৩ শ্রাবণ  ১৪২৬  শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ

৩ শ্রাবণ  ১৪২৬  শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ঘটনার পর চারদিন কেটে গিয়েছে। এখনও মুখ্যমন্ত্রী তাঁকে দেখতে যাননি। শুক্রবার মল্লিকবাজারের বেসরকারি হাসপাতালে গিয়ে এনআরএসে আহত পরিবহ মুখোপাধ্যায়কে দেখে এলেন রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠী। এদিন বিকেলে রাজভবনে ডক্টরস ফোরামের প্রতিনিধিদের সঙ্গেও বৈঠক করেন তিনি। সরকারি হাসপাতালে অচলাবস্থা কাটাতে রাজ্যপাল মুখ্যমন্ত্রীকে রাজভবনে তলব করেছেন।

[আরও পড়ুন: নিরাপত্তার দাবিতে পথে নামলেন চিকিৎসকরা, মিছিলে হাঁটলেন বিশিষ্টজনেরাও]

এনআরএস কাণ্ডের প্রতিকার চেয়ে রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠীর দ্বারস্থ হয়েছেন জুনিয়র ডাক্তাররা। বৃহস্পতিবার রাজভবনে আন্দোলনকারীদের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করেন। স্বাস্থ্যক্ষেত্রে অচলাবস্থা কাটিয়ে দ্রুত জুনিয়র ডাক্তারদের কাজে ফেরার বার্তা দিয়েছেন রাজ্যপাল। আশ্বস্ত করেছেন, চিকিৎসকদের দাবিদাওয়া সরকারের কাছে পাঠানো হয়েছে। হাসপাতালের নিরাপত্তা ও এনআরএস কাণ্ডের দোষীদের শাস্তির বিষয়টি সুনিশ্চিত করতে তিনি নিজে সরকারের সঙ্গে কথা বলবেন। তবে রাজ্যপালের আশ্বাসে অবশ্য আন্দোলন থেকে সরে আসেননি জুনিয়র ডাক্তাররা। এখনও কর্মবিরতি চালিয়ে যাচ্ছেন।

শুক্রবার রাজভবনে গিয়ে রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠীর সঙ্গে দেখা করেন ডক্টরস ফোরামের প্রতিনিধি। বৈঠকের পরই অচলাবস্থা কাটাতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে রাজভবনে তলব করেন রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠী। তিনি জানিয়েছেন, ‘আমি মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেছিলাম। এখনও পর্যন্ত তাঁর তরফ থেকে কোনও সাড়া পায়নি। মুখ্যমন্ত্রী যদি আমার সঙ্গে যোগাযোগ করেন, তাহলে বিষয়টি আলোচনা করব।’ রাতে এনআরএসে আহত ইন্টার্ন চিকিৎসক পরিবহ মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করতে মল্লিকবাজারে ইনস্টিটিউট অফ নিউরো সায়েন্সেসে যান রাজ্যপাল। হাসপাতাল সূত্রে খবর, পরিবহ এখন ভাল আছেন। দু-একদিনের মধ্যে তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হবে।

এদিকে শুক্রবার হাসপাতালে ফোন করে পরিবহ মুখোপাধ্যায়ের শারীরিক অবস্থার খোঁজখবর নেন বিধানসভার স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। এনআরএসে আহত ইন্টার্ন চিকিৎসকের কাছে তাঁর আবেদন, ডাক্তারদের কর্মবিরতিতে সমস্যায় পড়েছেন সাধারণ মানুষ। তিনি সুস্থ হয়ে ওঠার পর যে সতীর্থদেরও দ্রুত কাজে ফেরার আবেদন জানান।   

 

ছবি: অরিজিৎ সাহা

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং