১১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  শনিবার ২৮ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও চিনা মাঞ্জার রমরমা কলকাতার বাজারে, গ্রেপ্তার ২

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: October 21, 2019 9:10 am|    Updated: October 21, 2019 9:10 am

An Images

অর্ণব আইচ: ফের শহর থেকে উদ্ধার হল বিপুল পরিমাণ চিনা মাঞ্জা। বড়বাজারের একটি দোকানে হানা দিয়ে হাজারেরও বেশি চিনা মাঞ্জাসুতোর রোল উদ্ধার করল বড়বাজার থানার পুলিশ। ইতিমধ্যেই ঘটনায় জড়িত সন্দেহে দু’জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বেআইনিভাবে এই রংবেরংয়ের রোলগুলি শহরের বিভিন্ন দোকানে পাচারের উদ্দেশ্যে ওই জায়গায় মজুত করা হয়েছিল বলে জানা গিয়েছে। এর আগে শহর থেকে এত বিপুল পরিমাণ চিনা মাঞ্জা উদ্ধার হয়নি বলেই পুলিশের দাবি।

পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, চিনা মাঞ্জা সম্পূর্ণ বেআইনি। এর আগে মা ফ্লাইওভার ও বাইপাসে চিনা মাঞ্জাসুতো গলা ও মুখে লেগে বহু বাইক আরোহী আহত হয়েছেন। অনেকেরই প্রাণ সংশয় হয়েছে। তাঁদের হাসপাতালেও নিয়ে যেতে হয়েছে। সেই কারণে চিনা মাঞ্জার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। পুলিশের তরফে বারবার প্রচার করা হয়েছে হয়েছে যে, চিনা মাঞ্জা সুতো ব্যবহার করা বিপজ্জনক। তা নিয়ে পুলিশ বারবার প্রচার করেছে। এই সুতো ব্যবহার করে যাতে ফ্লাইওভার বা বাইপাসের ধারে কেউ ঘুড়ি না ওড়ায়, সেই বিষয়েও পুলিশ সতর্ক করেছে। কিন্তু তা সত্ত্বেও মাঝে মধ্যেই চোখে পড়ে চিনা মাঞ্জার দৌরাত্ম্য।

সেই কারণেই এদিন শহরের বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশি চালায় পুলিশ। দেখা গিয়েছে, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই পূর্ব কলকাতার বিভিন্ন এলাকার তরুণ ও কিশোররা এই চিনা মাঞ্জাসুতো ব্যবহার করে। সম্প্রতি গোপন সূত্রে পুলিশ খবর পায় যে, বড়বাজার থেকে ওই চিনা মাঞ্জা সুতো পাচার হচ্ছে শহরের বিভিন্ন জায়গায়। সেই অনুযায়ী পুলিশ চিনা বাজারের একটি দোকানে হানা দেয়। হাজারেরও বেশি চিনা মাঞ্জাসুতোর রোল, যার উপর ‘ডেঞ্জার’ লেখা, সেগুলি উদ্ধার করা হয়। জানা গিয়েছে, এই সুতো সাধারণ মাঞ্জা লাগানো সুতোর থেকে অনেকটাই আলাদা। উদ্ধার হওয়া সুতোগুলি পরীক্ষা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

[আরও পড়ুন: বন্ধু রনিকে পালাতে দিয়েছে পুলিশই! IT কর্মীর রহস্যমৃত্যুতে বিস্ফোরক অভিযোগ পরিবারের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement