ad
ad
মেট্রো

শীঘ্রই জলের নিচে মেট্রো, টুইটারে ভিডিও পোস্ট করে জানালেন রেলমন্ত্রী

আগস্ট মাসের শেষ থেকেই পরিষেবা চালু হওয়ার কথা।

India's First Underwater Metro To Start Soon, Piyush Goyal Shares Video
Published by: Soumya Mukherjee
  • Posted:August 9, 2019 1:12 pm
  • Updated:August 9, 2019 1:12 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সরকারি পরিকল্পনার কথা প্রকাশ্যে আসার পরে আলোচনা শুরু হয়েছিল। আগ্রহ ও আতঙ্কের মেলবন্ধনে জন্ম নিয়েছিল কৌতূহলও। অবশেষে রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েলের টুইটে সেই কৌতূহলের কিছুটা নিরসন হল বৃহস্পতিবার। আটের দশকে ভারতের মধ্যে প্রথম মেট্রো চালু হয়েছিল কলকাতায়। তারপর একে একে দিল্লি থেকে হায়দারবাদ পর্যন্ত চালু হয়েছে এই পরিষেবা। সুযোগ-সুবিধা বা নিরাপত্তার ক্ষেত্রে পরে চালু হয়েও কলকাতার থেকে অনেক এগিয়ে তারা৷ তবে দেশের মধ্যে প্রথম জলের নিচে মেট্রো চালু হলে ফের কলকাতা বাকিদের টেক্কা মারবে বলেই আশাবাদী তিলোত্তমার অনুরাগীরা।

বৃহস্পতিবার হুগলি নদীর তলায় মেট্রোর চালুর কথা টুইট করে এবং এই সংক্রান্ত একটি ভিডিও পোস্ট করে একথা জানান রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল। এই পরিষেবা চালু হলে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির স্বপ্নপূরণ হবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

[আরও পড়ুন: মিষ্টি খেতে বছরে ৯০ লাখ! চিত্তরঞ্জন সেবা সদনে তোলাবাজির চাঞ্চল্যকর অভিযোগ]

ওই পোস্টের নিচে হিন্দিতে লেখেন, ‘‘কলকাতায় হুগলি নদীর তলা দিয়ে ভারতের প্রথম ‘আন্ডারওয়াটার’ মেট্রো চালু হবে। এই কাজ অসাধারণ ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের এক উৎকৃষ্ট নজির। দেশের রেল ব্যবস্থার উন্নয়নের প্রতীক। এই পরিবেষা শুরু হলে কলকাতার বাসিন্দারা উপভোগ করবেন আর গোটা দেশ একে নিয়ে গর্ব করবে।’’

ভারতীয় রেলের তরফে প্রকাশ করা ওই ভিডিওতে, জলের তলায় থাকা টানেলের মধ্যে দিয়ে মেট্রো যাওয়ার দৃশ্য রয়েছে। রয়েছে এ সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বক্তব্যও। পাশাপাশি এতে উল্লেখ করা হয়েছে কীভাবে দুটি টানেলের মধ্যে জল ঢোকা আটকাতে চারটি কভার থাকার কথাও। জলের তলা দিয়ে একপ্রান্ত থেকে অন্যপ্রান্তে যেতে এক মিনিট সময় লাগবে বলেও খবর।

[আরও পড়ুন: কনভয় দাঁড় করিয়ে গাড়িকে রাস্তা ছাড়লেন মুখ্যমন্ত্রী, যানজট এড়াতে নজিরবিহীন সিদ্ধান্ত]

মেট্রো রেল সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রস্তাবিত কলকাতা মেট্রো লাইন পার্ট টু ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো নামেই বেশি পরিচিত। সল্টলেক সেক্টর ফাইভ থেকে হাওড়া ময়দান স্টেশন পর্যন্ত ট্রেন চলবে এই প্রকল্পের অধীনে। তার মধ্যে প্রথম পর্যায়ে সেক্টর ফাইভ থেকে সল্টলেক স্টেডিয়াম পর্যন্ত ট্রেন এই মাস থেকেই চালু হওয়ার কথা। মোট ১৬ কিলোমিটার প্রস্তাবিত ট্রেনপথের মধ্যে এর পরিমাণ পাঁচ কিলোমিটার।

২০১৭ সালে এপ্রিল মাসের শেষের দিকে হাওড়া থেকে নদীর নিচে দিয়ে টানেল বসানোর কাজ শুরু হয়। এই টানেলগুলি লম্বায় ৫২০ মিটার ও গভীরতায় ৩০ মিটার। এর জন্য রচনা ও প্রেরণা নামে দুটি টানেল বোরিং মেশিন আনা হয়েছিল জার্মানি থেকে। সেসময় এপ্রসঙ্গে এই প্রকল্পের চিফ ইঞ্জিনিয়ার পরশুরাম সিং বলেছিলেন, ‘এর আগে ভারতে প্রথম মেট্রো চালু করে সম্মান পেয়েছিল কলকাতা। এবার জলের তলা দিয়ে মেট্রো চালুর বিষয়েও পথপ্রদর্শক হতে চলেছে।’

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ