BREAKING NEWS

২৩ শ্রাবণ  ১৪২৭  রবিবার ৯ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

‘অসাংবিধানিক ও উসকানিমূলক’, মমতার এনআরসি বিরোধী মিছিলের দিনই তোপ রাজ্যপালের

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: December 16, 2019 9:25 am|    Updated: December 16, 2019 11:26 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন আর এনআরসির বিরুদ্ধে আজ থেকে টানা প্রতিবাদে পথে নামছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার আগেই এই মিছিল অসাংবিধানিক ও উসকানিমূলক বলে টুইট করলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। পাশাপাশি রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির খোঁজ নিতে সাতসকালেই মুখ্যসচিব ও রাজ্য পুলিশের ডিজিকে রাজভবনে তলব করেন তিনি। সকাল সাড়ে দশটার সময় তাঁদের সঙ্গে এই বিষয়ে আলোচনা করবেন জানা গিয়েছে।

সোমবার সকালে তিনি টুইট করেন, ‘মুখ্যমন্ত্রী ও রাজ্যের অন্য মন্ত্রীরা দেশের সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনে বিরোধিতায় মিছিল করবেন শুনে আমি স্তম্ভিত। এটা অসাংবিধানিক। আমি মুখ্যমন্ত্রীকে আহ্বান জানাব এই ধরনের সংবিধান বিরোধী ও উসকানিমূলক ঘটনা থেকে দূরে থাকুন। রাজ্যের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার দিকে মনোনিবেশ করুন।’ 

পূর্ব নির্ধারিত ঘোষণা অনুযায়ী, সোম থেকে বুধবার টানা তিনদিন ধরে কলকাতা ও হাওড়ায় চলবে তৃণমূলের প্রতিবাদ কর্মসূচি। আজ প্রথম মিছিলটি ময়দানের বি আর আম্বেদকর মূর্তি থেকে জোড়াসাঁকো পর্যন্ত যাবে। দ্বিতীয় মিছিল দক্ষিণে। যাদবপুরের এইট বি বাসস্ট্যান্ড থেকে মেয়ো রোডের গান্ধীমূর্তি পর্যন্ত। আর তৃতীয় দিন হবে সবচেয়ে বড় মিছিল। হাওড়া ময়দান থেকে ধর্মতলার ডোরিনা ক্রসিং পর্যন্ত। জাতিধর্ম নির্বিশেষে প্রত্যেককে এই মিছিলে অংশ নিতে আহ্বান জানিয়েছেন তৃণমূলনেত্রী। একটাই স্লোগান ‘নো ক্যাব, নো এনআরসি’। এর আগে গতকাল রাজ‌্য প্রশাসনের শীর্ষকর্তাদের সঙ্গে জরুরি বৈঠক করে বর্তমান পরিস্থিতির পর্যালোচনা করেন তিনি। মুখ‌্যমন্ত্রীর নির্দেশে অশান্ত এলাকায় ইন্টারনেট বন্ধ করা হয়েছে।

[আরও পড়ুন: CAA প্রতিবাদের নামে অবরোধ করলেই হবে কড়া শাস্তি, হুঁশিয়ারি কলকাতা পুলিশের]

 

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরোধিতা করতে গিয়ে মুর্শিদাবাদ, মালদহ, হাওড়া, হুগলি, বীরভূম, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিস্তীর্ণ এলাকায় পথ অবরোধ, ট্রেন-বাসে আগুন লাগানোর ঘটনা ঘটে চলেছে। দিকে দিকে প্রতিবাদের নামে চলছে তাণ্ডব। প্রশাসনের তরফ থেকে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখার আবেদন জানানো হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, এসব ক্ষেত্রে কাউকে রেয়াত করা হবে না। রাজ্যের মানুষকে শান্তিপূর্ণ উপায়ে প্রতিবাদের পথে আসতে আবেদন করেছেন। যদিও রবিবারও ভয়াবহ পরিস্থিতির কারণে উত্তরবঙ্গের একাধিক ট্রেন বাতিল হয়েছে। যাত্রীরা যে যেখানে আটকে, সেখানেই পর্যাপ্ত খাবার ও অন্য পরিষেবা দেওয়া নিশ্চিত করতে বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। প্রশাসনকে বলেছেন, যাত্রী নিরাপত্তায় যেন কোনও ফাঁক না থাকে তা দেখতে।

[আরও পড়ুন: ‘সংবিধান বিরোধী কথা বলছেন মুখ্যমন্ত্রী’, রাজ্যের অশান্তি নিয়ে তোপ দিলীপের ]

 

এনআরসি আর নাগরিকত্ব বিল নিয়ে প্রথম থেকেই নিজের আপত্তির কথা জানিয়ে আসছেন মমতা। সংসদের উভয় কক্ষে এনিয়ে প্রতিবাদ জানিয়েছে তৃণমূল। এমনকী আক্রমণের সুর চড়িয়ে মমতা এও বলেন যে নাগরিকত্ব বিল আর এনআরসি একই মুদ্রার দুই পিঠ। সম্প্রতি দিঘায় শিল্প সম্মেলন শেষেও মুখ্যমন্ত্রী স্লোগান তোলেন ‘নো ক্যাব, নো এনআরসি’ বলে। ঘোষণা করে দেন, এ নিয়ে আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে। পাশাপাশি বলে দিয়েছেন, বাংলায় এনআরসি নিয়ে ভয় পাওয়ার কিছু নেই। এরাজ্য থেকে কেউ কোথাও যাবে না। বাংলা থেকে কাউকে উচ্ছেদ করা যাবে না।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement