ষামন্ত্রী। কথা বলেন চিকিৎসকদের সঙ্গে। পুলকার নিয়ে স্কুলগুলির আরও সচেতন হওয়া প্রয়োজন বলেই জানান তিনি।

চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছে, তবে পুলকার দুর্ঘটনায় জখম দিব্যাংশু এবং ঋষভের অবস্থা এখনও সংকটজনক। দুই খুদের শারীরিক অবস্থা নিয়ে চিন্তিত মুখ্যমন্ত্রী-সহ রাজ্যের প্রত্যেকেই। তাই ফোনে প্রতি মুহূর্তে এসএসকেএমের ডিরেক্টরের সঙ্গে যোগাযোগ রেখেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার রাতে কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম এসএসকেএমে দিব্যাংশু এবং ঋষভকে দেখতে যান। শনিবার দুপুরে হুগলির বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়ও হাসপাতালে আসেন। দুই ছাত্রের সঙ্গে দেখা করেন তিনি। রবিবার সন্ধেয় এসএসকেএমে যান শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

প্রথমেই তিনি যান ট্রমা কেয়ার ইউনিটে। সেখানে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে ছোট্ট দিব্যাংশু। তাকে দেখেন শিক্ষামন্ত্রী। পরিজনদের সঙ্গে কথাও বলেন তিনি। এরপরই সোজা চলে যান কার্ডিওথেরাপি ভাসকুলার সার্জারি বিভাগে। সেখানে ভরতি থাকা ঋষভের সঙ্গে দেখা করেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। শ্রীরামপুরের তৃণমূল কাউন্সিলর পাপ্পু সিংয়ের সন্তান ঋষভ। সিঙ্গুর আন্দোলনের সময় পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনায় রুখে দাঁড়িয়েছিলেন জখম ছাত্রের বাবা। ছোট্ট স্কুলপড়ুয়ার শরীরের খোঁজখবর নিতে গিয়ে যেন সেদিনের ঘটনা চোখের সামনে ভেসে ওঠে শিক্ষামন্ত্রীর।

[আরও পড়ুন: চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছে ঋষভ-দিব্যাংশু, ২ দিন পর কিছুটা স্বস্তিতে পরিবার]

ছোট ছোট পড়ুয়াদের সুরক্ষার কথা ভেবে পুলকার সম্পর্কে স্কুলগুলির আরও সচেতন হওয়া প্রয়োজন বলেই জানান শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তিনি বলেন, “যাঁরা নিজস্ব উদ্যোগে পুলকার, নিজের গাড়ি আনছেন তাঁরা ফিটনেস সার্টিফিকেট, চালকের ছবি স্কুল কর্তৃপক্ষকে জমা দিন। পরিবহণ দপ্তরের দেওয়া সার্টিফিকেটই স্কুলে জমা দিন। শিক্ষাসচিবকে বলেছি স্কুল কর্তৃপক্ষকে এ বিষয়ে জানাতে। চিকিৎসকরা ওদের সুস্থতার জন্য লড়াই করছেন। ভগবানের কাছে প্রার্থনা করি তাড়াতাড়ি সুস্থ হয়ে ঋষভ, দিব্যাংশু বাড়ি ফিরে যাক।”

এদিকে, এদিন বকখালিতে পিকনিক করতে যাওয়ার পথেই মিনিডোর দুর্ঘটনায় শিশু, মহিলা, পুরুষ-সহ কমপক্ষে ১৫ জন গুরুতর জখম হয়েছেন। তাঁদেরও এসএসকেএমের ট্রমা কেয়ার ইউনিটে চিকিৎসা চলছে। দুর্ঘটনায় জখমদের সঙ্গেও দেখা করেন শিক্ষামন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রীর উদ্যোগে এখন প্রায় প্রত্যেকেই চিকিৎসা পাচ্ছেন বলেই জানান তিনি।

দেখুন ভিডিও:

ছবি: অরিজিৎ সাহা

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement