৪ মাঘ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ১৮ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

কোভিড যোদ্ধাদের প্রতি আরও মানবিক রাজ্য সরকার, মৃত্যুতে পরিবারের কাউকে চাকরির সিদ্ধান্ত

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: August 13, 2020 11:58 am|    Updated: August 13, 2020 12:04 pm

Nabanna decides to offer job of a family member of dead COVID warriors

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সামনে সারিতে থাকা কোভিড যোদ্ধারা করোনায় (Coronavirus) আক্রান্ত হলে, চিকিৎসার সম্পূর্ণ ভার রাজ্য সরকারের, তা ঘোষণা করা হয়েছিল আগেই। ১০ লক্ষ টাকা করে আর্থিক সাহায্য দেওয়ার কথাও বলা হয়েছিল। এবার তাঁদের সাহায্যার্থে নেওয়া হল আরও মানবিক সিদ্ধান্ত। কোভিড যোদ্ধাদের মৃত্যু হলে অথবা কেউ চিরকালের মতো শারীরিক সক্ষমতা হারিয়ে ফেললে পরিবারের একজনকে চাকরি দেওয়া হবে। সরাসরি সরকারি চাকরি ছাড়াও সরকার অধিগৃহীত বিভিন্ন সংস্থা এবং স্থানীয় প্রশাসনিক দপ্তরগুলিতে চাকরি দেওয়া হবে বলে ঘোষণা সরকারের। নবান্ন সূত্রে খবর, বুধবার এই সংক্রান্ত নির্দেশিকা জারি হয়েছে।

মহামারী আবহে ডাক্তার, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী ছাড়াও এমন বহু মানুষ আছেন, যাঁরা একেবারে সামনের সারিতে থেকে করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছেন দিনরাত। অনেক সময় নিজেদের সুরক্ষার কথা না ভেবেই স্বতঃস্ফূর্তভাবে তাঁরা ঝাঁপিয়ে পড়ছেন। এমন কোভিড যোদ্ধাদের প্রতি আরও মানবিক সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার। বুধবার নবান্ন থেকে জারি করা এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, এধরনের কোভিড যোদ্ধাদের মৃত্যু হলে অথবা করোনায় কাবু হয়ে তাঁরা যদি শারীরিক সক্ষমতা হারিয়ে ফেলেন কোনও কারণে, তাহলে তাঁদের পরিবারের একজনের কর্মসংস্থানের দায়িত্ব নেবে রাজ্য সরকার। ওই কর্মী যে বিভাগ বা দপ্তরে কর্মরত, সেই দপ্তরের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রীই কাজের ব্যবস্থা করে দেবেন।

[আরও পড়ুন: চিকিৎসার ‘গাফিলতি’তে শিশুমৃত্যু, সাড়ে ৬ লাখের বিল না মেটালে দেহ দিতে আপত্তি হাসপাতালের]

কোন কোন ক্ষেত্রে এই সুবিধা মিলবে? যে কোনও রাজ্য সরকারি দপ্তরে কর্মরত অস্থায়ী (Temporary) বা চুক্তিভিত্তিক (Contractual employee) কর্মী, যাঁরা কোভিড যুদ্ধে শামিল, তাঁদের মৃত্যু বা আজীবন ক্ষতি হলে তাঁর আত্মীয় চাকরি পাবেন। ওই দপ্তরেই তৃতীয় বা চতুর্থ শ্রেণির কোনও পদে চাকরি দেওয়া হবে। শিক্ষাগত যোগ্যতার ভিত্তিতে উঁচু পদেও কাজের সুযোগ মিলতে পারে। সরাসরি সরকারি দপ্তরে সম্ভব না হলে সরকারের অধীনস্থ বা কোনও স্বশাসিত সংস্থায় এঁদের কর্মসংস্থান করে দেওয়া হবে। আশা, জাতীয় স্বাস্থ্য মিশনে কর্মরত, অঙ্গনওয়াড়ি ও সিভিক ভলান্টিয়াররাও রাজ্য সরকারের এই সুবিধা পাবেন। ১ এপ্রিল থেকে এই সিদ্ধান্ত কার্যকরের পক্ষে সিলমোহর দিয়েছে নবান্ন। স্বভাবতই সরকারের এই নতুন উদ্যোগে খুশি তাঁরা সকলে।

[আরও পড়ুন: কর্মসূত্রে বাইরে স্বামী-ছেলে-মেয়ে, কলকাতার ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার বৃদ্ধার পচাগলা দেহ]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে