৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  শুক্রবার ২২ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  শুক্রবার ২২ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আবারও আগুনের গ্রাসে বেদিকভিলেজের একাংশ। বেশ কয়েকদিন ধরেই রাজ্যে তাপপ্রবাহ চলছে। সোমবার সন্ধ্যার পর কলকাতা ও শহরতলিতে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টি শুরু হয়। ঘটনাচক্রে সেই সময়েই বাজ পড়ে বেদিক ভিলেজে। খড়ের চালায় বাজ পড়ে মুহূর্তেই আগুন ধরে যায় এবং তা তৎক্ষণাৎ ছড়িয়ে পড়ে। বেদিক  ভিলেজের রান্নাঘর, স্টাফরুম, রিসেপশন-সহ বিভিন্ন জায়গা আগুনের গ্রাসে চলে যায়। আতঙ্কিত হয়ে পড়েন ভিলেজের অতিথিরা। প্রাথমিকভাবে বেদিক ভিলেজের কর্মচারীরা রিজার্ভার থেকে জল এনে আগুন নেভানোর চেষ্টা করলেও তা কাজে আসে না। ঘটনাস্থলে পৌঁছায় দমকলের বারোটি ইঞ্জিন।

[ আরও পড়ুন: ভোটগণনার পরই উচ্চমাধ্যমিকের ফলপ্রকাশ, দিনক্ষণ জানাল সংসদ ]

ঘটনাস্থলে যান দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু। তিনি জানান, “মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পরিস্থিতি সম্পর্কে প্রতিমুহূর্তেই খোঁজখবর নিচ্ছেন। আগুন নেভানোটাই প্রাথমিক কাজ। তারপর তদন্ত করে দেখা হবে কীভাবে আগুন লেগেছিল।” ভিলেজের অতিথিদের আবাসস্থল একটু দূরে থাকায় তা আগুনের মুখে পড়েনি। ফলে বড়সড় দুর্ঘটনা এড়ানো গিয়েছে বলে মত ভিলেজের একাংশের৷ তবে ভস্মীভূত হয়ে গিয়েছে রেস্তরাঁ, বসার জায়গা। গভীর রাত পর্যন্ত দমকল আগুন নেভানোর কাজ চালায়। এবং ভোর রাতে আগুন আয়ত্তে আসে৷ যদিও ঘটনায় হতাহতের কোনও খবর নেই।

[ আরও পড়ুন: শেষ দফার আগে পুলিশের সঙ্গে বৈঠক ডেপুটি নির্বাচন কমিশনারের ]

এর আগেও আগুন লেগেছিল বেদিক ভিলেজে। তবে এদিনের ঘটনা তারচেয়ে অনেক বেশি ভয়াবহ আকার ধারণ করে। আগুনের লেলিহান শিখা প্রায় ২৫ ফুট উচ্চতায় পৌঁছে যায়। যেহেতু খড় ও দাহ্য পদার্থ দিয়ে বেদিক ভিলেজের বিভিন্ন অংশ তৈরি ছিল। যার ফলে আগুনও ছড়িয়ে পড়ে অনেকটা এলাকা জুড়ে। তবে যুদ্ধকালীন তৎপরতায় আগুন নেভানোর কাজে ঝাপিয়ে পড়ে দমকল। তবে এরই মধ্যে স্থানীয় সাধারণ মানুষ বেদিক ভিলেজ কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং