Advertisement
Advertisement
করোনা

করোনা মোকাবিলায় তৎপর লালবাজার, শহর জুড়ে পোস্টার

কালোবাজারি রুখতে ওষুধের দোকানেও তল্লাশি চালান পুলিশ আধিকারিকরা।

Kolkata police started campaign to prevent coronavirus
Published by: Tiyasha Sarkar
  • Posted:March 15, 2020 9:31 am
  • Updated:March 15, 2020 9:31 am

অর্ণব আইচ: করোনা ভাইরাস নিয়ে সতর্ক হতে হবে পুলিশ ও তাঁদের পরিবারকেও। শনিবার প্রত্যেক থানার ওসি ও পুলিশকর্তাদের এই বার্তাই দিলেন পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা। পুলিশ কমিশনারের বার্তা পাওয়ার পরই তৎপর হয়ে ওঠেন কলকাতা পুলিশের আধিকারিকরা। করোনা সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে শহর জুড়ে পোস্টার লাগান তাঁরা। একই সঙ্গে বিভিন্ন ওষুধের দোকানে গিয়ে খোঁজ নেন পর্যাপ্ত মাস্ক ও স্যানিটাইজার আছে কি না। কেউ যাতে মাস্ক ও স্যানিটাইজার নিয়ে কালোবাজারি না করতে পারে।

এদিন বার্তা দিয়ে পুলিশ কমিশনার প্রত্যেক থানার ওসি ও আধিকারিকদের জানিয়েছেন যে, করোনা ভাইরাস সম্পর্কে পুলিশকে নিজেদেরই সচেতন হতে হবে। এই ভাইরাস রোধে কিছু প্রোটোকলও মানার নির্দেশ দিয়েছেন পুলিশ কমিশনার। তিনি জানিয়েছেন, প্রত্যেক পুলিশকর্মী ও তাঁদের পরিবারের লোকেদেরও এই প্রোটোকল সম্পর্কে সচেতন হতে হবে। একই সঙ্গে সচেতন করতে হবে নাগরিকদেরও। কলকাতা পুলিশের তেজস্বিনী বা প্রণাম-এর মতো প্রকল্পের হাত ধরে করোনা সম্পর্কে সচেতনতার বার্তা প্রচার করতে হবে। অবশ্যই দেখতে হবে যাতে মাস্ক ও স্যানিটাইজারের অভাব না হয়। এই ব্যবস্থাগুলি নিলে পুলিশ সাধারণ মানুষকে সাহায্য করতে পারবে। রাজ্য সরকারের দেওয়া দুটি পোস্টারের কপি প্রত্যেক থানার হাতে তুলে দিয়েছে লালবাজার। পুলিশ কমিশনার থানার ওসিদের বলেছেন, তাঁরা যেন এই পোস্টার শহরের বিভিন্ন জায়গায় লাগিয়ে প্রচার করেন।

Advertisement

lalbazar-2

Advertisement

[আরও পড়ুন: মমতা-বৈশাখী বৈঠকের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ছাঁটাই রত্না, শোভনের ‘ঘর ওয়াপসি’ কি আসন্ন?]

পুলিশ জানিয়েছে, এই পোস্টারে বলা হয়েছে সাধারণ মানুষের কী করনীয় এবং কী করণীয় নয়। সেখানে স্পষ্ট করে বলা হয়েছে, কেউ যেন প্রকাশ্যে থুথু না ফেলেন। এ ছাড়াও কাশি বা জ্বর হলে কেউ যেন অন্যের কাছাকাছি না যান সে বিষয়েও সতর্ক করা হয়েছে। পুলিশ কমিশনারের নির্দেশ পাওয়ার পর বেশ কিছু থানার আধিকারিক ও কর্মীরা নিজেরাই মাস্ক ব্যবহার করছেন। বিশেষ করে যাঁরা বাইরে ডিউটি করেন এবং জনসংযোগের জন্য অনেক লোকের সঙ্গে কথা বলেন, তাঁরা নিজেরাই এই বিষয়ে সতর্ক থাকছেন। পুলিশের একটি সূত্র জানিয়েছে, পুলিশের বড় কোনও অনুষ্ঠান বা বৈঠক এর মধ্যে হচ্ছে না। যদিও করোনা রোধে পুলিশ আধিকারিকরা প্রণাম-এর প্রকল্পে থাকা প্রবীনদের বাড়ি গিয়ে সতর্ক করতে শুরু করছেন। এ ছাড়াও বিভিন্ন ক্লাব ও এলাকার বাসিন্দাদের ডেকে তাঁদেরও সতর্ক করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

[আরও পড়ুন:  করোনা আতঙ্ক: ‘অযথা প্যানিক করবেন না’, রাজ্যবাসীকে আশ্বস্ত করলেন মুখ্যমন্ত্রী]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ