১৬ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  শনিবার ৩০ মে ২০২০ 

Advertisement

করোনা মোকাবিলায় রাজ্যে গ্লোবাল অ্যাডভাইজারি বোর্ড, পরামর্শদাতা নোবেলজয়ী অভিজিৎ

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: April 6, 2020 5:44 pm|    Updated: April 6, 2020 5:53 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বাংলারই ভূমিপুত্র তিনি। কর্মসূত্রে দীর্ঘ প্রবাস জীবন এবং যাবতীয় কৃতিত্ব অর্জন করলেও, মাটিকে ভোলেননি। আর তাই সংকট মুহূর্তে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্মরণ করলেন নোবেলজয়ী সেই বঙ্গসন্তানকে। করোনা মোকাবিলায় রাজ্য সরকারের তৈরি গ্লোবাল অ্যাডভাইজরি বোর্ডের  প্রধান পরামর্শদাতা হিসেবে ডক্টর অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম প্রস্তাব করলেন মুখ্যমন্ত্রী। নবান্ন থেকে সাংবাদিক বৈঠকে বললেন, নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদের সঙ্গে তিনি নিজে এবিষয়ে কথা বলবেন। এছাড়া বোর্ডে থাকবেন WHO’র প্রাক্তন আঞ্চলিক অধিকর্তা স্বরূপ সরকার, বিশিষ্ট চিকিৎসক অভিজিৎ চৌধুরি, সুকুমার সরকার। তাঁরা সমন্বয়ের দিকটি দেখবেন।

রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে রোজ বিকেলে নবান্নে সাংবাদিকদের কাছে তথ্য পেশ করেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী নিজে। তাঁর অনুপস্থিতিতে কাজটি করে থাকেন রাজ্যের মুখ্যসচিব রাজীব সিনহা। কখনও বা সরকারের তৈরি বিশিষ্ট চিকিৎসকদলও নবান্ন থেকে তথ্য দিয়ে থাকেন। তবে মুখ্যমন্ত্রীর সাংবাদিক সম্মেলনে প্রতিদিনই কোনও না কোনও গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা থাকে। ছিল আজও। সামগ্রিক পরিস্থিতির খবর জানিয়ে তিনি ঘোষণা করলেন, করোনা মোকাবিলায় রাজ্য সরকার একটি গ্লোবাল অ্যাডভাইজরি বোর্ড তৈরি করছে – অ্যাডভাইজরি বোর্ড ফর কোভিড রেসপন্স পলিসি। যে বোর্ডের অন্যতম সদস্য হিসেবে থাকবেন নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়। মারণ জীবাণু সংক্রমণ রুখতে তাঁর মতামত, পরামর্শ বোর্ডের বিশেষ কাজে লাগবে বলে মনে করছেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, “আমি নিজের ওনাকে ফোন করে কথা বলব। আশা করি, আমাদের আহ্বানে তিনি সাড়া দেবেন।”

[আরও পড়ুন: লকডাউনে স্তব্ধ কুমোরটুলি, মৃৎশিল্পীদের পাশে দাঁড়ালেন পুজোওয়ালারা]

অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের নোবেল জয়ের পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর গড়িয়াহাটের বাড়ি গিয়ে মা-কে শুভেচ্ছা জানিয়ে এসেছিলেন। এবছরের গোড়ার দিকে দেশে ফিরে নিজের কাজকর্ম সারার পর অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায় নিজের বাড়িতে পা রাখেন। সংক্ষিপ্ত সফরের মাঝেই এক বিকেলে মাকে সঙ্গে নিয়ে তিনি নবান্নে যান মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে। সেদিনই মুখ্যমন্ত্রীকে তিনি জানিয়ে আসেন, রাজ্যের যে কোনও সমস্যায় তাঁকে পাশে পাবে সরকার।

[আরও পড়ুন: করোনা উপসর্গ সত্ত্বেও মেডিসিন ওয়ার্ডে চিকিৎসা, রোগীমৃত্যুতে কোয়ারেন্টাইনে NRS-এর ৫৮]

এখন শুধু এ রাজ্যেই নয়, গোটা বিশ্বের সংকটকাল। রাজ্যের করোনা পরিস্থিতির যাতে অবনতি না হয়, তার জন্য প্রাণপণ চেষ্টা চালাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন সরকার। আর সেই প্রয়াসেই নোবেলজয়ী বঙ্গসন্তানকে পাশে চাইলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিশেষজ্ঞদের ধারণা, লকডাউনের জেরে রাজ্য যে প্রভূত ক্ষতির মুখে পড়ছে, তা কীভাবে কাটিয়ে উঠবে, মূলত সেই পরামর্শই তিনি নেবেন অভিজিতের কাছ থেকে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement