BREAKING NEWS

৭  আশ্বিন  ১৪২৯  শনিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

মেলেনি চূড়ান্ত রিপোর্ট, টালা ব্রিজ উদ্বোধনে সময় পিছিয়ে দেওয়ার ঘোষণা ফিরহাদ হাকিমের

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: September 16, 2022 2:12 pm|    Updated: September 16, 2022 2:48 pm

Inauguration of Tala Bridge will be postponed due to unavailable of final report by IIT, announces Firhad Hakim | Sangbad Pratidin

কৃষ্ণকুমার দাস: পিছিয়ে গেল টালা ব্রিজ (Tala Brige) উদ্বোধনের সময়। উত্তর কলকাতার সংযোগকারী নতুন ব্রিজটি আগামী ২৪ তারিখ চালু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু চূড়ান্ত রিপোর্ট না মেলায় রাজ্য সরকার ঝুঁকি নিয়ে তা চালু করতে চায় না। তাই ২৯ সেপ্টেম্বর ব্রিজটি চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। শুক্রবার একথা জানালেন কলকাতার  মেয়র তথা পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম (Firhad Hakim)। তিনি এও জানান, প্রথমদিকে শুধু হালকা গাড়িই চলবে টালা ব্রিজে। তারপর পরিস্থিতি বুঝে ভারী গাড়ি চালানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। 

নতুন টালা ব্রিজ তৈরির পর বিশেষজ্ঞ কমিটি তা পরীক্ষানিরীক্ষা করে চূড়ান্ত রিপোর্ট দেওয়ার পরই ব্রিজে যান চলাচল চালু হওয়ার কথা। কাজ শেষের পর প্রশাসনের দাবি ছিল, মহালয়ার (Mahalaya) আগে ব্রিজটি চালু করে দেওয়া সম্ভব হবে। কিন্তু আইআইটি, খড়গপুরের ইঞ্জিনিয়ারদের তরফে এখনও চূড়ান্ত রিপোর্ট মেলেনি বলে সরকারি সূত্রে খবর। তা হাতে পেতে ২৭ কিংবা ২৮ তারিখ হবে। সেই রিপোর্ট দেখেই ২৯ তারিখ টালা ব্রিজ খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল সরকার। শুক্রবার এমনই বিস্তারিত তথ্য জানালেন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। 

[আরও পড়ুন: নভেম্বরেই নবান্নে আসছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ! মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের সম্ভাবনা]

উত্তর শহরতলির সঙ্গে কলকাতার (Kolkata) যোগাযোগের অন্যতম ভরকেন্দ্র ছিল টালা ব্রিজ। কিন্তু মাঝেরহাট (Majherhat) ব্রিজ ভেঙে পড়ার পর বিপদ এড়াতে পুরনো ব্রিজ ভেঙে নতুন করে তৈরির পরামর্শ দিয়েছিল রাইটস। এই প্রস্তাবকে সমর্থন করেন মুম্বইয়ের সেতু বিশেষজ্ঞ ভি কে রায়না। এরপরই ২০২০ সালের ১ ফেব্রুয়ারি থেকে টালা সেতুতে যান চলাচল সম্পূর্ণভাবে বন্ধ হয়ে যায়। শুরু হয় পুনর্নির্মাণের কাজ। ২ বছর ধরে ৪৬৮ কোটি টাকা ব্যয়ে ৭৫০ মিটার দীর্ঘ নবপর্যায়ের সেতুটিও মাঝেরহাট ধাঁচে কেবল স্টেড রেলওভার ব্রিজ হিসাবে আত্মপ্রকাশ করছে। এর মধ্যে ২৪০ মিটার অংশ কেবলের উপরেই শূন্যে ঝুলবে। শুধু তাই নয়, আগে ছিল তিন লেনের সেতু, কিন্তু নতুন ব্রিজটি যেমন চার লেনের হচ্ছে, তেমনই দু’পাশেই থাকছে ফুটপাথ।

[আরও পড়ুন: বাম আমলের বন্ধ কারখানা ফের খুলছে বাংলায়]

কথা ছিল, মহালয়ার আগে ২৪ সেপ্টেম্বর ব্রিজটি খুলে দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু তা পিছিয়ে গেল। যদিও শহরবাসীর আশ্বস্ত করে পুজোর আগেই ব্রিজ খুলে দেওয়ার কথা জানিয়েছেন মেয়র। পুজোর আগে এই ব্রিজটি চালু হলে উত্তর কলকাতার পুজোদর্শন অনেকটাই সুবিধাজনক হবে দর্শনার্থীদের পক্ষে। 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে