১০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৯  রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

পঞ্চায়েত ভোট পিছোতেই আদালতে বিরোধীরা, অভিযোগ পার্থর

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: April 16, 2018 5:52 pm|    Updated: December 3, 2018 6:14 pm

Legal suits opposition ploy to delay panchayat polls: Partha Chatterjee

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পঞ্চায়েত ভোট নিয়ে শাসক-বিরোধী, সবপক্ষেরই নজর এখন হাই কোর্টে। পঞ্চায়েত ভোটের সমস্ত রকম নির্বাচনী প্রক্রিয়া ১৬ এপ্রিল পর্যন্ত স্থগিত করে দিয়েছিলেন কলকাতা হাই কোর্টের প্রধান বিচারপতি সুব্রত তালুকদার। এই রায়ের বিরুদ্ধে হাই কোর্টেরই ডিভিশন বেঞ্চে আপিলের জেরে সোমবার দুপুরে শুনানি শেষ হয়েছে। বেলা ২টোর পর সিঙ্গল বেঞ্চে প্রধান বিচারপতি সুব্রত তালুকদরের এজলাসে ফের শুনানি শুরু হয়। কিন্তু বেলা ২.৩০ মিনিট পর্যন্ত শুনানি শেষে ফের আগামিকাল এই মামলায় উভয় পক্ষের বক্তব্য শোনার দিন ধার্য করেছেন বিচারপতি। স্বভাবতই রাজ্য জুড়ে পঞ্চায়েত ভোট সংক্রান্ত কোনও নির্বাচনী কাজকর্ম হচ্ছে না।

[এও সম্ভব! জনপ্রিয় পর্ন সাইটে ট্রেন্ডিংয়ে শীর্ষে ‘আসিফা’]

এর ফলে পঞ্চায়েত ভোট পিছিয়ে যাওয়ার যে আশঙ্কা তৈরি হয়েছে তার জন্য বিরোধীরাই দায়ী বলে আজ মন্তব্য করেন তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। যেহেতু বিষয়টি আদালতের বিচারাধীন, তাই এই নিয়ে আক্রমণের পথে না হেঁটে পার্থবাবু বলেন, ‘বিরোধীরা আদালতে যাক। আমরা মানুষের কোর্টেই থাকছি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্যোগে রাজ্যে উন্নয়নের জোয়ার এসেছে। মানুষ সবই দেখেছেন। বিরোধীরা এখন শুধু ভোট পিছিয়ে দেওয়ার লক্ষ্য নিয়েছে। মনে রাখতে হবে, যাঁরা ভোট প্রক্রিয়া বিলম্বিত করতে চান, তাঁরা আসলে মানুষের মুখোমুখি হতে চান না। তাই তাঁরাই ইচ্ছাকৃতভাবে দেরি করাচ্ছেন।’ এরপরই বোমা ফাটান তৃণমূল মহাসচিব। বিরোধীদের সঙ্গে পড়াশোনা না করে পরীক্ষা দিতে আসা পড়ুয়াদের তুলনা টানেন তিনি। বলেন, প্রস্তুতি না নিয়ে পরীক্ষা হলে যাঁরা আসে, তাঁদের দেখেছেন তো! যে কোনওভাবে পরীক্ষা পিছিয়ে দিতে চায় তাঁরা।

এদিন পার্থবাবুর উপস্থিতিতে নদিয়ার দলত্যাগী নেতা সুনীল পাল ফের তৃণমূলে যোগ দেন। এই প্রসঙ্গে পার্থবাবু বলেন, ‘সম্প্রতি  ওঁর অভিমান হয়েছিল। কিন্তু মমতা বন্দোপাধ্যায়ের প্রতি আনুগত্য অটুট ছিল। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপর আস্থা রেখেই উনি আজ ফের দলে যোগ দিলেন। ওঁর উপস্থিতিতে এই জেলায় দলের সাংগঠনিক শক্তি মজবুত হবে।’ প্রসঙ্গত, মুকুল রায়ের ডাকে নদিয়াতে বিজেপিতে যোগ দেন সুনীল পাল। এমনকী, জেলা পরিষদের প্রার্থী হিসাবে মনোনয়নও জমা দেন। বিগত জেলা পরিষদের সদস্য হিসাবে কাজ করলেও এবার তাঁকে প্রার্থী না করায় ক্ষোভে দল ছেড়েছিলেন এলাকায় ‘কেষ্ট’ নাম পরিচিত সুনীলবাবু। কিন্তু দলের শীর্ষ নেতৃত্বের উদ্যোগে তৃণমূল বিধায়ক শংকর সিংয়ের সঙ্গে দেখা করে সিদ্ধান্ত নেন, দল ছাড়বেন না। পার্থবাবু তাঁকে আশ্বাস দেন, নদিয়ায় তৃণমূলকে শক্তিশালী করতে তাঁকে গুরুত্বপূর্ণ সংগঠনের দায়িত্ব দেওয়া হবে।

[কাঠুয়ার ছায়া এবার হরিয়ানায়, ধর্ষণ করে খুন ৮ বছরের শিশুকন্যাকে]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে