BREAKING NEWS

২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৭ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

লকডাউনে বন্ধ স্কুলে জন্মাচ্ছে ডেঙ্গুর লার্ভা, কড়া পদক্ষেপ কলকাতা পুরসভার

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: September 25, 2020 9:55 am|    Updated: September 25, 2020 9:55 am

An Images

কৃষ্ণকুমার দাস: লকডাউনের জেরে আপাতত বন্ধ থাকা নামী ইংরেজি মাধ্যম স্কুলের জমা জলে ডেঙ্গুর লার্ভা মিলছে। স্কুলবাড়ির ভিতরে এডিস মশা জন্মে উড়ে গিয়ে সংলগ্ন পল্লির বাসিন্দাদের কামড়ানোয় শহরে ডেঙ্গু (dengue) ছড়িয়ে পড়ছে। বস্তুত এই কারণেই পূর্ব ও মধ্য কলকাতার কয়েকটি নামী ইংরেজি মাধ্যম স্কুলকে পুরসভা থেকে নোটিসও দেওয়া হয়েছে। কিন্তু, ডেঙ্গু প্রতিরোধ কর্মসূচির ওই নোটিস পেয়েও স্কুলগুলি খুব একটা গুরুত্ব দেয়নি বলে বৃহস্পতিবার অভিযোগ করেন বিদায়ী ডেপুটি মেয়র তথা স্বাস্থ্য প্রশাসক অতীন ঘোষ।

স্কুলের পাশাপাশি একই অভিযোগের তালিকায় কয়েকটি কারখানা এবং কেন্দ্রীয় সরকারি অফিস রয়েছে। সেখানে ডেঙ্গুর লার্ভা জন্মালেও ভারপ্রাপ্ত আধিকারিকরা উদাসীন রয়েছেন বলে অভিযোগ। এবার পুরসভার তরফে পুর আইনের ৪৯৬ এবং ৪৯৭/১ ধারায় অভিযুক্ত স্কুলগুলিকে জরিমানার নোটিস দেওয়া হবে। পুরসভা জমা জল ও ডেঙ্গু মশা (Mosquito) ‘র লার্ভা সরিয়ে দেওয়ার পর খরচের জন্য ব্যয় হওয়া অর্থ সম্পত্তিকরের সঙ্গে বিল আকারে জুড়ে দেবে বলে স্বাস্থ্য প্রশাসক জানান।

[আরও পড়ুন: কলকাতায় NIA’র মুখোমুখি ছত্রধর মাহাতো, দেখা করতে পারেন মমতার সঙ্গেও]

করোনাকালে কলকাতার ডেঙ্গু পরিস্থিতি গত বছরের তুলনায় অনেক কম হলেও বেশ কয়েকটি ওয়ার্ড আগের মতোই। ডেঙ্গুপ্রবণ ওই ওয়ার্ডগুলি নিয়ে এবার বিশেষ নজরদারি ও কৌশল অভিযান শুরু করেছে পুরসভা। বৃহস্পতিবার বরো-৬ এর ৫৫ এবং বরো-৭ এর ৫৯, ৬৩, ৬৬ ও ৬৭ নম্বর ওয়ার্ড আগের মতোই ডেঙ্গুপ্রবণ হওয়ায় জরুরি বৈঠকে বসেন স্বাস্থ্যপ্রশাসক। ছিলেন দুই বরোর হেলথ অফিসার, ওয়ার্ড কো-অর্ডিনেটর এবং পুরসভার পতঙ্গবিদরা। বৈঠকে শহরের সামগ্রিক স্বাস্থ্যবিধি উন্নয়নে অভিযুক্ত স্কুল এবং কারখানাকে নোটিস দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়।

পরে অতীনবাবু জানান, নীলরতন সরকার হাসপাতালের ভিতরেও কয়েকটি বাড়ি নির্মাণ হচ্ছে। সেখানে বৃষ্টির জল দীর্ঘদিন ধরে জমে থাকছে বলে খবর এসেছে। ওই বাড়িগুলিও পুরসভার স্বাস্থ্য দপ্তরের নজরদারিতে রয়েছে। শীঘ্রই ডেঙ্গু মোকাবিলায় বিশেষ অভিযান নিয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এবং স্বাস্থ্য দপ্তরের আধিকারিকদের সঙ্গেও বৈঠকে করবে পুরসভা। এরপর দক্ষিণ কলকাতার ৮, ৯ ও ১০ নম্বর বরোর কয়েকটি ওয়ার্ড আগের মতোই ডেঙ্গুপ্রবণ হওয়ায় সেগুলিতে অভিযানে নামবেন স্বাস্থ্য প্রশাসক। একবালপুরের নির্মীয়মাণ মেটারনিটি হাসপাতালও বৃহস্পতিবার পরিদর্শন করেন পুরসভার মুখ্য প্রশাসক ও পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। হাসপাতালের নির্মাণের অগ্রগতি দেখার পর চিকিৎসার পরিকাঠামো দ্রুত সম্পূর্ণ করার জন্য নির্দেশ দেন পুরমন্ত্রী।

[আরও পড়ুন: আইপিএল শুরু হতেই কলকাতায় বড়সড় বেটিং চক্রের হদিশ, রাতভর তল্লাশিতে গ্রেপ্তার ৯]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement