১৮ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  রবিবার ৫ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

করোনায় মৃত রোগীর মোবাইল চুরির অভিযোগ, ফের বিতর্কে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: June 16, 2020 6:04 pm|    Updated: June 16, 2020 6:04 pm

Mobile phone of COVID deceased theft raises controversy in CMC

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনায় রোগীর মৃত্যুর পর চুরি হচ্ছে একের পর এক কাছে থাকা জিনিসপত্র। নয়া অভিযোগে ফের বিতর্কের শিরোনামে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ। রাজ্যের স্বাস্থ্যদপ্তর এই মেডিক্যাল কলেজকে কোভিড হাসপাতাল ঘোষণা করার পর থেকে একের পর এক বিতর্ক সামনে আসছে। এবার করোনায় মৃত রোগীর মোবাইল চুরির অভিযোগ উঠেছে। যার জেরে নড়েচড়ে বসেছে কর্তৃপক্ষ। ঘটনা জানাজানি হতেই সুপারের অফিস এবং থানায় অভিযোগ জানিয়েছে মৃতের পরিবার।

জানা গিয়েছে, হাওড়ার শ্যামপুরের বাসিন্দা ২৩ বছরের তরুণীর কিডনির সমস্যা নিয়ে নাগেরবাজারে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি ছিলেন। সেখানে তাঁর ডায়ালিসিস চলছিল। এরপর তাঁর করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ আসতেই তাঁকে নাগেরবাজারের হাসপাতাল থেকে এমআর বাঙ্গুর হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে আবার ডায়ালিসিস হয় না বলে ফের তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে। মেডিক্যাল কলেজে এক সপ্তাহ ভরতি ছিলেন ওই তরুণী। গত ১৮ মে মৃত্যু হয় ওই তরুণীর।

[আরও পড়ুন: সংক্রমণ রুখতে ব্যবহৃত মাস্ক-গ্লাভস ফেলার জন্য কলকাতা জুড়ে হলুদ ড্রাম বসাচ্ছে পুরসভা]

এতদিন পর আজ, মঙ্গলবার মেয়ের ব্যবহৃত ফোন ফেরত পান তরুণীর বাবা। কিন্তু দুটো ফোনের একটি ফেরত পান তিনি। তা নিয়ে তিনি অভিযোগ করেন। কর্তৃপক্ষ আরেকটি ফোনের কথা অস্বীকার করে। এরপর মেয়ের দামি মোবাইল চুরি গিয়েছে বলে অভিযোগ তোলেন ওই ব্যক্তি। মেডিক্যাল কলেজের করোনা ওয়ার্ডে রোগীর পরিজনদের ঢোকায় নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। তাই রোগীর সঙ্গে যোগাযোগ রাখার জন্য মোবাইল ফোন তাঁর কাছে রেখে দেন পরিজনরা। অনেকেই ওয়ার্ড থেকে রোগীর জিনিসপত্র চুরির অভিযোগ তোলেন। কিন্তু করোনায় মৃত রোগীর মোবাইল চুরির অভিযোগ রীতিমতো চিন্তায় ফেলেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে।

মোবাইল চুরির অভিযোগ জানিয়ে সুপার ও পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছেন মৃতার বাবা। প্রয়াত মেয়ের একমাত্র স্মৃতি মোবাইল ফোনও চুরি যাওয়ায় আরও ভেঙে পড়েছেন ওই ব্যক্তি। ঘুষ নিয়ে বেড কাণ্ডের পর এবার মোবাইল চুরির ঘটনায় ফের মুখ পুড়ল মেডিক্যাল কলেজের।

[আরও পড়ুন: সংক্রমণের আতঙ্ক, করোনায় মৃতদের শেষবারের মতোও দেখতে যাচ্ছেন না প্রিয়জনেরা]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে