Advertisement
Advertisement

Breaking News

Kolkata Police

অনলাইনে বুক করা বাইকে উঠে ভয়াবহ অভিজ্ঞতা, চালকের চরম অশালীন প্রশ্নের মুখে তরুণী

তরুণীর অভিযোগে তৎপর কলকাতা পুলিশ, গ্রেপ্তার অভিযুক্ত।

Girl took a ride on onlike bike get harrassed by the driver in Kolkata| Sangbad Pratidin

ছবি: প্রতীকী

Published by: Sucheta Sengupta
  • Posted:November 25, 2020 12:30 pm
  • Updated:November 25, 2020 12:38 pm

অর্ণব আইচ: রাতে বাড়ি ফেরার জন্য স্মার্টফোনে বুক করেছিলেন বাইক। কিন্তু তাতে সওয়ার হয়ে যে এমন দুর্বিষহ অভিজ্ঞতা হবে, কে-ই বা ভেবেছিল! ভাবেননি গড়ফা (Garfa) থানা এলাকার তরুণীও। কিন্তু বাস্তবে ঘটল তেমনই। চালকের একগাদা চূড়ান্ত অশালীন প্রশ্নের মুখে পড়ে বাধ্য হয়ে গন্তব্যের আগেই নেমে পড়লেন তরুণী। লালবাজারে ই-মেল পাঠিয়ে অভিযোগ জানানোর পর পুলিশ তৎপর হয়ে গ্রেপ্তার করে অভিযুক্তকে।

রবিবার রাত ৯ টা নাগাদ আলিপুর থানা এলাকার দেসি লেনের রেস্তরাঁ থেকে বাড়ি ফেরার জন্য অনলাইনে একটি বাইক (Bike) বুক করেন গাঙ্গুলি পুকুরের এক তরুণী। অভিযোগ, বাইকে ওঠার পরপরই তাঁকে অশালীন প্রশ্ন করতে শুরু করেন। শরীর সংক্রান্ত প্রশ্নের পাশাপাশি প্রেমিকের সঙ্গে কেমন সম্পর্ক – এধরনের প্রশ্ন করতে করতে তা শালীনতার সীমা ছাড়িয়ে যায়।

Advertisement

[আরও পড়ুন: ধর্মঘটে ক্ষতি হলে দায়িত্ব সরকারের, আশ্বাসে বৃহস্পতিবার পথে বাস নামাতে প্রস্তুত মালিকরা]

এরপর বিরক্ত তরুণী বাধ্য হয়ে গন্তব্যের আগেই বাইক থেকে নেমে পড়েন। বাকি পথটা তিনি একা হেঁটে ফেরেন। এই সময়েও ওই বাইক চালক তাঁর পিছু নিয়েছিলেন বলেও অভিযোগ। এরপর তরুণী প্রথমে সংশ্লিষ্ট অনলাইন বাইক সংস্থায় অভিযোগ জানান, তারপর গড়ফা থানা এবং কলকাতা পুলিশের (Kolkata Police) সোশ্যাল মিডিয়ায় বিষয়টি নিয়ে সোচ্চার হন। ই-মেল পাঠান লালবাজারেও।

Advertisement

এমন অভিযোগ পেয়ে তৎপর হয়ে ওঠে পুলিশ। গড়ফা থানার সাবইন্সপেক্টর বন্ধুচরণ পাল ওই তরুণীর সঙ্গে কথা বলে বিষয়টি নিয়ে তদন্তে এগোন। হরিদেবপুর থানা এলাকার ঢালিপাড়ায় খোঁজ মেলে অভিযুক্ত আলম হোসেনের। হরিদেবপুর থানার সহায়তায় মঙ্গলবার রাত ১টা নাগাদ গ্রেপ্তার করা হয় বছর উনচল্লিশের আলমকে। আজ তাকে আদালতে পেশ করা হবে।

[আরও পড়ুন: জামিন পেলেন ব্যবসায়ী গোবিন্দ আগরওয়াল, কলকাতা পুলিশের নজরে আরও এক আয়কর কর্তা]

যাতায়াতের সুবিধার জন্য ইদানিং গণপরিবহণ এড়িয়ে অনেকেই এধরনের অনলাইন ক্যাব, বাইক ব্যবহার করে থাকেন। অনেক দ্রুত এবং সহজে পরিষেবাও পাওয়া যায় এতে। কিন্তু তাতে চড়ে বাড়ি ফেরার সময়ে এমন ভয়ংকর এক অভিজ্ঞতার মুখে পড়লেন এই তরুণী, তারপর তিনি এ ধরনের পরিষেবার নেওয়ার ক্ষেত্রে নিরাপদ বোধ করবেন কিনা, তা নিয়ে সংশয় আছে। যদিও কলকাতা পুলিশের তৎপরতায় তিনি সন্তুষ্ট। এখন চান, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষও যেন অভিযুক্তের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেয়।

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ